শনিবার ০৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

বসত বাড়িতে হামলা অগ্নিসংযোগ ॥ লুটপাট!

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা : যশোরের কেশবপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষরা একটি পরিবারের বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে ২ জনকে পিটিয়ে আহত করেছে। এ সময় সন্ত্রাসীরা অগ্নিসংযোগসহ লুটপাট করে ২ লাখ টাকার ক্ষতি সাধন করেছে। এ ঘটনায় থানায় এজাহার দাখিল করা হয়েছে। 

জানা গেছে, উপজেলার কাস্তা গ্রামে দফাদার পাড়ার ফজলুর রহমানের ছেলে শিক্ষক জাকির হোসেনের সাথে একই গ্রামের মৃত ওয়াসিম দফাদারের ছেলে শহর আলীর চলাচলের রাস্তার জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। শহর আলীর ছেলে সবুজ হোসেন প্রায় সময় বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে জাকির হোসেনের জমির গাছ জোর পূর্বক কর্তন করে বিক্রি করতো। এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার বিকেলে সবুজ হোসেন তার ভাই রিটন, মিন্টুসহ আরো অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে সাথে নিয়ে জাকির হোসেনের জমিতে রোপণকৃত বিভিন্ন প্রজাতির ৫০ হাজার টাকা মূল্যের গাছ জোর পূর্বক কেটে ফেলে। খবর পেয়ে বাধা দিতে গেলে তারা জাকির হোসেন ও তার ছোট ভাই আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী সালমা বেগম (৩০) কে মারপিট করে আহত করে। তাদের আর্তচিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে আসলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। এলাকাবাসী আহতদেরকে উদ্ধার করে কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করেছে। 

আহত জাকির হোসেন জানান, ওই দিন রাতে সবুজ হোসেনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তার বাড়িতে হামলা ও লুটপাট কালে ঘরে থাকা ৩০ হাজার টাকা নিয়ে হাতিয়ে নিয়ে চলে যাওয়ার সময় তারা গোয়াল ঘরে আগুন ধরিয়ে দিয়ে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে। এলাকাবাসীর সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা হলেও গোয়ালঘর, ঘরে থাকা বিচলি ও কাঠ পুড়ে যায়। তিনি আরো জানান, গত তিন মাস আগে তার জমিতে রোপনকৃত ৬০ হাজার টাকা মূল্যের দুটি শিশু গাছ ও একটি কাঁঠাল গাছ তারা জোরপূর্বক কেটে বিক্রি করে দেয়। ওই ঘটনায় সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানের কছে অভিযোগ করা হলেও আসামীদের কোন বিচার করা হয়নি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মারপিট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় কেশবপুর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ