শনিবার ০৮ আগস্ট ২০২০
Online Edition

আপত্তিকর বক্তব্য ইসলামী আদর্শের পরিপন্থী -অধ্যাপক মুজিব

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ গত ২৯ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগরীর বনানীতে পূজা মণ্ডপে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে “বিশ্বকে অবশ্যই ধর্মভিত্তিক রাষ্ট্র গঠনের ধারণা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে” মর্মে যে বক্তব্য দিয়েছেন তার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান। তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতি উক্ত বক্তব্য ইসলাম কখনো সমর্থন করে না। তার এ আপত্তিকর বক্তব্য ইসলামী আদর্শের পরিপন্থী। 

গত রোববার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, শতকরা ৯০ জন মুসলমানের দেশের রাষ্ট্রপতির নিকট থেকে দেশবাসী এ ধরনের আপত্তিকর বক্তব্য আশা করে না। তার এ বক্তব্য অন্যায়, অনভিপ্রেত ও অনাকাক্সিক্ষত। বাংলাদেশের সংবিধানে ‘রাষ্ট্রধর্ম ও বিস্মিল্লাহির রাহমানির রাহীম’ বহাল আছে। কাজেই রাষ্ট্রপতি এ ধরনের বক্তব্য দিতে পারেন না। তার এ বক্তব্য দেশের সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক। 

তিনি বলেন, আল্লাহর প্রেরিত অনেক নবী-রাসূলই (আ:) আল্লাহর মনোনীত ধর্মীয় আদর্শের ভিত্তিতে রাষ্ট্র পরিচালনা করেছেন। বিশেষ করে শেষ নবী হযরত মুহাম্মাদ (সা:) মদিনায় একটি ইসলামী কল্যাণ রাষ্ট্র ও সমাজ কায়েম করে গিয়েছেন। তাঁর প্রতিষ্ঠিত ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা সর্বযুগের ও সর্বকালের মানুষের জন্য একটি সর্বোত্তম রাষ্ট্র ব্যবস্থা। মহানবী হযরত মুহাম্মাদ (সা:) এর প্রতিষ্ঠিত রাষ্ট্র ব্যবস্থা তাঁর সকল উম্মতের জন্য অনুকরণীয় ও অনুসরণীয়। ইসলামী রাষ্ট্র ব্যবস্থা সকল ধর্মের মানুষের জন্যই কল্যাণকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। তাই রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ‘ধর্মভিত্তিক রাষ্ট্র গঠনের ধারণা থেকে বেরিয়ে আসার’ আহ্বান জানিয়ে বক্তব্য দিতে পারেন না।

তিনি আশা প্রকাশ করেন, রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ভবিষ্যতে এ ধরনের বক্তব্য প্রদান করা থেকে বিরত থাকবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ