শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

জাতীয় ক্রিকেট লিগে নাদিফ চৌধুরীর সেঞ্চুরি

স্পোর্টস রিপোর্টার : জাতীয় ক্রিকেট লিগে সাত নম্বরে ব্যাট করতে নেমে সেঞ্চুরি করেছেন নাদিফ চৌধুরী। সেঞ্চুরিসহ নাদিফ চৌধুরী খেললেন ক্যারিয়ার সেরা ১৬৬ রানের ইনিংস। ৯৯ ম্যাচের প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে প্রথমবার পেলেন দেড়শ রানের স্বাদ। দ্বিতীয় সেঞ্চুরি থেকে দুই রান দূরে দিন শেষ করেছেন মোশাররফ হোসেন। জাতীয় লিগের প্রথম স্তরের ম্যাচে চট্টগ্রামে খুলনার বিপক্ষে গতকাল দ্বিতীয় দিন শেষে ঢাকার রান ৭ উইকেটে ৪৮৪। বৃষ্টির কারণে আগের দিন খেলা হয়েছিল ৩৯ ওভার। সেটি পুষিয়ে নিতে দ্বিতীয় দিনে হয়েছে ১০১ ওভার। ১৬৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন নাদিফ। তার আগের ৫টি সেঞ্চুরিতে সর্বোচ্চ রান ছিল ১১৪! ৯৮ রানে অপরাজিত  থেকে দিন শেষ করেছেন আটে নামা মোশাররফ হোসেন রুবেল।
আগের দিন ঢাকার শুরুটা বিবেচেনা করলে এই ঘুরে দাঁড়ানো প্রায় অবিশ্বাস্য। ৭১ রানে হারিয়েছিল তারা ৪ উইকেট। সেখান থেকে প্রতিরোধের শুরু শুভাগত হোম ও তাইবুর পারভেজের ব্যাটে। পঞ্চম উইকেটে দুজনে গড়েন ১১০ রানের জুটি। ১০১ বলে ৬৬ করে আউট হন শুভাগত। বাঁহাতি তাইবুর ১৭০ বলে করেন ৭৯। এই দুজন আউট হলেও স্বস্তি মেলেনি খুলনার। সপ্তম উইকেটে অসাধারণ ব্যাট করতে থাকেন নাদিফ ও মোশাররফ। বরাবরই আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ের জন্য পরিচিত নাদিফ খেলেছেন তার মতোই। সেঞ্চুরিতে ১০টি চারের সঙ্গে ছক্কা ছিল ৫টি। সেঞ্চুরির পরও হাল না ছেড়ে খেলে যান শট। শেষ পর্যন্ত আউট হয়েছেন অনিয়মিত বোলার তুষার ইমরানের বলে। ১৭ চার ও ৬ ছক্কায় ২৩৯ বলে ১৬৬! মোশাররফ ছিলেন ধৈর্য্যের প্রতিমূর্তি। প্রায় সাড়ে ৪ ঘণ্টা ব্যাট করে দিন শেষ করেছেন ২১৮ বলে ৯৮ রানে।  প্রথম স্তরের অন্য ম্যাচে রাজশাহীতে রংপুর ও বরিশালের খেলা বৃষ্টির কারণে শুরু হতে পারেনি দ্বিতীয় দিনেও।
এদিকে রাজশাহীকে একা টানলেন জুনায়েদ সিদ্দিক। জাতীয় লিগের দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচে খুলনায় প্রথম ইনিংসে ২২০ রানে অলআউট হয়েছে রাজশাহী। বৃষ্টিতে আগেই দিনের খেলা শেষ হওয়ার আগে স্বস্তিতে ছিল না ঢাকা মেট্রোপলিটনও। ১০ রান তুলতেই নেই তাদের ২ উইকেট। বৃষ্টিবিঘিœত প্রথম দিনে রাজশাহীর রান ছিল ৪ উইকেটে ১১৪।
দ্বিতীয় দিনেও খুব ভালো ব্যাট করতে পারেনি তারা। একপ্রান্তে লড়াই করেছেন জুনায়েদ। তাকে সঙ্গ দেওয়ার মত ছিলেন না কেউ। সতীর্থদের আশা যাওয়ার মাঝেই দলের রানকে দুইশর ওপারে নিয়ে যান জুনায়েদ। নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হয়েছেন ৮৫ রানে। দ্বিতীয় দিনে ১৫ রানও করতে পারেননি রাজশাহীর আর কেউ। আগের দিন ৩ উইকেট নিয়েছিলেন পেসার ডলার মাহমুদ। এদিন তিনটি নিয়েছেন অফ স্পিনার শরিফ উল্লাহ। ব্যাটিংয়ে নেমে ঢাকা মেট্রো হারিয়েছে ওপেনার মেহেদী মারুফ ও তিনে নামা জাবিদ হোসেনকে। দ্বিতীয় স্তরের অন্য ম্যাচে বগুড়ায় চট্টগ্রাম ও সিলেটের খেলা বৃষ্টিতে শুরু হতে পারেনি দ্বিতীয় দিনেও। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ