রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

বিরোধী জোটের নেতাকর্মীরা হরহামেশা গুম খুনের শিকার হচ্ছে -নোমান

স্টাফ রিপোর্টার: বিরোধী জোটের নেতাকর্মীরা হরহামেশা গুম খুন হচ্ছে অভিযোগ করে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, আমরা গুম হচ্ছি, খুন হচ্ছি বিনা অপরাধে মামলায় কারাগারে জেল খাটছি, আমাদের রাজনীতি করার কোনো অধিকার নেই। গতকাল শুক্রবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয় মিলনায়তনে বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরামের উদ্যোগে ‘হত্যা, নির্যাতন, অপহরণের কবলে সারা  দেশ : কোন পথে বাংলাদেশ’ শীর্ষক এই আলোচনা সভা হয়।
ইয়ুথ ফোরামের উপদেষ্টা আতিকুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও সভাপতি মুহাম্মদ সাইদুর রহমানের পরিচালনায় আলোচনা সভায় জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) আহসান হাবিব লিংকন, বিএনপির খালেদা ইয়াসমীন, আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, জাসাস-এর শাহরিয়া ইসলাম শায়লা, সাবেক ছাত্র নেতা খালেদ সাইফুল্লাহ সোহেল প্রমুখ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
জাসদ নেতা আসম আবদুর রবের বাসায় বৃহস্পতিবার রাতের ঘরোয়া অনুষ্ঠানে পুলিশের বাগড়া দেয়ার ঘটনায় ‘আওয়ামী লীগের স্বরূপ’ উন্মোচিত হয়েছে মন্তব্য করে আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, বৃহস্পতিবার আসম আবদুর রবের বাড়িতে সেখানে তিনি শুধু কিছু রাজনৈতিক বন্ধুদের ডেকেছেন। সেটা তো ডাকতেই পারেন, ঘরোয়া আলোচনাও করতে পারেন। কিন্তু তাকে সেই আলোচনা করার সুযোগ দেয়া হয় নাই। পুলিশ সেই আলোচনাকে বন্ধ করে দিয়েছে, তড়িৎ গতিতে শেষ করার জন্য তারা সেখানে তাগিদ দিয়েছে। এই হলো বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের রাজনীতির স্বরূপ। বৃহস্পতিবার রাতে উত্তরায় জেএসডি সভাপতি আসম আবদুর রবের বাসায় রাজনীতিক এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, আবদুল কাদের সিদ্দিকী, মাহমুদুর রহমান মান্নাসহ কয়েকজন  বৈঠক করেন। একে ‘চা চক্র’ বলছেন জেএসডির নেতারা।
 দেশের পরিস্থিতি তুলে ধরে আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, আজকে দেশের পরিস্থিতি কি? দুঃসহ ও দুরাবস্থা। আজকে সবচেয়ে দুঃখের, যন্ত্রণার ও ক্ষোভের কথা হলো এই সরকার তো অবৈধ সরকার, তারা নির্বাচনের মাধ্যমে আসেনি। তারা মানুষকে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে দেয়নি। তারা ভোট কেন্দ্রের কাছাকাছি কুত্তা যেতে দিয়েছে, মানুষকে যেতে দেয়নি। আমরা গুম হচ্ছি, খুন হচ্ছি, বিনা অপরাধে মামলায় কারাগারে জেল খাটছি, আমাদের রাজনীতি করার কোনো অধিকার নেই।
সারা দেশে বন্যা কবলিত এলাকায় দুর্গতের ত্রাণ অপ্রতুলতার অভিযোগ করে তিনি বলেন, সারাদেশ আজকে বন্যায় ভাসছে। বন্যার রিলিফ অপ্রতুল। বন্যায় যে ওএমএস দিচ্ছে, চাল দিচ্ছে আজকে তারা চুরি করছে। দুর্গত মানুষের কাছে যে ত্রাণ ও খাদ্য সামগ্রী যাচ্ছে, তা আওয়ামী লীগ লুটপাট করছে। জনগণের যে ভাগ তা তারা নিজেরা নিয়ে যাচ্ছে। একই সঙ্গে আমি বলব, বন্যা দুর্গতদের পাশে আমাদের নেতা-কর্মীদের পাশে যেতে হবে, বিলম্ব করা যাবে না। এই অবস্থা থেকে উত্তরণে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান নোমান।
এ সরকারকে পরাজিত করতে হবে
গাজীপুর সংবাদদাতা : বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেছেন, ভোট বিহীন অবৈধ সরকারের জাতাকলে বিএনপির হাজার হাজার নেতাকর্মীসহ দেশের মানুষ আজ অতিষ্ট। তাই এ সরকারকে পরাজিত করতে হবে। আমরা আলোচনা ও সহায়ক সরকারের দাবি জানিয়েছি। সহায়ক সরকার মানে মাঠ পর্যায়ে নির্বাচন কমিশনকে সহায়তা দেয়া। কিন্তু আওয়ামী লীগ কিছুই মানতে চায় না। তারা শুধু জীবন বাজি রেখে ক্ষমতায় থাকতে চায়। তারা জানে ক্ষমতা হাতছাড়া হলে তাদের গুম, খুন ও লুটপাটের হিসাব জানতে চাইবে দেশের জনগণ। পেট কেটে আনতে চাইবে লুটপাটের টাকা।
 গতকাল শুক্রবার বিকালে গাজীপুর নগরীর ভূরুলিয়ায় সোনাতরী কমিউনিটি সেন্টারে গাজীপুর জেলা বিএনপির উদ্যোগে বিএনপির সদস্য নবায়ন ও প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচির উদ্ভোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে বিএনপির সদস্য নবায়ন ও প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচি শুরু হয়। অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থানীয় নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ প্রধান অতিথির হাত থেকে নতুন সদস্য ফরম সংগ্রহ করেন।
আব্দুল্লাহ আল নোমান উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বিএনপির মূল শক্তি জনগণ। প্রত্যেক পাড়া-মহল্লায় বিএনপিসহ এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনে সক্রিয় নেতৃত্ব তৈরী করে রাজপথে নামুন, দেখবেন আপনাদের সাথে লক্ষ মানুষ রাজপথে নেমে আসছে। আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি দাবি করলেও একাধিকবার ক্ষমতায় এসেও মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য কিছুই করতে পারে নি। বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে একমাত্র বিএনপিই মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয় গঠন করে তাদের যথাযথ মূল্যায়িত করেছে। বিএনপি সত্যিকার মুক্তিযোদ্ধের দল। তিনি আরো বলেন, রাজনৈতিক নেতৃত্ব শূন্যতায় শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। তেমনি রাজনৈতিক শূন্যতা বাধ্য করেছিলো তাকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসতে। শহীদ জিয়া বাকশাল থেকে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠান মাধ্যমে এদেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে উংপাদনমুখী নানা কর্মসূচি দিয়েছিলেন। সারাদেশের মানুষ বন্যায় পড়ে হাবুডুবু খাচ্ছে। কিন্তু এই সরকার ব্যস্ত রয়েছে লুটপাটে। গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব এবং সাধারণ সম্পাদক কাজী সাইয়্যেদুল আলম বাবুল পরিচালনা করেন। এসময়ে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবীর খান, সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, সদস্য পৌর মেয়র মজিবুর রহমান, ডাঃ মাজহারুল আলম, জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মিসেস শায়লা হক, জেলা বিএনপি নেতা মীর হালিমুজ্জামান ননী, আফজাল হোসেন কায়সার, আহমেদ আলী রুশদী, হেলাল উদ্দিন, কাজী মাহবুব উল হক গোলাপ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ