মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

সিলেট শিক্ষাবোর্ডে পাসের হারে এগিয়ে মেয়েরা

সিলেট ব্যুরো : সিলেটে এবার এইচএসসি পরীক্ষায় পাসের হার গতবারের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে, কিন্তু কমেছে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা। গতকাল রোববার সকাল ১১টায় সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের ফলাফল প্রকাশ করেন বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ সামছুল ইসলাম। এবার পাস করেছে ৭২ শতাংশ। যা গতবারের তুলনায় ৩ দশমিক ৪১ ভাগ বেশি। ২০১৬ সালে পাসের হার ছিল ৬৮ দশমিক ৫৯ ভাগ। এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭০০ জন। গতবছর এই সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৩৩০ জন।
এবারের পরীক্ষায় পাসের হারে এগিয়ে আছে মেয়েরা আর জিপিএর সংখ্যায় মেয়েদের চেয়ে ছেলেরা এগিয়ে রয়েছে। ছেলেদের পাসের হার ৭০ দশমিক ৩৯ শতাংশ। আর মেয়েদের পাসের হার ৭৩ দশমিক ৩৬ শতাংশ। সিলেট শিক্ষা বোর্ডে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ছেলেদের সংখ্যা ৪৫৫ এবং মেয়েদের সংখ্যা ২৪৫ জন।
এদিকে, সিলেট শিক্ষা বোর্ডে গত ছয় বছরের মধ্যে এবারই জিপিএ-৫ এর সংখ্যা সর্বনিম্ন। সিলেট শিক্ষা বোর্ডে ২০১২ সালে পাসের হার ছিল ৮৫.৩৭। ওই বছর ৩৭ হাজার ৩৭২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৩১ হাজার ৯০৩ জন শিক্ষার্থী পাস করে। জিপিএ-৫ পায় ২ হাজার ৬৫ জন। ২০১৩ সালে সিলেট বোর্ডে পাসের হার ছিল ৭৯.১৩। সে বছর ৪২ হাজার ৯৮০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাস করে ৩৪ হাজার ৯ জন। জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১৫৩৫ জন। সিলেট শিক্ষা বোর্ডে ২০১৪ সালে পাসের হার ছিল ৭৯.১৬। ওই বছর ৫৭ হাজার ৫৬১ জন পরীক্ষার্থী মধ্যে পাস করে ৪৫ হাজার ৫৬৮ জন। জিপিএ-৫ পায় ২ হাজার ৭০ জন শিক্ষার্থী। ২০১৫ সালে সিলেট বোর্ডে পাসের হার ছিল ৭৪.৫৭। সে বছর ৫৭ হাজার ৭০২ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে পাস করে ৪৩ হাজার ২৮ জন। জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১৩৫৬ জন।
এবছর সিলেট শিক্ষা বোর্ড থেকে মোট  ৬৫ হাজার শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছ ৪৬ হাজার ৭শ’ ৯৭জন। পাসের হার ৭২.০০। গতবার পাসের হার ছিলো ৬৮.৫৯। গতবারের চেয়ে এবারের ফলাফল কিছুটা বেড়েছে। তবে এ বছর জিপিএ-৫ পেয়েছে  মাত্র ৭০০ শিক্ষার্থী। এই ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, গত ছয় বছরের মধ্যে সিলেট শিক্ষা বোর্ডে এবারই  জিপিএ-৫ এর সংখ্যাও গত ছয় বছরে সর্বনিম্ন হয়েছে এবার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ