বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

আলেমদের ইসলামের সঠিক দীক্ষা সমাজে তুলে ধরতে হবে -খলিলুর রহমান মাদানী

গতকাল শুক্রবার দুপুরে কুমিল্লায় আঞ্চলিক উলামা মাশায়েখ সম্মেলন ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় -সংগ্রাম

সম্মিলিত উলামা-মাশায়েখ পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা ও বাংলাদেশ মসজিদ মিশনের জেনারেল সেক্রেটারি ড. মাওলানা খলিলুর রহমান মাদানী বলেছেন, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও সকল ধরনের উগ্রপন্থা ইসলামে চিরতরে হারাম। অথচ দেশী-বিদেশী ইসলাম বিরোধী চক্র ইসলামকে কলুষিত ও প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্যই কতিপয় গোমরাহ, ভ্রান্তদের ব্যবহার করে জঙ্গি তৎপরতা চালিয়ে অপপ্রচার চালাচেছ। তাই সকল মাকতাবে ফিকিরের উলামা-মাশায়েখদেরকে ইসলামের সঠিক দীক্ষা সমাজে তুলে ধরতে হবে।
গতকাল শুক্রবার দুপুর ২.৩০মি.কুমিল্লা আঞ্চলিক উলামা মাশায়েখ সম্মেলন ও ইফতার মাহফিলের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। কুমিল্লা মহানগরীস্থ আইটিএম মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও ইসলামী স্কলার অধ্যক্ষ মাওলানা শফিকুল আলম হেলাল, আধ্যাতিক গুরু পীরে কামেল মাওলানা মুস্তাক ফয়েজী, কুমিল্লা মহানগর উলামা মাশায়েখ সমন্বয়ক অধ্যাপক মাওলানা ইমদাদুল হক মামুন, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল খালেক, কুমিল্লা উত্তর জেলা সভাপতি মুফতি আমিনুল ইসলাম, লক্ষীপুর জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা মাহবুবুর রহমান, চাঁদপুর জেলা সভাপতি মাওলানা আরিফুল্লাহ, বি,বাড়িয়া জেলা সভাপতি মাওলানা হেলাল উদ্দীন ভূইয়া, নোয়াখালী জেলা সভাপতি মাওলানা মেছবাহ উদ্দীন, অধ্যাপক মাওলানা মোবারক হোসাইন বি.বাড়িয়া, মাওলানা শাহাদাত হোসাইন,প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন কুমিল্লা মহানগর উলামা-মাশায়েখ পরিষদ সভাপতি শায়খ মাওলানা আব্দুল ওয়াহেদ।
প্রধান অতিথি বলেন, পবিত্র রমযানে কঠোর সিয়াম সাধনার মাধ্যমে সুদ, ঘুষ, নেশা, মাদকতাসহ সকল ধরনের সামাজিক ব্যাধি ও অপরাধমুক্ত সমাজ বিনির্মাণে সুবর্ণ সুযোগ ও পরিবেশ রয়েছে। কাঙ্খিত এ অপরাধ, দুর্নীতি ও সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ গঠনে উলামা-মাশায়েখদেরকে অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা পালন করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরও কোন খুটির জোরে ষড়যন্ত্রকারীরা সুপ্রিমকোর্টের সামনে মূর্তি সরানো বিষয়ে ইদুর-বিড়াল খেলায় মেতেছে তা আমাদের বোধগম্য নয়। মূর্তি থাকবে মন্দিরে। কোন দর্শনীয় স্থানে মূতি রাখা যাবে না। আমাদের এ প্রিয় মাতৃভূমিতে কালের পর কাল বিভিন্ন মূর্তি তাদের মন্দিরেই নিরাপদে গচ্ছিত রাখা হতো। মুসলিম উম্মাহ কোনভাবেই অন্য ধর্মের ধর্মীয় অধিকার হরণ করেনি, ভবিষ্যতেও কোনদিন করবেও না। বরং জীবন বাজী রেখে সকল ধর্মের ধর্মীয় অধিকার পালনে সার্বিক সহযোগিতা করবে।
অধ্যক্ষ মাওলানা শফিকুল আলম হেলাল বলেন, উলামায়ে কেরাম সঠিক ভূমিকা পালন না করলে বাতিল চক্র সমাজকে ধ্বংস করবে। আমাদেরকে মানুষের মনের ভাষা বুঝতে হবে।
আল্লামা মুস্তাক ফয়েজী বলেন, ইসলামকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদের মোকাবেলায় সকল মারকায দরবারে উলামায়ে কেরামদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ