মঙ্গলবার ০৯ মার্চ ২০২১
Online Edition

আজ বাংলাদেশ লেবার পার্টির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

আজ ২২ অক্টোবর ২০১৭ বাংলাদেশের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ লেবার পার্টির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। প্রতিষ্ঠা দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন মাসব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করেছে লেবার পার্টি। এ বারের প্রতিপাদ্য “রুখো আগ্রাসন-হটাও দুঃশাসন”। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, কেক কাটা, আলোচনা সভা, প্রতিনিধি সম্মেলন ও মতবিনিময় সভা। এ উপলক্ষ্যে দেশবাসী ও দলীয় সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান ও মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী।

১৯৭৪ সালে শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে লালবাহীনি, রক্ষীবাহিনী ও আওয়ামী সন্ত্রাসীদের লুটপাট, অত্যাচার, নির্যাতন ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে জাতীয়নেতা মরহুম মাওলানা আবদুল মতীনের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ লেবার পার্টি। প্রতিষ্ঠার প্রথম বছরেই ১৯৭৫ সালের ২৫ জানুয়ারী শেখ মুজিব মাত্র ১৩ মিনিটের সংসদে রাষ্ট্রীয় ফরমান জারি করে লেবার পার্টিসহ সকল রাজনৈতিক দল নিষিদ্ধ করে একদলীয় বাকশাল কয়েম করে। ১৯৭৭ সালে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্র চর্চার সুযোগ দিলে বাংলাদেশ লেবার পার্টি ১৯৭৭ সালের ২২ অক্টোবর মাওলানা আবদুল মতীনের নেতৃত্বে পুনর্জীবন ফিরে পায়। পরে শহীদ জিয়ার নেতৃত্বে জাতীয়তাবাদী ফ্রন্ট গঠিত হলে- মশিউর রহমান যাদু মিয়ার ন্যাপ, শাহ আজিজুর রহমানের মুসলিম লীগ, বিচারপতি আবদুস সাত্তারের জাগদল, মাওলানা মতীনের লেবার পার্টি, কাজী জাফরের ইউপিপি জোটের রাজনীতিতে সক্রিয় ভাবে অংশ নেয়।

মাওলানা মতীনের মৃত্যুর পর বাংলাদেশ লেবার পার্টির নেতৃত্বে আসেন ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান। তিনি লেবার পার্টিকে সাংগঠনিক ভাবে গণমুখী ও শক্তিশালী করতে ব্যাপক কর্মসুচী গ্রহন করে বিভিন্ন জেলা-মহানগরে কার্যক্রম ছড়িয়ে দেন। তার নেতৃত্বে ২০০৮ সালে অসাংবিধানিক জরুরী সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথে ব্যাপক কর্মসুচী পালিত হয়। ২০০৭ সাল থেকে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে জাতীয়তাবাদী চেতনায় সমমনাদল হিসাবে রাজনৈতিক কর্মকান্ড পরিচালনা ও অংশ গ্রহন করে। ২০১২ সালে ১৮ দলীয় জোট (বর্তমানে ২০ দল) গঠিত হলে বাংলাদেশ লেবার পার্টি অন্যতম শরিক হিসাবে জোটের রাজনীতিতে অংশ নেয়। বর্তমান সরকারের জুলুম অত্যাচারের বিরুদ্ধে বেগম খালেদা জিয়া আহুত বিক্ষোভ সমাবেশ, মিছিল, মিটিং, হরতাল, অবরোধসহ সকল কর্মসুচীতে লেবার পার্টি সক্রিয় ভাবে রাজপথে ভুমিকা পালন করছে। লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান সহ পার্টি অসংখ্য নেতা-কর্মী চলমান আন্দোলনে গ্রেফতার হয়ে জেল,জুলুম, হামলা-মামলা, অত্যাচার-নির্যাতনের মধ্যেও রাজনৈতিক কর্মকান্ড অব্যাহত রাখছে। লেবার পার্টির নবীন প্রবীনদের সমন্বয়ে ভাতৃত্বপূর্ন নেতৃত্ব বিকাশের মাধ্যমে ওমর-ই সাম্যবাদের আলোকে শোষনমুক্ত ইনসাফ ভিত্তিক কল্যান রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় যোগ্য ও আর্দশ নাগরিক সৃষ্ঠিতে কাজ করছে। শুধু ক্ষমতার হাত বদল নয়, খাই খাই লুটপাটের রাজনীতির বাইরে অর্থবহ আদর্শিক পরিবর্তন চায় বাংলাদেশ লেবার পার্টি।

কর্মসূচি

* ২২ অক্টোবর  রোববার সকাল ১০ টায় নয়াপল্টনস্থ পার্টি অফিসে প্রতিষ্ঠা বাষির্কীর কেক কাটা অনুষ্ঠান।

* ২৮ অক্টোবর শনিবার সকাল ১০ টায় সুপ্রিম কোর্ট বার অডিটরিয়ামে আলোচনা সভা। প্রধান অতিথি মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ