মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

শিক্ষক-শিক্ষার্থী হাতাহাতি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটে ভিসি প্যানেল নির্বাচনে তিনজনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছেন বর্তমান ভিসি আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বর্তমান কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক কামাল উদ্দীন ও বিজ্ঞান অনুষদের সাবেক ডিন মো. আব্দুল আজিজ।

গতকাল শনিবার ভিসি নির্বাচন করতে অর্ধেক সদস্য নিয়ে সিনেটের বিশেষ অধিবেশন বসে। অধিবেশন শেষে প্যানেল বিষয়ে ভিসি আরেফিন সিদ্দিক সাংবাদিকদের এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন। সিনেট সভায় নীল দলের ৩৩ জন শিক্ষক-প্রতিনিধিসহ মোট ৪৮ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। শিক্ষক-প্রতিনিধি ছাড়া অন্যরা হলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, অর্থ মন্ত্রণালয় ও আচার্যের প্রতিনিধি ও সংসদ সদস্য। বিএনপি, জামায়াত-সমর্থিত শিক্ষকদের বর্জন, আওয়ামী লীগ-সমর্থিত শিক্ষকদের একটি অংশের বিরোধিতা ও ডাকসু নির্বাচন ছাড়া ভিসি নির্বাচন না করতে শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদের মুখে এই অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। আগামী ২৪ আগস্ট আরেফিন সিদ্দিকের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে এই তিনজনের মধ্য থেকে নতুন ভিসিকে বেছে নেবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটে ভিসি প্যানেল নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে হাতাহাতি ও পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। বেলা সাড়ে তিনটার দিকে শিক্ষার্থীরা সিনেট ভবনের ফটকে জড়ো হন। তারা ডাকসুর নির্বাচনের দাবিতে শ্লোগান দিতে থাকেন। বিকেল পৌনে চারটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মল চত্বরের পাশের ফটক ভেঙে শিক্ষার্থীরা ভেতরে ঢুকে যান। 

ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক এম আমজাদ আলী, সহকারী প্রক্টর রবিউল ইসলামসহ কয়েকজন শিক্ষক ও কর্মকর্তারা ফটকের ভেতরে অবস্থান করছিলেন। তারা শিক্ষার্থীদের পথরোধ করেন। এ সময় দুপক্ষের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। 

বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনায় এক শিক্ষক আহত হয়েছেন। আহত শিক্ষকের নাম রাকিবুল হাসান। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) বিভাগের প্রভাষক। শিক্ষকের বাম হাতের একটি আঙুল ভেঙে গেছে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এ এম আমজাদ জানিয়েছেন। তিনি জানান, বিকেলে সিনেট অধিবেশনের বিরোধিতা করে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সদস্যরা যখন সিনেট ভবনের ফটক ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করতে যান, তখন তিনি ও কয়েকজন শিক্ষক তাদের বাধা দেন। এ সময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শিক্ষকদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত রাকিবুল হাসানের বাম হাতের একটি আঙুল ভেঙে যায়। এখন তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ এম আমজাদ বলেন, শিক্ষার্থীরা একটি গণতান্ত্রিক দাবিতে আন্দোলন করায় তাতে বাধা দেয়া হয়নি। কিন্তু তারা যে শিক্ষকদের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন সেটিও ঠিক হয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ