শুক্রবার ২৭ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

কোম্পানীগঞ্জে আ’লীগ ও বিএনপির পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) সংবাদদাতা: নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সাবেক উপরাষ্ট্রপতি ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদের বক্তব্যের প্রতিবাদে বিএনপি ও আ’লীগ পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছে।
বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দলে পৌরসভা হল রুমে মিটিং করতে না পেরে বাংলাদেশে আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপির বিরুদ্ধে ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়া অপ-প্রচার করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদ। মওদুদ আহমদ গত শুক্রবার সকালে তার নিজ বাসভবনে বলেন, তার নির্বাচনী এলাকায় বিএনপি কে মিছিল, মিটিং করতে দেওয়া হয় না। 
গতকাল শনিবার দুপুর ৩টায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খান। তিনি বলেন, ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত আমাদের নেতাকর্মীরা বাড়িঘর ছাড়া ছিল। তখন বিএনপির আমলে গরু, ছাগল, পুকুরের মাছ লুট করে নিয়ে যায়। আ’লীগের সিনিয়র নেতাদের কে উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় মারধর করে। এক পর্যায়ে ২০০৮ সালে আ’লীগ নির্বাচিত হওয়ার পর সকল রাজনৈতিক দলের নেতাদের কে নিয়ে বৈঠক করে কোম্পানীগঞ্জে সহাব্যস্থানের রাজনীতি সৃষ্টি করি।
এখন মনে হচ্ছে সেকথা তারা ভুলে গেছে। বিএনপির নেতাকর্মীদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে কোম্পানীগঞ্জে আবার পুনরায় রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টি করার পায়তারা করিতেছে তারা। তাদের এ ষড়যন্ত্রে তীব্র নিন্দা জানাই। আমাদের নেতা বাংলাদেশ আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তখন বলেছিলেন কেউ অধম হলে আমরা উত্তম হব না কেন? কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খানের সভাপতিত্বে আ’লীগের দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, রফিকুল আনোয়ার চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক, এ্যাডভোকেট শহিদুর রহমান তুহিন প্রমুখ।
অপর দিকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেন উপজেলা বিএনপি। শনিবার বিকেলে ৪টায় ফুড ফেয়ার চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবদুল হাই সেলিমের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, আমরা প্রশাসন ও মেয়রের অনুমতি পেলেও রাতের অন্ধকারে প্রশাসনের পক্ষ থেকে তা নিষেধ করা হয়। তিনি আরো বলেন, মেয়র আমাদের কে পৌরসভার হলে মিটিং করার অনুমতি দিয়েছিলেন। আমাদের দলে কোন কোন্দল নেই। যারা বলে কোন্দল আছে তাদের কথাগুলো আমাদের সন্দেহ হয়। মওদুদ আহমদের বক্তব্যের কারণে আ’লীগের যে সংবাদ সম্মেলন যে কথাটি বলেছেন আমাদের দলে কোন্দলের কারণে প্রশাসন আমাদের কে অনুমতি দেয় নি একথাটি সঠিক নয় বলে মনে করি না। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলম সিকদার, পৌরসভা বিএনপির সভাপতি কামাল উদ্দিন চৌধুরী, সম্পাদক মাহমুদুর রহমান রিপন, যুবদলের সভাপতি আবদুল মতিন লিটন, জাহেদুর রহমান রাজন, আতোয়ার হোসেন পাভেল প্রমুখ। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ