শুক্রবার ১৭ জুলাই ২০২০
Online Edition

সেমিফাইনালে আজ রহমতগঞ্জ চট্টগ্রাম আবাহনী মুখোমুখি

স্পোর্টস রিপোর্টার : ফেডারেশন কাপ ফুটবলের সেমিফাইনালে রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটির মুখোমুখি চট্টগ্রাম আবাহনী। আজ শুক্রবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় সেমিফাইনাল ম্যাচটি শুরু হবে। নাম-যশ-তারকা ভারিক্কিতে পুরনো ঢাকার দলের চেয়ে কাগজে-কলমে এগিয়ে চট্টগ্রামের দলটি। কিন্তু মাঠের খেলায়, বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়ার মতো কোচ নন কামাল বাবু, শিষ্যদের প্রতি তার মূল মন্ত্রÑ ‘দিন শেষে ভালো কিছু পেতে জয়ের জন্য শেষ পর্যন্ত মরিয়া হয়ে খেলো।’  সেভাবেই তাড়িত হয় ছেলেরা; মাঠেও বারুদের মতো জ্বলে ওঠেন। এভাবেই তো গত মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগের প্রথম পর্ব শেষ করেছিল রহমতগঞ্জ শীর্ষে থেকে, যা ১৯৩৩ সালে প্রতিষ্ঠিত ক্লাবটির ৮৪ বছরের ইতিহাসে প্রথম। প্রায় অর্ধেক বয়স চট্টগ্রাম আবাহনীর! কিন্তু অর্থ-বিত্ত-বৈভবে প্রভাবশালী। গত মৌসুমে তারকা নির্ভর দল গড়ে ‘নব শক্তি’  রূপে আবির্ভূত হয় বন্দরনগরীর ক্লাবটি। স্বাধীনতা কাপ জিতলেও অধরা ছিল ফেডারেশন কাপ, রানার্সআপ হয় প্রিমিয়ার লিগে। একঝাঁক তারকা ফুটবলার সমৃদ্ধ চট্টগ্রাম আবাহনীর কোচ সাইফুল বারী টিটু। ২০১৬-১৭ মৌসুমেও কম যাবে না পুরনো ঢাকার দলটি- ফেডারেশন কাপে ইঙ্গিত দিচ্ছেন কামাল বাবু শিষ্যরা। তাছাড়া প্রথমবার এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওঠার হাতছানি পুরানো ঢাকার দলটির সামনে। গ্রুপ পর্বে টিম বিজেএমসিকে ৩-০ গোলে হারানোর পর ব্রাদার্সের বিপক্ষে ড্র (০-০); শেষ আটে মুক্তিযোদ্ধাকে রীতিমত বিধ্বস্ত করে ৩-০ গোলে!

নাম বিচারে রহমতগঞ্জের তুলনায় হয়তো এগিয়ে চট্টগ্রাম আবাহনী। কিন্তু সাম্প্রতিক সময় ঘরোয়া ফুটবলে মাঠের খেলায় কোন দলকে খাটো করে দেখলে বিপদ। গত মৌসুমে সব দলকে নাকানি-চুবানি দিয়েছিল রহমতগঞ্জের মতো আরামবাগও। খেলেছিল ফেডারেশন কাপের ফাইনালে। মতিঝিলপাড়ার দলটির দায়িত্বে ছিলেন টিটু। এবার চট্টগ্রাম আবাহনীর দায়িত্¦ে জাতীয় দলের সাবেক এই কোচ। তবে তার অধীনে শেখ কামাল ক্লাব কাপে প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হয়েছিল স্বাগতিকরা। চলতি টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বে আরামবাগ ও মোহামেডানকে হারিয়েছে ২-১ গোলে, কোয়ার্টার ফাইনালে শেখ রাসেলের বিপক্ষে জয় টাইব্রেকারে। শেষ চারে ‘আধুনিক’  কোচ সাইফুল বারী টিটুকে অনেকটা চ্যালেঞ্জ দিয়ে রেখেছেন কামাল বাবু। ‘গত মৌসুমের দলটা হয়তো এবার নেই, কিন্তু যারা এসেছে সবার মধ্যে দলের প্রতি কমিটমেন্ট রয়েছে। ভালো খেলার সামর্থ-যোগ্যতা প্রমাণ দিতে সবাই মুখিয়ে রয়েছে।’  মনে করিয়ে দিলেন, ‘টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি গোল রহমতগঞ্জের।’ সেমিফাইনাল প্রসঙ্গে টিটু বলেলেন, ‘এটা নকআউট পর্ব। এখানে ছোট-বড় দল বলে কিছু নেই। এখানে সবাই ভালো খেলতে সামর্থের সবটুকু দিতে চায়। ফলে কাউকে হালকাভাবে নিলে বিপদ নিজেদের।’  চট্টগ্রাম আবাহনীর প্রথম ফেডারেশন কাপ ফাইনালে খেলার হাতছানি। তাই সুযোগ কাজে লাগাতে শতভাগ চেষ্টা করবেন মামুনুলরা। উপভোগ্য ম্যাচ উপহার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দুই কোচের। কিন্তু ‘খেলা হবে তো’ Ñ এমন প্রশ্নও উঁকি দিয়েছে কাল বিকাল থেকে! কেননা, বৈরি আবহাওয়া অব্যাহত থাকলে শেষ পর্যন্ত স্থগিত হতে পারেÑ এমন আভাস মিলেছে খোদ বাফুফে থেকে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ