সোমবার ০১ জুন ২০২০
Online Edition

নাটোরে বিয়ের ৩০ বছর পর নির্যাতনে গৃহবধূ সুইটি বাড়ি ছাড়া

নাটোর সংবাদদাতা : নাটোরের সিংড়া উপজেলার বিনগ্রাম শ্রীকোলের মোঃ সিরাজ খানের (৫৯) স্ত্রী সুইটি বেগম (৪৯)। ৩০ বছর আগে ১৯৮৭ সালে তাদের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে রয়েছে তিন ছেলে আর এক মেয়ে। এর মধ্যে বড় তিন জনের বিয়ে হয়েছে। বড় দুজনের আবার দুটি করে ছেলে মেয়েও হয়েছে। সবচেয়ে ছোট ছেলে পড়ে অনার্সে। এরই মধ্যে গত শনিবার মোঃ সিরাজ খান স্ত্রীকে পিটিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেন। পরের দিনই বিনগ্রামের মৃত হাসমত আলীর স্বামী পরিত্যক্তা মেয়ে রাবেয়া খাতুন (২৮) কে করেন বিয়ে। এই বিয়ের বিরোধীতা করলে জমিজমা থেকে ছেলে মেয়েদের বঞ্চিত করা হবে এমন ঘোষণা দেয়ায় বড় তিন ছেলে মেয়েই রয়েছেন নিরব ভুমিকায়। ছোট ছেলে অনার্স পড়–য়া শিহাব খান একমাত্র রয়েছেন মায়ের পক্ষে। অসুস্থ্য মাকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেছেন নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে। সেখানেই কথা হয় মা ও ছেলে সাথে। তারা জানায়, পিতার সম্পত্তির লোভে এই অত্যচার নির্যাতনে মায়ের পক্ষে কোন কথা বলছেনা বড় তিন ছেলে মেয়ে। এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য বার বার চেষ্ঠা করেও মোঃ সিরাজ খানকে পাওয়া যায়নি। তবে এলাকাবাসী জানিয়েছেন, বড় স্ত্রীকে নির্যাতন করে তাড়িয়ে দিয়ে নতুন বউকে নিয়ে ভালই আছেন মোঃ সিরাজ খান। এদিকে নির্যাতিতা সুইটি বেগম জানিয়েছেন, তাকে বাড়িতে আশ্রয় না দিলে একটু সুস্থ্য হয়ে তিনি আদালতে মামলা দায়ের করবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ