বুধবার ০৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে শ্রীলংকার বিপক্ষে আজ মাঠে নামবে দ: আফ্রিকা

আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির তৃতীয় ম্যাচে আজ মুখোমুখি হবে শ্রীলংকা ও দক্ষিণ আফ্রিকা। কেনিংটন ওভালে ‘বি’ গ্রুপে দু’দলের এই ম্যাচটি শুরু হবে আজ বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ৩টায়। চলতি বছর ওয়ানডে সিরিজে লংকানদের হোয়াইটওয়াশ করা প্রোটিয়ারা এবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেও সাফল্য অব্যাহত রাখতে চায়। তবে বরাবরই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভাল করা শ্রীলংকার লক্ষ্য এবারও ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখা। গেল জানুয়ারিতে দেশের মাটিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে শ্রীলংকাকে হোয়াইটওয়াশ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। তার আগে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে অস্ট্রেলিয়াকে হোয়াইটওয়াশ করে প্রোটিয়ারা। সম্প্রতি ওয়ানডে ফরম্যাটে দুর্দান্ত পারফরমেন্স করেছে তারা। যার সুবাদে আইসিসি ওয়ানডে র‌্যাংকিং-এর শীর্ষস্থানেই থেকেই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলতে নামবে দক্ষিণ আফ্রিকা। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির প্রথম আসরেই বাজিমাত করেছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা। তৎকালীন অধিনায়ক হ্যান্সি ক্রনিয়ের নেতৃত্বে ১৯৯৮ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিতব্য আইসিসি নকআউট ট্রফির প্রথম আসরের শিরোপা জিতেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। শুধুমাত্র দল হিসেবেই ওয়ানডে র‌্যাংকিং-এর শীর্ষে নয় দক্ষিণ আফ্রিকা।
দলের খেলোয়াড়রাও রয়েছেন র‌্যাংকিং-এ শীর্ষ পর্যায়ে। ব্যাটসম্যান তালিকায় শীর্ষে রয়েছে প্রোটিয়া অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স ও বোলারদের তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন পেসার কাগিসো রাবাদা। এমনকি শীর্ষ দশে ব্যাটসম্যানদের তালিকায় ডি ভিলিয়ার্স ছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকা দলে আছেন আরো তিন জন উইকেটরক্ষক কুইন্ট ডি কক, ফাফ ডু-প্লেসিস ও হাশিম আমলা। বোলার তালিকায় রাবাদার সাথে রয়েছেন দ্বিতীয় স্থানে থাকা লেগ-স্পিনার ইমরান তাহির। র‌্যাংকিং-এ দল ও দলের খেলোয়াড়দের অবস্থান নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স বলেন, ‘র‌্যাংকিং-এর শীর্ষে থেকেই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলতে নামবো আমরা। তাই আমাদের আত্মবিশ্বাসও দুর্দান্ত। তারপরও আমাদের কঠিন পরিশ্রম করতে হবে এবং একই সময়ে জয়ও তুলে নিতে হবে।’
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বরাবরই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভালো পারফর্ম করে আসছে শ্রীলংকা। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে যৌথভাবে দ্বিতীয় সর্বাধিক ১৩ ম্যাচ জয়ের স্বাদ পেয়েছে তারা। তবে সাম্প্রতিক সময়ে ৫০ ওভারের ফর্মেটে ভাল করতে না পারায় এবারের আসরে আন্ডারডগ হয়েই খেলতে নামবে লংকানরা। শ্রীলংকা দলের বোলিং আক্রমনের মূল ভরসা পেসার লাসিথ মালিঙ্গা। তবে হাঁটুর ইনজুরির কারণে ২০১৫ সালের নভেম্বর থেকে ওয়ানডে দলের বাইরে ছিলেন তিনি। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দলে মালিঙ্গা থাকাতে বাড়তি শক্তি পেয়েছে শ্রীলংকা। এমনটাই মনে করেন লংকার অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ, ‘গেল কয়েক বছর ধরে আমাদের দলের অন্যতম সেরা বোলার মালিঙ্গা এবং তাকে আমরা মিস করেছিলাম। তবে সে আবারো ওয়ানডে দলে ফিরেছে এবং আমরা আবারো তার পারফরমেন্স দেখার জন্য মুখিয়ে আছি।’ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচে কাফ ইনজুরিতে পড়া ম্যাথুজের খেলা নিয়ে একনো সন্দেহ রয়েছে। যে কারণে এজন্য নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতিমূলক ম্যাচে খেলতে পারেননি এ অলরাউন্ডার। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির প্রস্তুতিটা ভালো হয়নি শ্রীলংকা। স্কটল্যান্ডের কাছে এক ম্যাচে হারের পর অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের কাছে দু’টি প্রস্তুতিমূলক ম্যাচেও হারের লজ্জা পায় লংকানরা। লংকানদের বিশ্বাস স্পিন বোলিং-এ সবসময়ই দুর্বল দক্ষিণ আফ্রিকা। তাই বাঁ-হাতি স্পিনার লক্ষণ সান্দাকানকে নিয়ে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে নিজেদের পরিকল্পনা সাজাচ্ছে শ্রীলংকা। এখন পর্যন্ত লংকানদের হয়ে মাত্র ৬টি ওয়ানডে খেললেও তাকে মোকাবেলা করাটা প্রতিপক্ষের জন্য কঠিন হবে মনে করছে শ্রীলংকা।
শ্রীলংকা দল (সম্ভাব্য) : অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ (অধিনায়ক), উপুল থারাঙ্গা (সহ-অধিনায়ক), নিরোশান ডিকবেলা, কুশল পেরেরা, কুশল মেন্ডিস, চামারা কাপুগেদেরা, আসলে গুনারত্নে, দিনেশ চান্ডিমাল, লাসিথ মালিঙ্গা, সুরাঙ্গা লাকমল, নুয়ান প্রদীপ, নুয়ান কুলাসেকেরা, থিসারা পেরেরা, লক্ষণ সান্দাকান ও সেক্কুগে প্রসন্ন।
দক্ষিণ আফ্রিকা দল(সম্ভাব্য) : এবি ডি ভিলিয়ার্স (অধিনায়ক), হাশিম আমলা, কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), ফাফ ডু-প্লেসিস, জেপি ডুমিনি, ডেভিড মিলার, ক্রিস মরিস, ওয়েন পার্নেল, আন্দিল ফেলুকুইয়াও, কাগিসো রাবাদা, ইমরান তাহির, ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস, কেশব মহারাজ, ফারহান বেহারদিয়ান ও মরনে মরকেল। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ