শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ষষ্ঠীর দিনে চন্ডীপাঠে মুখর মন্ডপ এলাকা ॥ আজ মহাসপ্তমী

স্টাফ রিপোর্টার : আজ বুধবার শারদীয় দুর্গোৎসবের মহাসপ্তমী। গতকাল মঙ্গলবার সাড়ম্বরে অনুষ্ঠিত হয়েছে মহাষষ্ঠী পূজা। এর মধ্য দিয়েই কার্যত শুরু হয়েছে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। সকালে ষষ্ঠাদি কল্পারম্ভ এবং সন্ধ্যায় আমন্ত্রণ ও অধিবাস এবং ষষ্ঠী পূজা অনুষ্ঠিত হয়। সেই সঙ্গে ছিল পুষ্পাঞ্জলি, আরতি ও প্রসাদ বিতরণ।
এদিকে, আজ বিকেল ৪ টায় ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির এবং পৌনে ৫ টায় রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের মণ্ডপ পরিদর্শনে যাবেন প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ। এছাড়া আজ এবং দুর্গোৎসবের অনান্য দিন মন্ত্রীপরিষদের ও সংসদ সদস্যরা রাজধানীর বিভিন্ন মণ্ডপ পরিদর্শন করবেন বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।
বিশুদ্ধ পঞ্জিকা মতে, আগামীকাল বৃহস্পতিবার মহাঅষ্টমী ও কুমারী পূজা, পরদিন শুক্রবার মহানবমী বিহিত পূজা এবং শনিবার বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে পাঁচদিনের এ উৎসবের। এর আগে সোমবার সায়ংকালে দেবীর বোধন অনুষ্ঠিত হয়। হিন্দু বিশ্বাস মতে, জগতের মঙ্গল কামনায় এবার দেবীর আগমন নৌকায় চড়ে এবং বিদায় নেবেন ঘোড়ায় চড়ে।
গতকাল সকালে ৬ টা ৩০ মিনিটে কল্পারম্ভ এবং বিকাল ৪টায় বোধন আমন্ত্রণ ও অধিবাসের মধ্যদিয়ে উৎসবের প্রথম দিন ষষ্ঠী পূজা সম্পন্ন হয়। সকাল থেকে চন্ডিপাঠে মুখরিত ছিল সকল মন্ডপ এলাকা। ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির মেলাঙ্গনে ষষ্ঠী পূজা ছাড়াও সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয়েছে ভক্তিমূলক সঙ্গীতানুষ্ঠান। এদিন মহানগর পূজা কমিটির উদ্যেগে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে দু:স্থদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ করা হয়।
‘দুর্গা’ শব্দের অর্থ হলো ব্যূহ বা আবদ্ব স্থান। যা কিছু দুঃখ কষ্ট মানুষকে আবদ্ধ করে, যেমন বাধাবিঘ্ন, ভয় দুঃখ, শোক, জ্বালা, যন্ত্রণা এসব থেকে তিনি ভক্তকে রক্ষা করেন। শাস্ত্রকাররা দুর্গার নামে অন্য একটি অর্থ করেছেন। দুঃখের দ্বারা যাকে লাভ করা যায় তিনিই দুর্গা। দেবী দুঃখ দিয়ে মানুষের সহ্যক্ষমতা পরীক্ষা করেন। তখন মানুষ অস্থির না হয়ে তাকে ডাকলেই তিনি তার কষ্ট দূর করেন।
সারাদেশে এবার পূজামন্ডপের সংখ্যা ৩০ হাজার ৭৭টি। গত বছর এ সংখ্যা ছিল ২৯ হাজার ৩৯৫ টি। গতবারের চেয়েও বেশি ৬৮২টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। রাজধানী ঢাকায় এবার পুজো হচ্ছে ২৩১টি, গত বছর এই সংখ্যা ছিল ২২৯। এ বছর দুটি বেড়েছে। সবচাইতে বেশি পূজো হচ্ছে চট্টগ্রামে, ১ হাজার ৭শ’ ৬৭টি। এর পরে দিনাজপুরে ১ হাজার ২৪২টি। গোপালগঞ্জে পূজো হচ্ছে ১হাজার ১৭৫টি।
রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের প্রতিটি পূজামন্ডপের নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশ, আনসার, বিজিবি, র‌্যাবসহ অন্যান্য আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি প্রায় প্রতিটি মন্ডপে স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী দায়িত্ব পালন করছে।
আজ মহাসপ্তমীর দিন সকাল ৮টা ৫৮মিনিটের মধ্যে দুর্গদেবির নবপত্রিকা প্রবেশ ও স্থাপন এবং ষোড়শ উপচারে অর্থাৎ ষোলটি উপাদানে দেবীর পূজা সম্পন্ন হবে। উৎসবের দ্বিতীয় দিন সকালে ত্রিনয়নী দেবী দুর্গার চক্ষুদান করা হবে। সকালে দেবীকে আসন, বস্ত্র, নৈবেদ্য, স্নানীয়, পুষ্পমাল্য, চন্দন, ধূপ ও দীপ দিয়ে পূজা করবেন ভক্তরা। সপ্তমী পূজা উপলক্ষে সন্ধ্যায় বিভিন্ন মন্ডপে ভক্তিমূলক সংগীতানুষ্ঠান, রামায়ণ পালা, আরতিসহ নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনে গতকাল সকাল সাড়ে ৬টায় দেবীর ষষ্ঠ্যাদি কল্পারম্ভ শুরু হয়। সায়ংকালে (সন্ধ্যায়) অনুষ্ঠিত হয় দেবীর আমন্ত্রণ ও অধিবাস। আজ মহাসপ্তমীর পূজা শুরু হবে সকাল সাড়ে ৬টায়। নবপত্রিকা প্রবেশ ও স্থাপন এবং সপ্তমাদিকল্পারম্ভ। দুপুর ১২টায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, সন্ধ্যায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম রামকৃষ্ণ মঠ ও রামকৃষ্ণ মিশনের মণ্ডপ পরিদর্শন করবেন বলে জানা গেছে।
বিভিন্ন মণ্ডপে প্রতিমাগুলোকে নানা সাজে সজ্জিত করা হয়েছে। বিভিন্ন জায়গায় নির্মিত তোড়ন থেকে শুরু করে মণ্ডপ পর্যন্ত সাজানো হয়েছে নানা রঙের ঝালর বাতি দিয়ে। পূজাকে কেন্দ্র করে অনেক স্থানে মেলা বসছে। গতকাল মন্ডপগুলোতে বিকেল থেকে উৎসুক জনতা ও ভক্তবৃন্দের ভিড় দেখা গেছে। আজ থেকে ম-পগুলোতে আরো বেশি দর্শনার্থী আসবেন বলে আশা করছেন আয়োজকরা।
বরদেশ্বরী কালীমাতা মন্দির ও শ্মশান কমিটি, রমনা কালীমন্দির, বাড্ডার কালীমাতা দেবী মন্দির, সূত্রাপুরের রাম-সীতা মন্দির, আর এম দাস রোডের গৌতম মন্দির, শাঁখারীবাজারের প্রতিদ্বন্দ্বী পূজামন্ডপ, কে এম দাস লেনের ভোলানন্দগিরি আশ্রম ট্রাস্ট, সনাতন সমাজ কল্যাণ সঙ্ঘ, বৃহত্তর মিরপুর পূজা উদ্যাপন পরিষদ, কলাবাগান পূজামন্ডপ, বনানী পূজামন্ডপ, সংঘমিত্র পূজামন্ডপসহ রাজধানীর বিভিন্ন পূজা মন্ডপে প্রায় একই সময়ে ষষ্ঠী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিদিন পূজা শেষে অঞ্জলি, প্রসাদ বিতরণ ও সন্ধ্যায় ভোগ আরতি, ভক্তিমূলক সংগীতানুষ্ঠান, নাটক, অঞ্জলি, প্রসাদ বিতরণ ও সন্ধ্যায় ভোগ আরতি, আরতি প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ