বৃহস্পতিবার ২৬ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

কুরবানির জন্য গরু প্রস্তুত রয়েছে মিরসরাইয়ের নাহার ডেইরি ফার্মে

নাহার ডেইরী ফার্মে কোরবানী উপলক্ষে বিক্রির জন্য প্রস্তুত রাখা বিভিন্ন সাইজের গরু -এম মাঈন উদ্দিন, মিরসরাই

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা: পবিত্র ঈদুল আযহাকে ঘিরে গরু প্রস্তুত রয়েছে নাহার  ডেইরী ফার্মে। শতাধিক গরু এবার বাজারে বিক্রির জন্য প্রস্তুত রয়েছে এই প্রতিষ্ঠানে। মিরসরাইয়ের সোনাপাহাড় নাহার ডেইরী ফার্ম, রাজধানী ঢাকায় ও চট্টগ্রাম শহরের পতেঙ্গা এলাকায় মোল্লা ডেইরী ফার্মে বিক্রির জন্য এসব গরু রাখা হয়েছে।
জানা গেছে, নাহার ডেইরী ফার্মে সম্পন্ন আধুনিক প্রযুক্তিতে গরু পালন করা হয়। গরু মোটাতাজা করণে কোন ধরনের ক্ষতিকর ওষুধ আর ইনজেকশন প্রয়োগ করা হয়না। নিজস্ব জমিতে চাষকৃত ঘাস ও ফিড খাওয়ানো হয় এসব গরুকে। তাই ক্রেতাদের মধ্যে নাহার ডেইরী ফার্মের গরুর বেশ কদর রয়েছে। দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে কোরবানীর জন্য গরু কিনে নিয়ে যাচ্ছে ক্রেতারা। গত বছর ছোট পরিসরে ২০-১৫ টি গরু কোরবানীর ঈদে বিক্রি করলেও এবার বিক্রির জন্য প্রস্তুত রয়েছে ১০৫টি বিভিন্ন সাইজের গরু।
নাহার এগ্রো গ্রুপের জিএম (প্রোডাক্শন) মনোজ কুমার চোহান জানান, এই বছর কোরবানীর জন্য আমাদের ফার্মে ১০৫ টি ছোট বড় গরু বিক্রির জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ১ লাখ ২০ হাজার টাকা থেকে ৪ লাখ মুল্যের গরু রয়েছে। ইতিমধ্যে অর্ধশত গরু বিক্রি হয়েছে। মিরসরাইয়ের মস্তাননগর সোনাপাহাড় ডেইরী ফার্ম, পতেঙ্গা এলাকার মোল্লা ডেইরী ফার্ম ও ঢাকায় গরু গুলো বিক্রির জন্য রাখা হয়েছে।
তিনি আরো, আমরা গরু মোটাতাজা করণে কোন ধরনের ক্ষতিকারক মেডিসিন ও খাদ্য ব্যবহার করিনা। নিজেদের চাষ করা নেপিয়ার ঘাষ ও ফিড খাওয়ানো হয়। তাই ক্রেতাদের মধ্যে নাহার ডেইরী ফার্মেও গরুর চাহিদা রয়েছে। আগামী বছর আরো বেশি কোরবানীর জন্য গরু প্রস্তুত করা হবে বলে জানান তিনি।
নাহার এগ্রো গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাকিবুর রহমান টুটুল জানান, শুধু ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে নয় সেবার মানসিকতায় ফার্ম থেকে কোরবানীর জন্য গরু বাজারজাত করছি।
জানা গেছে, ১৯৮৬ সালে মাত্র একটি গরু দিয়ে যাত্রা শুরু করেন ১৪ বছর বয়সের কিশোর রাকিবুর রহমান টুটুল। বর্তমানে তার ১১৭০টি গরু রয়েছে (কোরবানী উপলক্ষে বিক্রির জন্য ১০৫টি ব্যতিত)। গড়ে তুলেছেন নাহার এগ্রো গ্রুপের নাহার ডেইরী ফার্ম।
প্রতিদিন গড়ে ৫হাজার ২শ লিটার দুধ বাজারজাত করেন তিনি। তার প্রতিষ্ঠানে ইন্টার্নি করেন চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ