বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

বাঘা উপজেলা চেয়ারম্যান জিন্নাতসহ গ্রেফতার ১০নেতা জেলহাজতে

বাঘা (রাজশাহী ) সংবাদদাতা : রাজশাহীর বাঘা উপজেলা জামায়াতের আমির ও উপজেলা চেয়ারম্যান মাওলানা জিন্নাত আলী এবং চারঘাট উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি অধ্যক্ষ নাজমুল হকসহ আটক ১০ নেতাকে নাশকতার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে গতকাল রোববার দুপুরে আদালতে হাজির করা হয়। আদালতে তাদের সাত দিনের রিমা-ের আবেদনও করা হয়। পরে গ্রেফতারকৃতদের জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন আদালত। তবে বিকেল পর্যন্ত রিমা- মঞ্জুর বা নামঞ্জুরের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য জানাতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা।
জেলহাজতে পাঠানো অন্যরা হলেন- বাঘা পৌরসভা জামায়াতের আমির প্রভাষক সাইফুল ইসলাম, বাজু বাঘা ইউপি সভাপতি ওয়াজেদ আলী, বাউসা ইউপি সভাপতি মজিবুর রহমান, আড়ানী ইউপি সভাপতি সামসুল ইসলাম, অধ্যাপক মোয়াজ্জেম হোসেন, রফিকুল ইমলাম, সেকেন্দার আলী ও অধ্যাপক আহম্মদ আলী।
পুলিশ জানায়, সন্ত্রাসবিরোধী আইনে দায়ের করা মামলায় গ্রেফতারকৃত ১০ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। এছাড়া আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাত আরও ১০ থেকে ১৫ জনকে।
এরআগে গত শনিবার সন্ধ্যায় বাঘা উপজেলার বাজুবাঘা ইউনিয়নের আহমদপুর গ্রামের জামে মসজিদ থেকে জামায়াতের এই ১০ নেতাকে আটক করে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, ওই মসজিদে বসে জামায়াত নেতারা গোপন বৈঠক ও নাশকতার পরিকল্পনা করছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
গ্রেফতারের পর বাঘা উপজেলা জামায়াতের আমির ও উপজেলা চেয়ারম্যান মাওলানা জিন্নাত আলী সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, তারা আছর নামাজ শেষে কুরআন-হাদিস নিয়ে মসজিদে আলোচনা করছিলেন। সেখানো কোনো নাশকতার পরিকল্পনা হচ্ছিল না। আলোচনা শেষে সন্ধ্যায় তারা মাগরিব নামাজের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এসময় পুলিশ এসে কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়াই অন্যায়ভাবে তাদের গ্রেফতার করেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ