বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

জামায়াত নেতা অধ্যাপক জুলহাস উদ্দিনের ইন্তিকাল

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা : ইসলামী আন্দোলনের নিবেদিতপ্রাণ, সদালাপী মিষ্টভাষী, দ্বীনের একজন প্রকৃত দা’য়ী ভূঞাপুর উপজেলা জামায়াতের সাবেক নেতা, সকলের প্রিয় শিক্ষক গোপালপুর উপজেলার হেমনগর ডিগ্রি কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিষয়ের সাবেক সহকারী অধ্যাপক মো. জুলহাস উদ্দিন গতকাল বুধবার ভূঞাপুর উপজেলা সদরের বাসায় ইন্তিকাল করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। অধ্যাপক জুলহাস উদ্দিন ২০১২ সালে চাকরি থেকে অবসর গ্রহণ করেন। তিনি দীর্ঘদিন প্যারালাইস্ট হয়ে অসুস্থতায় ভুগছিলেন। পরে মরণব্যাধি ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে মরহুমের বয়স হয়েছিল ৬৫। ভূঞাপুর উপজেলার অর্জুনা ইউনিয়নের মৃত মহিরউদ্দিনের ছেলে জুলহাস উদ্দিন জীবদ্দশায় ১ ছেলে ও ১ মেয়ে রেখে গেছেন। গতকাল বুধবার মরহুমের প্রথম জানাযা নামায ভূঞাপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে, দ্বিতীয় জানাযা নামায হেমনগর ডিগ্রি কলেজ মাঠে এবং শেষ জানাযা নামায তার নিজ গ্রাম বলরামপুরের বলরামপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা নামায শেষে গ্রামের কবর স্থানেই তাকে দাফন করা হয়। মরহুমের জানাযা নামাযে টাঙ্গাইল জেলা জামায়াতের আমীর আহছান হাবিব মাসুদ, জেলা নায়েবে আমীর অধ্যাপক খন্দকার আব্দুর রাজ্জাক, জেলা সেক্রেটারি হুমায়ুন কবীর, ভূঞাপুর উপজেলা আমীর মাওলানা আব্দুস ছালামসহ জামায়াতের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া তার সহকর্মীবৃন্দ, ছাত্রবৃন্দ, শুভাকাক্সক্ষী আত্মীয়-স্বজনসহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

অধ্যাপক জুলহাস উদ্দিনের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন জেলা জামায়াত ও ভূঞাপুর উপজেলা জামায়াত। জেলা জামায়াতের পক্ষ থেকে জেলা আমীর আহছান হাবিব মাসুদ, জেলা নায়েব আমীর অধ্যাপক খন্দকার আব্দুর রাজ্জাক, জেলা সেক্রেটারি হুমায়ুন কবীর এবং ভূঞাপুর উপজেলা জামায়াতের পক্ষ থেকে উপজেলা আমীর মাওলানা আব্দুস ছালাম ও উপজেলা সেক্রেটারি আব্দুল্লাহ আল মামুন শোক বিবৃতি দিয়েছেন। বিৃবতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন অধ্যাপক জুলহাস উদ্দিন ছিলেন উত্তম দা’য়ীর এক প্রকৃত উদাহরণ। আমরা তার জন্য জান্নাত কামনা করছি, সেই সাথে শোক সন্তপ্ত পরিবারের উপর আল্লাহর সাহায্য এবং ধৈর্য কামনা করছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ