বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

রাজাপুরে দু’সপ্তাহে হত্যা, ধর্ষণ ও নির্যাতনের শিকার চার শিশু

ঝালকাঠি সংবাদদাতা: ঝালকাঠির রাজাপুরে শিশুর প্রতি সহিংসতা আশংকাজনক হারে বেড়ে গেছে। গত দু’সপ্তাহে সহিংসতার চারটি ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। এগুলোর একটি হত্যা, একটি ধর্ষণ এবং অপর দুটি শারীরিক নির্যাতনের ঘটনা। একটি ঘটনায় পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করলেও সে জামিনে রয়েছে।
অনুসন্ধানে জানাগেছে, ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলায় গত দু’সপ্তাহে হত্যা, ধর্ষন ও নির্যাতনের শিকার হয়েছে চার শিশু। এদের মধ্যে একটি মেয়ে এবং তিনটি ছেলে শিশু রয়েছে। ১৬ জুলাই উত্তর তারাবুনিয়া গ্রামের ৯ বছরের শিশু ৩য় শ্রেণির ছাত্র সগীরকে কুমড়া চুরির অপবাদ দিয়ে মারধর করে খালে ফেলে দেয়ার চেষ্টা করা হয়। আতঙ্কে শিশুটি পায়খানা করে দেয়। সে বর্তমানে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ১৪ জুলাই উপজেলার গালুয়া দুর্গাপুর  গ্রামের ৯ বছরের শিশু চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র রাকিব হাওলাদার এর মরদেহ বাড়ী পাশের একটি মুরগীর খামারের পাশ থেকে উদ্ধার করা হয়। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন এবং ঘাড় ভাঙ্গা ছিল। একই দিন সাতুরিয়া গ্রামের ৫ম শ্রেণির এক ছত্রীকে ধর্ষণে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর আগে গত ৩রা জুলাই আরুয়া সোনারগাঁও গ্রামের  ১২ বছরের শিশু রাজু হাওলাদারকে  টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে হাত-পা ও চোখ বেঁধে উল্টো করে ঝুলিয়ে নির্মম ভাবে নির্যাতন এবং হাতে আগুনের স্যাকা দেয়া হয়। এসব ঘটনায় থানয় মামলা হলেও ৩ জুলাই এর ঘটনায় পুলিশ তিন অভিযুক্তর মধ্যে এক জনকে গ্রেফতার করলেও সে আদালত থেকে জামিনে রয়েছে। এ ছাড়া আর কেউ গ্রেফতার হয়নি। নির্যাতিত শিশুদের অভিভাবকরা দোষিদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।
সহকারী পুলিশ সুপার, (রাজাপুর-কাঠালিয়া সার্কেল) মোজাম্মেল হোসেন রেজা জানান, পুলিশ এসব ঘটনায় অভিযোগ পেয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।  দোষিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ