বৃহস্পতিবার ০৬ আগস্ট ২০২০
Online Edition

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে কঠিন সিরিজের মুখোমুখি বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার : দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কঠিন সিরিজের মুখোমুখি বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে তাদের বিপক্ষে ভালো করা কঠিন হতে পারে বাংলাদেশের জন্য। কারণ পরিসংখ্যান সেটাই বলে। প্রায় ৯ বছর পর আবারো দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে টেস্ট সিরিজ খেলতে নামছে  বাংলাদেশ। সর্বশেষ ২০০৮ সালে দক্সিণ আফ্রিকা সফরে খেলেছিলো টাইগাররা। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট খেলে ২০০২ সালে। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে সাথে এখন পর্যন্ত ১০টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। এরমধ্যে ৮টিতেই হেরেছে। আর দু’টি ড্র করেছে টাইগাররা। বৃষ্টির সহায়তায় দু’টি ড্র’ই দেশের মাটিতেই করে বাংলাদেশ। ২০০২ সালের ১৮ অক্টোবর ইষ্ট লন্ডনে প্রথমবারের মত টেস্ট ফরম্যাটে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা। ঐ টেস্টটি ইনিংস ও ১০৭ রানের ব্যবধানে হারে টাইগাররা। ঐ সফরের দ্বিতীয় ম্যাচও ইনিংস ব্যবধানে হারে বাংলাদেশ। ইনিংস ও ১৬০ রানের ব্যবধানে জয় পায় প্রোটিয়ারা। এরপর ২০০৩ সালে বাংলাদেশ সফরে আসে দক্ষিণ আফ্রিকা। এখানেও দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে প্রাধান্য বিস্তার করে খেলে প্রোটিয়ারা।
চট্টগ্রামে সিরিজের প্রথম টেস্ট ইনিংস ও ৬০ রানে জয়ের পর ঢাকায় দ্বিতীয় ম্যাচ ইনিংস ও ১৮ রানে জিতে নেয় সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা। ২০০৩ সালের পর ২০০৮ সালে আবারো বাংলাদেশ সফরে আসে দক্ষিণ আফ্রিকা। যথারীতি সিরিজের প্রথম টেস্টে জয় পায় প্রোটিয়ারা। তবে ব্যতিক্রমী জয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম চার টেস্ট ইনিংস ব্যবধানে জয়ের পর পঞ্চম দেখায় উইকেটের ব্যবধানে জিতে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। ৫ উইকেটে জয় ছিলো প্রোটিয়াদের। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে আবারো পুরনো রূপে ফিরে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ইনিংস ও ২০৫ রানের ব্যবধানে জিতে সিরিজ জয় নিশ্চিত করে প্রোটিয়ারা। একই বছরের শেষদিকে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়ে দু’টেস্টেই ইনিংস ব্যবধানে হেরে বসে বাংলাদেশ। ব্লুমফন্টেইনে সিরিজের প্রথম টেস্ট ইনিংস ও ১২৯ রানে হারের পর সেঞ্চুরিয়ানে বড় ব্যবধানে হার মানে টাইগাররা। ইনিংস ও ৪৮ রানের সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট জিতে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা।
২০০৮ সালের পর সাত বছর পর বাংলাদেশ সফরে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলে দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে ঐ সিরিজে জয়ের স্বাদ নিতে পারেনি প্রোটিয়ারা। বৃষ্টির কারনে দু’টি ম্যাচই ড্র হয়। ২০১৫ সালের ২১ জুলাই চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে শুরু হওয়া টেস্টের প্রথম দিন খেলা হয়েছিলো মাত্র ২ ওভার। বৃষ্টির কারনে পুরো দিনের বেশিরভাগই নষ্ট হয়ে যায়। অবশ্য দ্বিতীয় দিন ৬৭ ওভার খেলা হয়। তৃতীয় দিনেও বৃষ্টি ব্যাঘাত ঘটায় টেস্টে। তাই ঐ দিন খেলা হয়েছিলো ২১ দশমিক ১ ওভার। তবে বৃষ্টির কারনে টেস্টের চতুর্থ ও পঞ্চম দিন বল মাঠেই গড়াতে পারেনি। তাই ম্যাচটি ড্র হয়।
চট্টগ্রামের পর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয় সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট। অবশ্য ঐ ম্যাচের প্রথম দিন বৃষ্টি কোন ঝামেলা করেনি। তাই ৮৮ দশমিক ১ ওভার খেলা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু ম্যাচের বাকী দিনগুলোতে আর মাঠেই বল গড়াতে দেয়নি বৃষ্টি। তাই এ ম্যাচটিও ড্র হয়। ফলে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ড্র’তেই শেষ হয়। তবে এবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ভালো করার স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ দল। আর দলের সাম্প্রতিক পারফরমেন্সই টাইগারদেরে সাহস জোগাচ্ছে শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ভালো করতে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ