বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ইসরাইলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ফিলিস্তিনী আলেমদের আহ্বান

২৪ জুলাই, মিডল ইস্ট আই : জেরুজালেমের ইসরাইলী সেনাদের অবরুদ্ধ করা রাস্তায় নামাজ আদায় করছে ফিলিস্তিনিরা। প্রতিদিনই সেখানে ইসরাইলী সেনা ও ফিলিস্তিনিদের সাথে সংঘর্ষ হচ্ছে
ফিলিস্তিনের বিশিষ্ট আলেমরা ইসলামের পবিত্র স্থাপনাগুলোর বিরুদ্ধে ইসরাইলের সহিংস আচরণের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিশ্ব সমাজের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
তারা একইসাথে মসজিদুল আকসার প্রবেশপথে মেটাল ডিটেক্টর বসানোর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন এবং ফিলিস্তিনিদের তেল আবিব বিরোধী প্রতিরোধ সংগ্রামের প্রশংসা করেছেন। ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর নির্দেশে গত ১৪ জুলাই আল-আকসা মসজিদের প্রবেশপথ বন্ধ করে দেয় সেনারা। পরে ফিলিস্তিনিদের তীব্র প্রতিবাদের মুখে মসজিদের দরজা খুলে দিলেও সেখানে মেটাল ডিটেক্টর স্থাপন করে ইসরাইলী নিরাপত্তা বাহিনী। বিশ্বের বিভিন্ন মুসলিম দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা তেল আবিবের এই বিদ্বেষী পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়েছে।
আল-আকসা মসজিদে প্রবেশের ওপর নতুন করে প্রতিবন্ধকতা আরোপ করায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে আরব লীগ বলেছে, তেল আবিব সরকার এই স্পর্শকাতর পবিত্র স্থাপনায় আগুন নিয়ে খেলছে। আরব লীগের মহাসচিব আহমেদ আবুল গেইত এক বিবৃতিতে বলেছেন, জেরুজালেম আল-কুদস হচ্ছে মুসলমানদের রেড লাইন। কোনো আরব বা মুসলিম নাগরিক এই নগরীর কোনো পবিত্র স্থাপনায় ইসরাইলী সীমা লঙ্ঘন মেনে নেবে না। তিনি ইসরাইলের বিরুদ্ধে ‘হঠকারিতা’র অভিযোগ এনে বলেন, আল-আকসা মসজিদে নতুন করে যে সীমাবদ্ধতা আরোপ করা হয়েছে তার ফলে আরব ও মুসলিম বিশ্বের সাথে তেল আবিবের বড় ধরনের সঙ্কট তৈরি হতে পারে। সম্প্রতি ইসরাইল পূর্ব জেরুজালেম আল-কুদসে অবস্থিত আল-আকসা মসজিদের প্রবেশপথে মেটাল ডিকেক্টর ও নিরাপত্তা ক্যামেরা স্থাপন করার প্রতিবাদে তীব্র ক্ষোভে ফেটে পড়েছে ফিলিস্তিনী জনগণ। ইসরাইলী সেনারা শক্ত হাতে ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভ দমন করছে। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত ইসরাইলী সেনাদের গুলিতে সাত ফিলিস্তিনী নিহত ও কয়েক শ' জন আহত হয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে যখন ইসরাইল ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে উত্তেজনা তুঙ্গে রয়েছে তখন আরব দেশগুলোর জোটের পক্ষ থেকে তেল আবিবের প্রতি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা হলো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ