বুধবার ০৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

চার্জখেকো অ্যাপগুলো

স্মার্টফোনের প্রত্যেক ব্যবহারকারীর সাধারণ একটি সমস্যা ব্যাটারির চার্জ দ্রুত শেষ হয়ে যাওয়া। নতুন ফোন কেনার পর হয়তো কিছুদিন অনেকটা সময় চার্জ থাকে। কিন্তু ফোনটি পুরোনো হওয়ার আগেই চার্জ যেন থাকতেই চায় না। দিনে একাধিকবার চার্জ দিতে হয়। সব সময় তো আর সঙ্গে বহনযোগ্য চার্জার বা পাওয়ার ব্যাংক রাখা সম্ভব হয় না। তা ছাড়া সমস্যাটি যে শুধু ব্যাটারি বা হার্ডওয়্যারের এমনও নয়। ফোনে এমন কিছু অ্যাপ্লিকেশন বা অ্যাপ রয়েছে, যা চার্জ দ্রুত শেষ হওয়ার প্রধান কারণ হতে পারে। ঠিক এমন ১০টি অ্যাপের তালিকা তৈরি করেছে তথ্যপ্রযুক্তি নিরাপত্তাপ্রতিষ্ঠান এভিজি, যেগুলো ফোনের চার্জ দ্রুত শেষ করে। শুধু তাই নয়, ফোনের অভ্যন্তরীণ মেমোরিও বেশ খানিকটা দখল করে থাকে। আর অতিরিক্ত ইন্টারনেট খরচের ঝামেলা তো রয়েছেই। লিখেছেন মারিফুল হাসান
ক্যান্ডি ক্রাশ সাগা : সব বয়সীদের মাঝে জনপ্রিয় একটি গেম। তা ছাড়া আইওএস এবং অ্যান্ড্রয়েড দুই অপারেটিং সংস্করণেই জনপ্রিয় শীর্ষ গেমগুলোর একট ক্যান্ডি ক্রাশ সাগা। কিন্তু এভিজির তালিকায় অতিরিক্ত ব্যাটারির চার্জ খরচের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে এই গেম। তা ছাড়া অ্যাপটি অভ্যন্তরীণ মেমোরি এবং মোবাইল ডেটাও বেশি খরচ করে।
পেট রেস্কিউ সাগা : অনেকটা ক্যান্ডি ক্রাশ সাগার মতোই পাজল ঘরানার জনপ্রিয় অনলাইন গেম। কিন্তু গেমটির অতিরিক্ত ব্যাটারি, অভ্যন্তরীণ মেমোরি এবং মোবাইল ডেটা খরচের জন্য তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে।
ক্ল্যাশ অব ক্ল্যানস : গেমটি যে কতটা জনপ্রিয় তা আলাদা করে বলার কিছু নেই। আক্রমণ, যুদ্ধ, সাম্রাজ্য অধিগ্রহণ-সব মিলেই গেমটি অসাধারণ। মোবাইল ডেটা খরচের বিষয়ে গেমারদের তেমন একটা অভিযোগ না থাকলেও খুব বেশি ব্যাটারি খরচের অভিযোগ সব সময়ই রয়েছে।
গুগল প্লে সার্ভিসেস : অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ অ্যাপ বলা যেতে পারে। কিন্তু অ্যাপটির প্রধান সমস্যা এটি যেমন ব্যাটারি খরচ করে, ঠিক একইভাবে মেমোরি ও মোবাইল ডেটাও খরচ করে। এ জন্যই এভিজি তাদের তালিকায় অ্যাপটিকে চারে স্থান দিয়েছে।
ওএলএক্স : এটি বিনা মূল্যে বেচাকেনার জনপ্রিয় ক্ল্যাসিফায়েড অ্যাপ। কিন্তু অ্যাপটি বেশ ব্যাটারি খরুচে বলে পরিচিতি পেয়েছে।
ফেসবুক : বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অ্যাপ। কিন্তু অ্যাপটি অতিরিক্ত ব্যাটারি খরচ করে। তা ছাড়া ব্যবহারকারীদের অভিযোগ রয়েছে অ্যাপটি ফোনের গতিও কমিয়ে দেয়।
হোয়াটসঅ্যাপ : মেসেজিং অ্যাপ হিসেবে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় হোয়াটসঅ্যাপ। কিন্তু অ্যাপটি বন্ধ করলেও ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতে থাকে। বেশি ব্যাটারি খরচের জন্য এভিজির তালিকায় সাতে রয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ।
লুকআউট সিকিউরিটি ও অ্যান্টিভাইরাসসিকিউরিটি ও অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ হিসেবে এটি বেশ জনপ্রিয়। সাধারণত স্মার্টফোনের জন্য তৃতীয় পক্ষের এ ধরনের অ্যাপের প্রয়োজন পড়ে না বলেই বিশেষজ্ঞদের মতামত। তা ছাড়া অ্যাপটি বেশ ব্যাটারি খরচে।
অ্যান্ড্রয়েড ওয়েদার ও ক্লক উইজেটপ্রতিটি ফোনেই বিল্ট-ইন কিছু উইজেট থাকে। যেগুলো বেশ কাজের। কিন্তু এই উইজেটের মূল সমস্যা হলো, এটি অতিরিক্ত ব্যাটারি খরচ করে।
সলিটেয়ার : বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেমে গেমটি বেশ জনপ্রিয়। কিন্তু অ্যান্ড্রয়েডে অ্যাপটি ফোনের চার্জ দ্রুত শেষ হওয়ার জন্য দায়ী। এ জন্য এভিজি তাদের তালিকায় সলিটেয়ারকে ১০ নম্বরে স্থান দিয়েছে। -গ্যাজেটস নাও

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ