শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

চট্টগ্রাম বোর্ডে কমেছে পাসের হার জিপিএ-৫

চট্টগ্রাম অফিস : এবার এইচএসসি পরীক্ষায় চট্টগ্রাম বোর্ডে পাসের হার ৬১ দশমিক ০৯ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৩৯১জন। গতবছর এ বোর্ডে পাসের হার ছিল ৬৪ দশমিক ৬০ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছিল ২ হাজার ২৫৩ জন। যা গত বারের চেয়ে পাশের হার ৩.৫১ শতাংশ কম। গত বারের চেয়ে জিপিএ-৫ কমেছে ৮৬২জন। চট্টগ্রামে ছেলেদের চেয়ে মেয়েরা পাসের হারে এগিয়ে আছে। তবে জিপিএ-৫ পাওয়ার দিক দিয়ে এগিয়ে আছে ছেলেরা। রোববার দুপুরে ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক মাহবুব হাসান। তিনি বলেন, এ বোর্ড থেকে এবার ৮২ হাজার ৪১৪ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ৫০ হাজার ৩৪৭ জন। এর মধ্যে ছাত্রীদের পাসের হার ৬২ দশমিক ৬৫ শতাংশ। ছাত্রদের ক্ষেত্রে ৫৯ দশমিক ৫৫ শতাংশ। আর জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর মধ্যে ৬২৪ জন ছাত্রী, ছাত্র ৭৬৭ জন। চট্টগ্রাম বোর্ডের ২৩৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে এবার একটি কলেজে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। এবার বিজ্ঞানে পাস করেছে ৭৭ দশমিক ৩৪ শতাংশ, মানবিকে ৪৭ দশমিক ৪৯ এবং ব্যবসায় শিক্ষায় ৬৫ দশমিক ৩৬ শতাংশ শিক্ষার্থী। বিজ্ঞানে গতবারের চেয়ে পাসের হার বাড়লেও মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষায় কমেছে। গতবার বিজ্ঞানে ৭৬ দশমিক ৬৬, মানবিকে ৫১ দশমিক ৬২ ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ৭০ দশমিক ৮৫ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছিল। ঘোষিত এইচএসসির ফলাফলে খাতা মূল্যায়ন পদ্ধতির পরিবর্তনে এবার এইচএসসি পরীক্ষায় চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডে পাসের হারের সঙ্গে জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যাও কমেছে বলে দাবি বোর্ড কর্মকর্তাদের।
ভিওআইপি সরঞ্জামসহ একজন গ্রেফতার
রোববার রাতে নগরীর বাকলিয়া থানার সৈয়দ শাহ রোডের জুলেখা মঞ্জিলের পাঁচ তলার একটি বাসা থেকে অবৈধ ভিওআইপি সরঞ্জামসহ একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির নাম মোহাম্মদ নোমান (৩২)। নোমান চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া এলাকার জামাল আহমদের ছেলে। তিনি জুলেখা মঞ্জিলে ভাড়া থাকতেন। নোমানের বাসা থেকে বিভিন্ন অপারেটরের ৪৬৪টি সিম, একটি গেইটওয়ে মেশিন, ওয়্যারলেস রাউটার একটি, একটি মডেম মেশিন, একটি ল্যাপটপ, আইপিএস ও ব্যাটারি, পাঁচটি অ্যান্টেনা, সুইচ বক্স ও কয়েকটি মডেম উদ্ধার করা হয়। বাকলিয়া থানার ওসি প্রণব কুমার চৌধুরী বলেন, নোমান সৌদি আরবে থাকতেন। আট মাস আগে দেশে ফিরে আসেন। আর তিনমাস ধরে অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসায় যুক্ত হয়েছে।
চিনিবাহী জাহাজ চরে
বৈরি আবহাওয়ায় রোববার সকালে চট্টগ্রাম বন্দরের কাছে পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত এলাকায় দুই হাজার মেট্রিক টন চিনিবাহী একটি লাইটারেজ জাহাজ আটকে গেছে। জাহাজের ১৪ জন নাবিকের সবাই নিরাপদে রয়েছেন। দুর্যোগপূর্ণ আবহওয়ার কারণে সিটি-১১ নামের লাইটারেজ জাহাজটির তলা ফেটে পানি ঢুকছে। চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মো. জসিম উদ্দিন জানান, ফায়ার সার্ভিসের ইপিজেড শাখার একটি টিম সেখানে গিয়ে লাইটারেজ জাহাজটি উদ্ধারের চেষ্টা করছেন। বৈরী আবহাওয়ার কারণে চিনি বোঝাই ছোট জাহাজটি তলা ফেটে পানি প্রবেশ করছে। এটিকে চর থেকে উদ্ধার করার চেষ্টা চলছে। বন্দরের একটি ট্যাগবোটও সেখানে গেছে। বন্দর কর্তৃপক্ষ সুত্রে জানাগেছে, সিটি গ্রুপের মালিকাধীন সিটি-১১ লাইটার জাহাজটি শনিবার রাতে বন্দরের বহির্নোঙরে থাকা মাদার ভ্যাসেল থেকে চিনি নিয়ে খালাসের জন্য তীরে আসার পথে সাগরে উত্তাল ঢেউয়ের কারণে এর তলা ফেটে যায়। এরপর পানি ঢুকতে শুরু করে। রোববার ভোর রাতের দিকে এটি পতেঙ্গার কাছে উপকূলের চড়ায় আটকে যায় বলে জানান বন্দর রেডিও কন্ট্রোল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ