মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

মেধাবী ছাত্র সিদ্দিকুরের উন্নত চিকিৎসার দাবি ছাত্রশিবিরের

পুলিশ কর্তৃক শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বর্বর হামলা চালিয়ে সরকারি তিতুমীর কলেজের মেধাবী ছাত্র সিদ্দিকুর রহমানের দু চোখ নষ্ট করে দেয়ার প্রতিবাদ, অবিলম্বে হামলায় জড়িত পুলিশ সদস্যর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও তার উন্নত চিকিৎসার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির। গতকাল রোববার দেয়া যৌথ বিবৃতিতে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ও সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, একজন নিরপরাধ ছাত্রের উপর নৃশংস হামলা চালিয়ে পুলিশ যে বর্বরতার পরিচয় দিয়েছে তার নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই। গত ২০শে জুলাই ন্যায্য দাবিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে অতর্কিত হামলা চালিয়েছে পুলিশ। সেখানে খুব কাছ থেকে সিদ্দিকুর রহমানের চোখে টিয়ার শেল নিক্ষেপ করেছে। পুলিশের এই নৃসংশ হামলায় মেধাবী ছাত্র সিদ্দিকুর রহমান এখন চিরদিনের জন্য অন্ধ হয়ে যাওয়ার পথে। এই নৃশসংশতায় জাতি চরম ভাবে ক্ষুদ্ধ। এর আগেও পুলিশ অতি উৎসাহি হয়ে গুলী চালিয়ে বহু মেধাবী ছাত্রকে হত্যা ও পঙ্গু করেছে। থানায় নিয়ে স্কুল ছাত্রের চোখ উপড়িয়ে হত্যা করেছে। অথচ এখন পর্যন্ত তার কোন বিচার দেশাবাসী দেখেনি। সরকারের প্রতিহিংসাপরায়ন নির্দেশ ও প্রত্যক্ষ মদদের কারণেই পুলিশ বার বার এমন নৃশংস ঘটনা ঘটাচ্ছে। যার সর্বশেষ নজীর নিরীহ ছাত্র সিদ্দিকুর রহমানের ভবিষ্যৎ অন্ধকার করে দেয়া। পুলিশ কোন ভাবেই এভাবে একটি সম্ভাবনাময় ছাত্রের ভবিষ্যৎ ধ্বংস করে দিতে পারে না।
 নেতৃদ্বয় বলেন, অতি উৎসাহী পুলিশ সদস্যদের বেআইনি কর্মকান্ড বার বার বর্বরতম ঘটনার জন্ম দিচ্ছে। ছাত্রদের অধিকার আদায়ের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে হামলা মামলা করে কোন জুলুমবাজ টিকে থাকতে পারেনি। আপনারাও পারবেন না। সুতরাং ছাত্রসমাজ কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়ার আগেই সরকারি খরচে সিদ্দিকুর রহমানের উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। ভিডিও ফুটেজে হামলাকারী দায়িত্বহীন পুলিশ সদস্যদের চিহ্নিত করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। ছাত্রদের উপর দায়ের করা অযৌক্তিক মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। সেইসাথে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি মেনে নিতে হবে। অন্যথায় আপনাদের মনে রাখা উচিৎ, ছাত্রসমাজ কোন দলীয় সেবাদাস দায়িত্বহীনের কাছে নিজেদের ভবিষ্যৎ ধ্বংস হতে দিতে প্রস্তুত নয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ