বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

খুলনায় একাধকি পয়ন্টে দয়িে জোয়াররে পানি প্রবশেরে আশঙ্কা

# অমাবশ্যায় বাড়তে পারে নদ-নদীর পানি
# ঝুঁকতিে খুলনার নম্নিাঞ্চলরে বড়েবিাঁধ
খুলনা অফসি: নদীতে বপিদ সীমার ওপরে পানরি বৃদ্ধরি চাপে ঝুঁকতিে খুলনার নম্নিাঞ্চলরে বড়েবিাঁধ। গতকাল থকেে শুরু হয়ছেে অমাবশ্যা, ফলে তনি দনি অতরিক্তি পানরি চাপে আশঙ্কায় দনিাতপিাত করছে উপকূলবাসী। গতকাল থকেে খুলনাঞ্চলরে দশ নদ-নদীতে স্বাভাবকিরে চয়েে জোয়াররে পানি বৃদ্ধি পয়েছে।ে ফলে মহানগরীর শপিইর্য়াড, লবণচরা মতয়িাখাল,ি মংলা ও বাগরেহাট শহর পানতিে প্লাবতি হওয়ার আশঙ্কায় রয়ছেে এলাকাবাসী। উপকূলীয় এলাকা বটয়িাঘাটা, দাকোপ, পাইকগাছা ও কয়রা উপজলোর পানি উন্নয়ন র্বোডরে বাঁধ ঝুঁকতিে রয়ছে।ে
পাউবো’র হাইড্রোলজি উপ-বভিাগরে উপ-বভিাগীয় প্রকৌশলী আব্দুল আলমি খান বলনে, রোববার রূপসা নদীতে পানরি র্সবােচ্চ উচ্চতা ছলি ৩ দশমকি ৪১ মটিার, শনবিার ছলি ৩ দশমকি ২৩ মটিার। চলতি বছর পানরি র্সবােচ্চ উচ্চতা ছলি ৩ দশমকি ৪৩ মটিার। চলতি আমাবশ্যায় এ রর্কেড ভাঙব।ে সাধারণত ২ দশমকি ৫৯ মটিারকে বপিদসীমা ধরা হয়। গত তনি সপ্তাহ ধরে রূপসা নদীর পানি বপিদসীমার ওপর দয়িে প্রবাহতি হচ্ছ।ে প্রতি র্বষা মওসুমইে এটা হয়ে থাক।ে তবে এ সপ্তাহে পানরি উচ্চতা বগিত বছরগুলোর চাইতে বশে।ি তনিি জানান, সোমবার থকেে পানরি উচ্চতা দড়ে থকেে দুই মটিার র্পযন্ত বড়েছে।ে উপকূলীয় বাঁধগুলোর গড় উচ্চতা সাড়ে তনি মটিার হওয়ায় ওই সময় জোয়ারে নম্নিাঞ্চল প্লাবতি হওয়ার আশঙ্কা রয়ছে।ে শহররে রূপসা স্ট্যান্ড অতরিক্তি জোয়াররে পানি প্রবশে করতে পার,ে তবে সটো চার ঘন্টার বশেি থাকবে না। ভাটায় আবার পানি নমেে যাব।ে এছাড়া উপকূলরে নদীগুলোতে পানি বাড়বে বলে জানান তনি।ি রূপসা নদীতে পানরি স্বাভাবকি উচ্চতা ২ দশমকি ৫০ মটিার। নদীর ঢউেয়রে গড় উচ্চতাকে শূন্য ধরে নদীর পানি পরমিাপ করা হয় পাউবো। বপিদসীমার ওই মাপ পাকস্তিান আমলরে, র্বতমানে বড়েবিাঁধ তখনকার চয়েে অনকে উঁচু। সে জন্য দুশ্চন্তিার কছিু নইে বলে তনিি জানান।
পাউবো’র তথ্য অনুযায়ী, রূপসা, ভরৈব, পশুর, চালনা ও মংলা নদীতে পানরি চাপ বড়েছে।ে এর মধ্যে রূপসার নদীর পানি খুলনা জনোরলে হাসপাতালরে সামনে ও মংলা নদীতে পানরি উচ্চতা পরমিাপ করা হয়। তবে মংলার মটিারগজে দু’টি র্দীঘদনি বকিল থাকায় সুন্দরবন উপকূলীয় অঞ্চলরে নদীর পানি বৃদ্ধরি পরমিাণ পরমিাপ করা সম্ভব হচ্ছে না। এবার অমাবশ্যার জোয়ারে পানরি চাপ বাড়বে এমনি আশঙ্কা উপকুলবাসীর।
পাউবো’র হাইড্রোলজি উপ-বভিাগ সুত্র জানায়, রূপসা নদীর তনিটি পয়ন্টেে পানরি উচ্চতা পরমিাপ করা হয়। খুলনা পয়ন্টেরে (সদর হাসপাতাল ঘাট) হসিাব অনুযায়ী গত সপ্তাহে ৩ দশমকি ৪৩ মটিার উচ্চতায় প্রবাহতি হওয়ায় বাঁধ উপচে পানি শহর ও গ্রামে পানি প্রবশে করছে।ে নদীর পানরি উচ্চতার এই রর্কেডও এ সপ্তাহে অতক্রিম করবে বলে জানান সূত্রট।ি
সূত্র জানায়, পাউবো’র খুলনা-১-এর অধীনে ৩৬৫ দশমকি ২৪ কলিোমটিার বড়েবিাঁধরে ১০৯ কলিোমটিার সংস্কাররে অভাবে জরার্জীণ। পাউবো খুলনা-২ এর অধীনে ৫১০ কলিোমটিার বড়েবিাঁধরে মধ্যে ৪৫ কলিোমটিার বড়েবিাঁধ ঝুঁকপর্িূণ। বাগরেহাটরে ৩১৮ কলিোমটিার বড়েবিাঁধরে মধ্যে প্রায় ৬০ কলিোমটিার অধকি ঝুঁকপর্িূণ। এছাড়া প্রায় ৪০ কলিোমটিার বড়েবিাঁধ নচিু হয়ে গছে।ে ভরা জোয়াররে সময় বাঁধরে ওপর দয়িে পানি প্রবাহতি হয়। সাতক্ষীরা পাউবো’র ৭৯৯ দশমকি ১০ কলিোমটিার বড়েবিাঁধরে মধ্যে ২১০ কলিোমটিার বড়েবিাঁধই ঝুঁকপর্িূণ। যকেোন সময়ে বড়েবিাঁধ ভঙেে প্লাবতি হতে পারে বশিাল এলাকা। দখো দতিে পারে মারাত্মক বর্পিযয়।
বন্যা র্পুবাভাস ও সর্তকীকরণ কন্দ্রেরে নর্বিাহী প্রকৌশলী মো. সাজ্জাদ হোসনেরে দয়ো তথ্য মত,ে রোববার সকাল ৯টায় জোয়াররে সময় পশুর নদীর পানি এক দশমকি ২৫ মলিমিটিার উচ্চতা ছলি। মঙ্গলবাররে অমাবশ্যার প্রভাব  সোমবার পড়তে শুরু করব।ে ফলে ভরৈব, রূপসা, শবিসা, পশুর, কপোতাক্ষ, ইছামতী, কালন্দি,ি শাকবাড়য়িা, নবগঙ্গা নদীর পানি জোয়াররে সময় বৃদ্ধি পাব। সুন্দরবনরে করমজল এলাকায় স্বাভাবকিরে চয়েে পানি বশেি হব।
দক্ষণি-পশ্চমিাঞ্চলরে পানি পরমিাপ বভিাগরে নর্বিাহী প্রকৌশলী রাশদেুল কাইয়ূমরে কাছে জানতে চাইলে বলনে, সোমবার দুপুর থকেে অমাবশ্যার প্রভাব পড়ব,ে জোয়াররে উচ্চতা বড় হব।ে এসব নদ-নদীতে এক দশমকি পাঁচ মটিাররে পরর্বিতে সোম, মঙ্গল ও বুধবার এক দশমকি ৩৫ মলিমিটিার বাড়তে পার।ে নম্নিাঞ্চল প্লাবতি হবে বলে তনিি র্পূবাভাস দয়িছেনে।
সাতক্ষীরা পাউবো’র আওতাধীন খুলনা জলোর কয়রার গোলখালী গ্রামরে মো. তসলমি মোল্লা বলনে, ‘বসবাস করি খুলনা জলোর মধ্য,ে কন্তিু আমাদরে বড়েবিাঁধ সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন র্বোডরে আওতায়। তারা আমাদরে বড়েবিাঁধ সংস্কারে র্কাযকর পদক্ষপে নয়ে না। র্দীঘদনি জরার্জীণ ৫ কলিোমটিার বড়েবিাঁধ এলাকাবাসী স্বচ্ছোশ্রমে একটু সংস্কার করছে। যে কোন মুর্হূতে নদীর্গভে বলিীন হয়ে যাবে আমাদরে বশিাল এলাকা। মানচত্রি থকেে মুছে যতেে পার!’
পাউবো খুলনা-২ এর নর্বিাহী প্রকৌশলী পীযুষ কৃষ্ণ কুন্ডু বলনে, জলো উন্নয়ন সমন্বয় কমটিরি পর পর কয়কেটি সভায় কয়রার ওই অংশটা সাতক্ষীরা পাউবো থকেে খুলনার মধ্যে নয়িে আসার বষিয়ে আলোচনা হচ্ছ। জলো প্রশাসক উদ্যোগ নয়িছেনে। পাউবো খুলনা-২ এর মধ্যে ৩১নং পোল্ডারটা ঝুঁকপর্িূণ; এছাড়া ৩২নং পোল্ডারে কাজ চলছ। র্অথ অভাবে বড়েবিাঁধ সংস্কাররে যথাযথ ব্যবস্থা নয়ো সম্ভব হয়ন।
কয়রার দক্ষণি বদেকাশি ইউনয়িনরে বড়েবিাঁধ প্রসঙ্গে অতরিক্তি জলো প্রশাসক (র্সাবকি) মো. জাহাঙ্গীর হোসনে বলনে, সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন র্বোডরে আওতা থকেে কয়রা উপজলোর অংশটা খুলনার (পাউবো’র) মধ্যে আনার প্রক্রয়িা চলছ।
উল্লখ্যে, ২০০৯ সালরে ২৫ মে আইলা নামক র্দুযােগে খুলনার বটয়িাঘাটা, দাকোপ, পাইকগাছা ও কয়রা উপজলো বধ্বিস্ত হয়। এতে ৬৫ জন নারী-পুরুষরে মৃত্যু হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ