ঢাকা, শনিবার 26 September 2020, ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ৮ সফর ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

গাইবান্ধার ব্রহ্মপুত্র নদের তীব্র ভাঙনে ঝুঁকিতে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ

অনলাইন ডেস্ক: সংস্কারের অভাবে ক্রমেই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে উত্তরের ব্রহ্মপুত্র বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধগুলো। বন্যার হাত থেকে মানুষের সহায় সম্বল রক্ষার বাঁধ মরণফাঁদে পরিণত হওয়ার শঙ্কায় দিন পার করছেন নদী তীরবর্তী মানুষ। আসন্ন বন্যায় এসব বাঁধ নিয়ে আতংকে আছেন খোদ পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলীরাও।

১৯৫৬ সালে বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি থেকে পাবনা জেলার বেড়া পর্যন্ত ব্রহ্মপুত্র নদের ডান তীরে নির্মাণ করা হয় ব্রহ্মপুত্র বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ। গাইবান্ধার ফুলছড়ি থেকে সুন্দরগঞ্জ পর্যন্ত বাঁধটির ৭৮ কিলোমিটার অংশের পুরোটাই কমবেশী ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, নির্মাণের পর এই বাঁধে এক কোদাল মাটিও দেয়নি পানি উন্নয়ন বোর্ড। প্রতি বছর বন্যা, বৃষ্টিতে ক্ষয়ে যাওয়ার পাশাপাশি স্থানীয়রা ইচ্ছেমতো বাঁধ কেটে বসতি গড়ে তোলায় এখন করুণ দশা।

গাইবান্ধা অংশে গোটা বাঁধ জুড়ে গড়ে উঠেছে বসতি। কোন কোন জায়গায় গড়ে তোলা হয়েছে হাছবাজার। বাঁধের এমন পরিণতির জন্য দখলদারদের দায়ী করছেন জনপ্রতিনিধিরা। আর দফায় দফায় নদী ভাঙনে নি:স্ব হয়ে বাঁধে আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানান বসতি গড়ে তোলা মানুষেরা।

এবার বড় ধরণের বন্যা হলে এই বাঁধ রক্ষায় বেগ পেতে হবে বলে মনে করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। আর বাঁধ রক্ষায় প্রকল্প অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছেন বলে জানালেন নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান।

গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের দেয়া তথ্য মতে, ব্রহ্মপুত্র বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধসহ জেলায় মোট সাতটি বাঁধ রয়েছে। মোট ২ শ’ ২৭ কিলোমিটার বাঁধের মধ্যে ৮ কিলোমিটার এলাকা সম্পুর্ণ খোলা।-সময় টিভি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ