মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

উত্তরের ৮ জেলার যোগাযোগ হুমকীর মুখে

বগুড়া অফিস : বগুড়া-রংপুর মহাসড়কে করতোয়া নদীর উপর মহাস্থান ব্রীজের নিচের অংশে ফাটল ধরে ব্রীজ দেবে যাওয়ায় উত্তরাঞ্চলের ৮ জেলার সাথে রাজধানী ঢাকার যোগাযোগ হুমকীর মুখে পড়েছে। ইতিমধ্যে সড়ক বিভাগ ব্রীজটিকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করে ব্রীজের উপর দিয়ে ভারি যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে ভারী যানবাহনগুলো ১০ কিলোমিটার ঘুরে শিবগঞ্জ উপজেলা সদর হয়ে মোকামতলায় গিয়ে মহাসড়কে উঠছে। সরু সড়ক দিয়ে ভারি যানবাহন চলাচল করায় যানজটের পাশাপাশি রাস্তাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। করতোয়া নদীতে ব্রীজের নীচ থেকে অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলনের কারণে ব্রীজের পিলার দেবে ফাটল ধরেছে বলে সংশ্নিষ্টরা দাবি করেছেন।

বুধবার সন্ধ্যার পর স্থানীয় লোকজন ব্রীজের মাঝখানে দেবে যাওয়া দেখে বিষয়টি পুলিশ ও সড়ক বিভাগকে জানায়। রাতেই পুলিশ ও সড়ক বিভাগের লোকজন ব্রীজটি পরিদর্শন করে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করার লক্ষ্যে লাল পতাকা উড়িয়ে দেয়। এছাড়াও ব্রীজের উভয় প্রান্তে ভারি যানবাহন চলাচল বন্ধ উল্লেখ করে সাইনবোর্ড দেয়া হয়। দুর্ঘটনা এড়াতে বুধবার রাত থেকেই মহাসড়কের মোকামতলা এলাকায় উত্তরবঙ্গ থেকে আসা ভারি যানবাহনগুলো শিবগঞ্জের দিকে মহাস্থান-আমতলী আঞ্চলিক সড়কে ঘুরিয়ে দেয়া হয়। পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের দিকে য্ওায়া ভারি যানবাহন গুলোকেও মহাস্থান বন্দর থেকে নিয়ন্ত্রণ করে বিকল্প পথে ঘুরিয়ে দেয়া হচ্ছে। শুধুমাত্র যাত্রীবাহী বাস এবং হাল্কা যানবাহন ব্রীজের উপর দিয়ে চলাচল করছে।

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ব্রীজের তলদেশে গার্ডারে ফাটল ধরেছে এবং ব্রীজের উপরিভাগে মাঝামাঝি ৬ ইঞ্চি দেবে গেছে। স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ বালু ব্যবসায়িরা ব্রীজের নীচে পিলার গুলোর কাছ থেকে শ্যালো মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করে আসছে। একারণেই পিলার দেবে গিয়ে ব্রীজে ফাটল দেখা দিয়েছে। তারা আরো জানান, সরু এই ব্রীজটি প্রশস্ত না করার কারণে মাঝে মাঝেই দুর্ঘটনা ঘটে। কিছুদিন আগে রেলিং ভেঙ্গে যাওয়ায় ব্রীজটি ঝুকিপূর্ণ হয়ে উঠেছিল। পরে রেলিং মেরামত করা হলেও ব্রীজের আর কোন সংস্কার করা হয়নি। ব্রীজটি সরু হওয়ার কারনে গত দেড় বছরে দুর্ঘটনায় ৫ জনের প্রাণহানি ও কমপক্ষে ৫০ জন আহত হয়েছে। এদিকে, মহাসড়কে গুরুত্বপূর্ণ এই ব্রীজটিতে ফাটল দেখা দেয়ায় মহাস্থান-আমতলী আঞ্চলিক সড়কে চাপ বেড়েছে। শিবগঞ্জ উপজেলা সদর হয়ে ১০ কিলোমিটার এই আঞ্চলিক সড়ক ঘুরে ভারী যানবাহন গুলো চলাচল করতে গিয়ে যানজটের পাশপাশি সড়কটিও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

বগুড়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামন জানান, সড়ক বিভাগের প্রকৌশলীগণ ব্রীজটি পরিদর্শন করেছেন। ব্রীজের একটি গার্ডারে ফাটল দেখা দিয়েছে। নদী থেকে বালু উত্তোলনের কারণেই পিলার দেবে গিয়ে এই ফাটল দেখা দিয়েছে বলে তিনি জানান। তিনি আরো জানান, ঢাকা থেকে দুই বিশেষজ্ঞ বগুড়ায় আসছেন, তারা পরিদর্শন করে সিদ্ধান্ত দেয়ার পর পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ