বৃহস্পতিবার ০৪ জুন ২০২০
Online Edition

টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে মানবসম্পদ উন্নয়নের বিকল্প নেই

গণপ্রকৌশল দিবস ১৭ ও আইডিইবির ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল রোববার ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স-এর উদ্যোগে সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : টেকসই উন্নয়নের লক্ষমাত্রা অর্জনে জাতীয় সামষ্টিক দক্ষতা উন্নয়নের কোন বিকল্প নেই উল্লেখ করে মানবসম্পদ উন্নয়নে অধিকতর গুরুত্ব দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনীয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি)। গতকাল রোববার সকালে সংগঠনের ৪৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও গণপ্রকৌশল দিবস’১৭ উপলক্ষে আইডিইবি ভবনে আয়োজিত  সাংবাদিক সম্মেলন থেকে আইডিইবি নেতৃবৃন্দ সরকারের প্রতি এ আহ্বান জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, সব উন্নয়নচিন্তা মানবসম্পদ থেকেই উদ্ভূত। মানবসম্পদের গুণগত মান ও সক্ষমতার ওপরই দেশ এবং এর প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রকৃত শক্তি-সামর্থ্য নির্ভর করে। মানুষের দক্ষতা উন্নয়নে শিক্ষার বিকল্প নেই উল্লেখ করে তারা বলেন, শিক্ষা মানুষের মধ্যে জ্ঞান, দক্ষতা, দৃষ্টিভঙ্গি ও মূল্যবোধ তৈরি করে, যা ভবিষ্যতের উন্নয়নের ক্ষেত্রে অবদান রাখতে পারে। তবে টেকসই উন্নয়নের বিষয়টি মাথায় রেখে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষাকে প্রাধান্য দিয়ে শিক্ষাব্যবস্থায় পরিবর্তন আনা প্রয়োজন। বর্তমান প্রবৃদ্ধির হার ও অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রা অব্যাহত রেখে উন্নয়ন টেকসই করার স্বার্থে দক্ষতাভিত্তিক জাতীয় সংস্কৃতি গড়ে তোলা প্রয়োজন বলে নেতৃবৃন্দ জোর দেন।
সাংবাদিক সম্মেলনে আইডিইবি নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের অনেক অর্জন সত্ত্বেও দক্ষতা বিষয়ে রাষ্ট্রীয় উদ্যোগ যথেষ্ট নয়। অথচ উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে হলে ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জন অপরিহার্য। বিষয়টির গুরুত্ব অনুধাবন করে প্রতিষ্ঠা দিবসের প্রতিপাদ্য “Skills for Achieving SDG” নির্ধারণ করা হয়েছে বলে নেতৃবৃন্দ উল্লেখ করেন।
বিশ্বের ভবিষ্যত কর্মবাজারের নিরিখে জাতীয় দক্ষতা উন্নয়নে সংবাদ সম্মেলনে সকল শিক্ষা ব্যবস্থায় জ্ঞান ও দক্ষতা ভিত্তিক কারিকুলাম প্রবর্তন, প্রাথমিক শিক্ষাস্তরে ন্যূনতম একটি এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষাস্তরে ৩টি কারিগরি বিষয় অন্তর্ভুক্তকরণ, কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষাকে শিক্ষার মূল শ্রোতধারায় আনা, সামগ্রিক শিক্ষা ব্যবস্থাকে জ্ঞান ও দক্ষতা ভিত্তিক পুনর্গঠনসহ বিশ্বমানের শিক্ষার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ করা, দেশে আন্তর্জাতিক মানের কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপন ও বৈশ্বিক চাহিদার প্রেক্ষাপটে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা, উন্নত বিশ্বের ন্যায় দেশের কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষার্থীর হার ৫০-৬০ ভাগে উন্নীত ও মধ্যম স্তরের কারিগরি শিক্ষাকে ৪০-৪৫ভাগে উন্নীত করা,  কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ এবং শ্রমনিষ্ঠ মানুষের মর্যাদা ও পারিশ্রমিক নিশ্চিত করার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়।
গণপ্রকৌশল দিবসের প্রতিপাদ্যের বিষয়ে সামাজিক আন্দোলন-জনমত সৃষ্টির লক্ষ্যে দেশজুড়ে সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি নেয়া হয়েছে বলে নেতৃবৃন্দ জানান। কর্মসূচির মধ্যে ১-৭ নভেম্বর পর্যন্ত কেন্দ্রীয় ও জেলা পর্যায়ে সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নেতৃবৃন্দ, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব, সদস্য প্রকৌশলী ও বিভিন্ন স্তরের জনগণের মাঝে শুভেচ্ছা কার্ড বিতরণ, ৪ নভেম্বর ঢাকায় আইডিইবি ভবনে “প্রাতিষ্ঠানিক নেতৃত্বের সামর্থ্য ও সক্ষমতা বৃদ্ধি” শীর্ষক আলোচনা, ৬ নবেম্বর বিকাল সাড়ে পাঁচটায় কেন্দ্রীয়ভাবে আইডিইবি ভবনে চ্ঞড় ইঁরষফ ঝবপঁৎব ওঈঞ ভড়ৎ ঝউএ: জড়ষব ড়ভ গরফ-খবাবষ ঊহমরহববৎং” শীর্ষক সেমিনার,  ৮ নবেম্বর কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকায় সকাল ১১টায় আইডিইবি ভবনে র‌্যালিপূর্ব সমাবেশ, আলোচনা ও রাজধানীতে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার-ছাত্র-শিক্ষকদের অংশগ্রহণে বর্ণাঢ্য র‌্যালি, একাধিক জাতীয় দৈনিকে বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ, বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বেসরকারি কয়েকটি টিভি চ্যানেল ও বাংলাদেশ বেতারে আলোচনা অনুষ্ঠান সম্প্রচার, ৯ নভেম্বর বিকাল সাড়ে তিন টায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে “সমৃদ্ধ বাংলাদেশ ও এসডিজি অর্জনে দক্ষতা” শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। কেন্দ্রীয়ভাবে আয়োজিত এসকল অনুষ্ঠানে মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, সচিব, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বলে নেতৃবৃন্দ জানান। 
সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামসুর রহমান। বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন সভাপতি এ কে এম এ হামিদ। উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি একেএম আবদুল মোতালেব, যুগ্ম সম্পাদক মোঃ ফজলুর রহমান খান, মোঃ আব্দুন নুমান, শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ ইদরীস আলী, অর্থ সম্পাদক মোঃ গিয়াস উদ্দিন, জনসংযোগ ও প্রচার সম্পাদক মোঃ সিরাজুল ইসলাম, লাইব্রেরি সম্পাদক আবুল বাসার, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রেহান মিয়া, দপ্তর সম্পাদক এম গোলাম মোহাম্মদ, চাকরি বিষয়ক সম্পাদক দিলিপ কুমার ভৌমিক, গবেষণা সম্পাদক এবিএম আতিয়ার রহমান, সহ-শিক্ষা সম্পাদক মোঃ আবুল কালাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মীনা পারভীন, ঢাকা জেনিক সভাপতি মোঃ খবির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুল মান্নান প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ