শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

বিচার না করেই ফিলিস্তিনী নারী এমপিকে ছয়মাসের কারাদণ্ড দিলো ইসরাইল

সংগ্রাম ডেস্ক : বিচার না করেই ফিলিস্তিনী সংসদ সদস্য খালিদা জারারকে ছয়মাস কারাবন্দী রাখার নির্দেশ দিয়েছে ইসরাইলী কর্তৃপক্ষ। বিতর্কিত এক আইনের আওতায় আরো দশ ফিলিস্তিনী সংসদ সদস্য বর্তমানে ইসরাইলে বন্দী আছেন। আরটিএনএন
জারারের বিরুদ্ধে এমন এক গোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পর্ক থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে, যেটিকে ইসরাইল সন্ত্রাসী গোষ্ঠী বলে বিবেচনা করে। মানবাধিকার সংগঠন আড্ডামির গত বুধবার এসব তথ্য জানিয়েছে।
৫৪ বছর বয়সি জারারকে চলতি মাসের শুরুতে গ্রেফতার করা হয়। ‘পপুলার ফ্রন্ট ফর দ্য লিবারেশন অফ প্যালেস্টাইন’ বা পিএফএলপি নামের একটি বামপন্থী দলের সদস্য তিনি। ইহুদি রাষ্ট্রের সঙ্গে শান্তি স্থাপনের বিরোধিতা করে বলে পিএফএলপিকে ইসরাইল সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে।
জারারকে গ্রেফতারের সময় ইসরাইলের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা সংস্থা বলেছিল, জারার ‘সন্ত্রাসী কার্যক্রমকে প্ররোচনা’ দিয়ে থাকেন। এর বেশি কিছু আর জানায়নি তারা।
ফিলিস্তীনের কারাবন্দীদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশকারী সংগঠন সামিদুন বলছে, জারারসহ মোট ১১ জন ফিলিস্তিনী সংসদ সদস্য বর্তমান ইসরায়েলের কারাগারে বন্দী আছেন। ইসরাইলের বিরুদ্ধে সবসময় কড়া মন্তব্য করায় জারার ফিলিস্তিনীদের কাছে বেশ পরিচিত।
এর আগেও বেশ কয়েকবার বন্দী হয়েছিলেন জারার। তার স্বামী ঘাসান জারারকেও কয়েকবার বন্দী করেছে ইসরাইল। ঘাসান প্রায় ১১ বছর ইসরাইলের কারাগারে কাটিয়েছেন।
‘অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ডিটেনশন’ নামে বিতর্কিত এক আইনের মাধ্যমে ইসরাইল কোনো ব্যক্তিকে ছয় মাস পর্যন্ত বিনা বিচারে আটকে রাখতে পারে। পরবর্তীতে সেটা অনির্দিষ্টকাল পর্যন্ত বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে। মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো এই আইনের সমালোচনা করলেও ইসরাইল বলছে, হামলা ঠেকাতে এবং গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহে পুলিশকে সময় দিতে এই আইন করা হয়েছে।
‘প্যালেস্টিনিয়ান প্রিজনার্স ক্লাব’ এর হিসেবে ইসরাইলের জেলে থাকা প্রায় সাড়ে ছয় হাজার ফিলিস্তিনীর মধ্যে প্রায় ৫০০ জনকে ‘অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ডিটেনশন’এর আওতায় আটক করা হয়েছে।
ফিলিস্তিনী কারাবন্দীরা সম্প্রতি তাদের আটকাবস্থার বিরুদ্ধে অনশন করেছেন। পরে ভালো স্বাস্থ্যসেবা ও আত্মীয়স্বজনদের সঙ্গে নিয়মিত দেখা করার সুযোগের আশ্বাস পেয়ে অনশন ভঙ্গ করেন তারা।
পুলিশের উপর হামলা
এদিকে, গতকাল শুক্রবার তিন ব্যক্তি পুরনো জেরুজালেমে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এতে তিন ব্যক্তি আহত হয়। এদের মধ্যে দু'জনের অবস্থা গুরুতর। হামলাকারীরা পরে পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছে। এই ঘটনার পর জেরুজালেমের শীর্ষ মুসলিম পন্ডিত মোহাম্মদ হুসেইনকে আটক করা হয়েছে বলে, হুসেইনের পরিবারের এক সদস্য জানিয়েছেন। সূত্র: এএফপি, ডাব্লিউএএফএ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ