ঢাকা, শনিবার 11 July 2020, ২৭ আষাঢ় ১৪২৭, ১৯ জিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ভারত-পাকিস্তান হাই ভোল্টেজ ফাইনাল আজ

অনলাইন: আজ ওভালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে মুখোমুখি হচ্চে উপমহাদেশের দুই ক্রিকেট পরাশক্তি ভারত-পাকিস্তান।১০ বছর পর আবার ফাইনালে মুখোমুখি হল চির প্রতিদ্বন্দ্বি এই দুই দল।চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত ম্যাচে ফেবারিট হিসেবে মাঠে নামলেও আনপ্রেডিক্টেবল পাকিস্তান ফাইনালে নিজেদের প্রমাণ করার যোগ্যতা রাখে। ফলে ফাইনালে আজ যে কোনো দলই নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা জয় করতে পারে। বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে তিনটায় ফাইনাল ম্যাচটি শুরু হবে। বাংলাদেশ টেলিভিশন, গাজী টিভি ও মাছরাঙ্গা টেলিভিশন ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে। 

দুই প্রতিবেশী দেশের ম্যাচ বরাবরই আলাদা উন্মাদনা তৈরি করে ক্রিকেট ভক্তদের মাঝে। এবার তার মাত্রাটা আরও বেশি। কারণ ওভালে দুই দলের লড়াইয়ে নির্ধারিত হবে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা। বিরাট কোহলির ভারত টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন।আর ফাইনালে উঠে নতুন ইতিহাস গড়েছেন সরফরাজ আহমেদরা। চ্যাম্পিয়ন হয়ে সাফল্যটাকে পূর্ণতা দিতেই মুখিয়ে থাকবেন তারা।

আজকের এই ফাইনাল নিয়ে তাই দুই দলের ভাবনা দুই রকম। জয়ের জন্য ভারত ভীষণ আগ্রাসী হলেও আবেগে ভাসছেন না ভারতীয় ক্রিকেটাররা। বরং তাদের কাছে মনে হচ্ছে, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা তাদেরই প্রাপ্য। যদি শেষ পর্যন্ত জিততে নাই-ই পারে সে হবে একটা দুর্ঘটনা মাত্র। কোহলি বলেন, ‘ফাইনাল নিয়ে আমরা মোটেও উত্তেজিত নই। এটা আমাদের কাছে অন্য আর ১০টা ম্যাচের মতোই একটি ক্রিকেট ম্যাচ। ’

উল্টো চিত্র পাকিস্তান দলে। প্রথমবারের মতো আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে উঠে রীতিমতো রোমাঞ্চিত দলটি। এই ফাইনাল ছিল পাকিস্তানের কাছে বহু আকাঙ্ক্ষিত। বিশ্বাসই ছিল না, এমন একটি তরুণ দল নিয়ে ফাইনালে উঠতে পারবে। পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ বলেন, ‘আমাদের ক্রিকেটাররা সবাই ভীষণ এক্সসাইডেড। সবাই উন্মুখ হয়ে আছে নিজেকে উজাড় করে দেওয়ার জন্য। আমাদের দলের অধিকাংশ ক্রিকেটারই তরুণ। সবাই কঠোর পরিশ্রম করেছেন। দেখা যাক কি হয়। ’

সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান কথা বলছে ভারতের পক্ষে। দুদলের সর্বশেষ দেখাটা হয়েছিল চলতি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির গ্রুপপর্বে। ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে সে ম্যাচে ভারত জিতেছিল ১২৪ রানের বড় ব্যবধানে। আর সর্বশেষ ১০ ম্যাচে ভারতের ৭ জয়ের বিপরীতে পাকিস্তানের জয় মাত্র ৩টি ম্যাচে। তাই ওভালের ফাইনালে ভারতই ফেভারিট।তবে পাকিস্তান যে ঘুরে দাঁড়াতে পারে তার প্রমাণ তো তারা ইতোমধ্যে রেখেছে।

ধারণা করা হচ্ছে প্রায় একশ কোটি দর্শক টেলিভিশনে উপভোগ করবেন ওভালের আজকের হাই ভোল্টেজ ফাইনাল ম্যাচটি।যুগ যুগ ধরে ভারত-পাকিস্তান ক্রিকেট মানে ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় লড়াইয়ের একটি।ভারত-পাকিস্তান একটা ম্যাচের নিশ্চয়তা মানে আইসিসির কোষাগার ফুলে-ফেঁপে ওঠা। সেখানে এক টুর্নামেন্টে দু-দুটি ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। তার একটি আবার ফাইনাল। এ যেন লটারি জেতার মতো ব্যাপার!তা এই টুর্নামেন্টের সম্প্রচার স্বত্ব যাদের, সেই স্টার স্পোর্টস তো ‘লটারি’ই জিতেছে। সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী ফাইনালে ৩০ সেকেন্ডের বিজ্ঞাপনের রেট দশ গুণ বেড়ে এক কোটি রুপি হয়ে গেছে! 

অতীতের মত আজকেও ওভালে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ হয়ে উঠবে ‘ভারতীয় ব্যাটিং বনাম পাকিস্তানি বোলিং’র লড়াই।টুর্নামেন্টে ভারতের ব্যাটিং গড় ৯১.৫। সেটির এমনই দাপট যে যুবরাজ-ধোনির মতো ব্যাটসম্যানরা কিছু করারই সুযোগ পাচ্ছেন না। যা করার প্রথম তিন ব্যাটসম্যানই করে দিচ্ছেন। শিখর ধাওয়ানের রান টুর্নামেন্ট-সর্বোচ্চ ৩১৭, রোহিত শর্মার ৩০৪, বিরাট কোহলির ২৫৩। দুই ওপেনার মিলেই বলতে গেলে খেলা শেষ করে দিয়ে আসছেন। আর কোহলি তো ব্যাটিং থেকে অনিশ্চয়তা ব্যাপারটাই মুছে দিতে বসেছেন।

অন্যদিকে পাকিস্তানের মোহাম্মদ আমির চোট কাটিয়ে ফিরছেন আজ। আমিরের সঙ্গে জুনাইদ আর হাসান আলী-এই পেস ত্রিফলাই পাকিস্তানকে স্বপ্ন দেখাচ্ছে সব পূর্বানুমান আর রেকর্ডকে মিথ্যা প্রমাণ করার। টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি উইকেট (২৮) নিয়েছেন পাকিস্তানি বোলাররাই।

ডি.স/আ.হু

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ