বুধবার ১৫ জুলাই ২০২০
Online Edition

হজ্বযাত্রীদের ট্রলি-ব্যাগের মান নিশ্চিত করতে হাবকে সংসদীয় কমিটির তাগিদ

স্টাফ রিপোর্টার: হজ্ব ব্যবস্থাপনা ও ট্রলি-ব্যাগের ক্ষেত্রে কোনো অনিয়ম হলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন ধর্ম মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। সচিবালয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ে গতকাল বুধবার হজ্ব এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের পর এ কথা বলেন হজ্ব ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি বিএইচ হারুন।
বিএইচ হারুন বলেন, ‘হাজিরা যেন সময় মতো ট্রলি ব্যাগ পায়। টিকিট সিন্ডিকেট, ট্রলি ব্যাগে অনিয়ম বা অন্য কোনো বিষয়ে অনিয়মে ছাড় দেওয়া হবে না। প্রত্যেক হজ্বযাত্রীর ব্যাগ এখানে বসে নিশ্চিত করতে হবে।’
তিনি আরো বলেন, ‘নিজেদের সংগঠনের নির্বাচনের কারণে তারা পর্যাপ্ত সময় পায়নি। আমরাই তাদের (হজ্ব এজেন্সি) ডেকে ব্যাগের কোয়ালিটি নিশ্চিত করতে বলেছি। কোনো শিথিলতা থাকলে আমরা ছাড় দেব না, বরদাশত করব না। ট্রলি-ব্যাগের যথাযথ সরবরাহে হাব এবং মন্ত্রণালয় মিলে মনিটরিং করবে বলে সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে।
ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, হজ্ব প্যাকেজ-২০১৭ অনুযায়ী এ বছর মোট হজ্বযাত্রীর সংখ্যা ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। মোট যাত্রীর মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স (বিজি) শতকরা ৫০ ভাগ অর্থাৎ ৬৩ হাজার ৫৯৯ জন ও সৌদী এরাবিয়ান এয়ারলাইন্স (এসভি) বাকি অর্ধেক অর্থাৎ সমান সংখ্যক যাত্রী পরিবহন করবে।
এদিকে হজ্ব যাত্রী এবং হজ্ব এজেন্সির মধ্যে সম্পাদিত চুক্তিনামার একটি কপি ঢাকার হজ্ব অফিসে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। গতকাল বুধবার হজ্ব অফিসের পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘২০১৭-সালের হজ্ব কার্যক্রমে অংশগ্রহণকারী হজ্ব এজেন্সির মালিক/অংশীদারগণের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, হরযাত্রী এবং হজ্ব এজেন্সির মধ্যে সম্পাদিত চুক্তিনামার একটি কপি হজ্ব অফিসে জমা করতে হবে। যে সকল হজ্ব এজেন্সি হজ¦যাত্রী এবং হজ্ব এজেন্সির মধ্যে সম্পাদিত চুক্তিনামা হজ্ব অফিসে জমা করেননি, তাদেরকে ভিসার জন্য ডিও পত্র গ্রহণের আগেই চুক্তিনামা জমা করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ