বৃহস্পতিবার ০৬ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বাংলাদেশকে হাল্কাভাবে নিচ্ছি না আমরা -গিবসন

স্পোর্টস রিপোর্টার : বাংলাদেশের বিপক্ষে এ পর্যন্ত হোম এন্ড এ্যাওয়েতে চার টেস্টে মুখোমুখি হয়ে সব ম্যাচেই ইনিংস ব্যবধানে জিতেছে প্রোটিয়ারা। তবে এ বছর ইংল্যান্ড সফরে চার টেস্টের সিরিজ হারা এবং দলের প্রধান পেস আক্রমণের অনুপুস্থিতিতে স্বাগতিক দলের আত্মতুষ্টির কোনো সুযোগ নেই। ফলে বাংলাদেশকে হালকা ভালে নিচ্ছে না দক্ষিণ আফ্রিকা এমনটাই জানালেন দলটির কোচ গিবসন। বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজটি হবে দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন কোচ ওটিস গিবসেনর প্রথম এসাইনমেন্ট। ইতঃপূর্বে বাংলাদেশের  বিপক্ষে একতরফাভাবে  সব টেস্টে জয় পাওয়া প্রোটিয়ারা এ সিরিজেও সে রেকর্ড অব্যাহত রাখতে চায়। তবে তাদের চিন্তার বিষয় হচ্ছে  ফাস্ট বোলিং এবং টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ফর্ম। ইনজুরির কারণে ক্রিস মরিস, ভারনন ফিলান্ডার এবং ডেল স্টেইন খেলতে না পরায়  প্রোটিয়া দলের পেস আক্রমণের  দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে মরনে মরকেল ও কাগিসো রাবাদাকে। ডিন এলগারের সর্বশেষ ওপেনিং জুটি হিসেবে অভিষেক হতে যাচ্ছে ২২ বছর বয়সী আইডেন মার্করামের। তবে গিবসনের জন্য চিন্তার বিষয় হচ্ছে বোলারদের ইনজুরি। তিনি বলেন, ‘সত্যিই কিছু সমস্যা আছে। টেস্ট ম্যাচ  জিততে  আপনাকে ২০ উইকেট শিকার করতে হবে এবং সেরা ফাস্ট বোলারদের ফিট থাকতে হবে।’ ম্যাচ অনুশীল হিসেবে  গিবসন সব টেস্ট খেলোয়াড়কে  গত সপ্তাহে ঘরোয়া চারদিনের প্রথম ম্যাচ খেলতে বলেছেন। তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজটি সহজ হবে কোনোভাবেই আমি সেটা ভাবছি না।’ সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ দলের পারফরমেন্সের কথা  পুরো বিশ্বই অবগত আছে উল্লেখ করে  ইংল্যান্ড দলের সাবেক এ বোলিং কোচ বলেন, ‘বাংলাদেশ  নিজ মাঠে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে। শ্রীলংকাকে হারিয়েছে লংকার মাঠে। সুতরাং  শক্তিশালী দল না হলে সেটা কোনোভাবেই সম্ভব নয়।’ দুই টেস্টের সিরিজ খেলছেন না বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। টেস্ট ক্রিকেট থেকে ছয় মাসের বিশ্রাম চেয়েছিলেন তিনি। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তাকে দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই ম্যাচের সিরিজ থেকে বিশ্রাম দিয়েছে। গিবসন বলেন, ‘সাকিব না  থাকায় বাংলাদেশ কিছুটা দুর্বল থাকবে এটা  ঠিক। কিন্তু একই সাথে আপনাকে মনে রাখতে হবে- বাংলাদেশ দলে এখন তরুণরা ভালো করছে। এটা দলীয় খেলা। সুতরাং টাইগার দলের বিপক্ষে জিততে হলে আমাদের সর্বশক্তি নিয়োগ করতে হবে।’ বাংলাদেশ দল নিজ মাঠে সব ভার্সনেই  দারুণ ক্রিকেট খেলছে। গত দুই বছরে বিশ্বের বাঘা বাঘা দলগুলোকে হারিয়েছে। গিবসন বলেন, ‘নিজ কন্ডিশনে সব দলই কিছুটা সুযোগ পেয়ে থাকে। সে দিক থেকে আমাদেরকেও নিজ মাঠের কন্ডিশনটা কাজে লাগাতে হবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ