শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

শিমুলিয়া-কাঠলবারি নৌ-রুটে যাত্রীবাহী লঞ্চ ও গরুভর্তি ট্রলারের সংঘর্ষে আহত ১

লৌহজং (মুন্সিগঞ্জ) সংবাদদাতা : মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ের শিমুলিয়া-কাঠালবারি নৌ-রুটের পদ্মায় গত ২৬ আগস্ট শনিবার রাতে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চের সাথে গরু ভর্তি  একটি ট্রলারের সংঘর্ষে প্রশেনজিত (৩০) নামের এক গরুর ব্যাপারি আহত হয়েছে।  মাওয়া নৌ-পুলিশ ফাড়ির টু আইসি এস, আই,  মো. জামশেদ আলী জানান শনিবার সন্ধ্যা সারে ৭টার দিকে শিমুলিয়া ঘাট থেকে কয়েকটি পরিবহনের যাত্রী নিয়ে মেসার্স নিথি নিধি নেভিগেশন কো: (এম.১৮০৭৫) এর এম, ভি হানজালা লঞ্চটি কাঠালবারির উদ্দ্যেশে যাচ্ছিলো। এমন সময়ে লঞ্চটি পদ্মার সরু চ্যানেলের কাছে আসলে অপরদিক থেকে আসা একটি গরুবোঝাই ট্রলারের সাথে সংঘর্ষ হয়। এ সময়ে ট্রলারে থাকা গরুর ব্যাপারি প্রশেনজিত মন্ডল (৩০) আহত হয়। আহত প্রশেনজিত মন্ডল জানান ৪১টি গরু নিয়ে আমরা মাদারিপুরের রাজৈর থেকে টঙ্গীবাড়ীর বালিগাঁও হাটে যাওয়ার পথে পদ্মায় এ দুঘর্টনা ঘটে। তিনি এ সময়ে বলেন আমরা আমাদের সাইড দিয়ে যাচ্ছিলাম কিন্ত লঞ্চটি আমাদের ট্রলারে এসে মেরে দেয়।  এ সময়ে আমাদের ৩টি গরু পদ্মায় পরে গেলে নৌ-পুলিশের সহযোগিতায় তা উদ্ধার করি। অপরদিকে রাতের বেলায় কাঠালবারি ঘাটে গিয়ে দেখা যায় এম.ভি হানজালা নামের লঞ্চটি ঘাটে বাধা রয়েছে কিন্ত কোন লোক নেই।  লঞ্চের সামনে মাস্টার মো.সালাম সনদ নং৭৩৭ ও ড্রাইভার মো.সহিদ সনদ-১৩০-এর নাম লেখা রয়েছে। এ সময়ে অন্য লঞ্চের স্টাফদের থেকে জানা গেল ঐ দুজন আনেক দিন আগেই এ লঞ্চ  থেকে নেমে গেছেন। তবে বর্তমান মাস্টার ও সারেংয়ের বৈধ কোনো সনদ আছে কিনা তা তাদের জানা নেই। এ ব্যাপারে বি.আই.ডব্লিউ.টি.এর নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যাবস্থাপনা বিভাগের টি.আই মো. সোলাইমান জানান বর্তমানে সারেং ও ড্রাইভার যারা রয়েছে তাদের নাম জানা নেই তবে তাদের সনদ রয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ