শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

বাস্তবতা বুঝতে হবে আমরা কোথায় আছি -মাশরাফি

স্পোর্টস রিপোর্টার : বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে আজ শুরু হচ্ছে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি নিয়ে গতকাল প্রত্যাশার কথা জানান অধিনায়ক মাশরাফি।  মাশরাফি বলেন, ‘প্রত্যাশা তো অনেক। লোকে ভাবছে এবার আমরা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরব! প্রত্যাশার শেষ নেই। তবে লোকের বুঝতে হবে বাস্তবতা। আমাদের বুঝতে হবে আমরা কোথায় আছি।’ নিজেদের পারফরমেন্স নিয়ে মাশরাফি বলেন,‘সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো আমরা উন্নতি করছি কি না। র‌্যাঙ্কিংয়ে যেমন একটু একটু করে আমরা এগিয়েছি। দশ থকে নয়ে, আট-সাত হয়ে এখন ছয়ে। মানে প্রাফটা ঊর্ধ্বমুখী। এটাই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ।’ ভিন্ন  কন্ডিশনে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া, দুর্দান্ত ফর্মে থাকা স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও র‌্যাঙ্কিংয়ে ওপরে থাকা নিউ জিল্যান্ডের গ্রপে বাংলাদেশের কাজটা শুধু কঠিনই নয়, বাস্তবতার বিবেচনায় ভীষণ রকম চ্যালেঞ্জিং। অধিনায়ক বোঝাতে চাইলেন সেটিই। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ফেবারিট না হলেও চমকে দেয়ার প্রত্যায় নিয়ে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। ১১ বছর পর বাংলাদেশ আবারও খেলছে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি। প্রথম ম্যাচে প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ইংল্যান্ড। এরপর অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে নিজেদের নাম লিখিয়ে বাংলাদেশ প্রমান করেছে শক্তি ও সামর্থ্যরে। এবার তিন বড় প্রতিপক্ষের বিপক্ষে লড়াইয়ের পালা। বিভিন্ন গণমাধ্যম বলছে, বাংলাদেশ চমকে দিতে পারে।
টাইগারদেরও বিশ্বাস তারা চমকে দিতে পারবে। ব্যাটিং-বোলিং সবদিক থেকেই বাংলাদেশ শক্তিশালী। তবে ব্যাটিং বিভাগই এগিয়ে থাকছে। তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ ও সাকিব আল হাসানদের উপর ব্যাটিং নির্ভর করছে। তাদের সঙ্গে রয়েছে সৌম্য, সাব্বির ও  মোসাদ্দেকরা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দ্যূতি ছড়ানো শুরু করা মেহেদী হাসান মিরাজও রয়েছেন। সব মিলিয়ে ব্যাটিংয়ে পুরো দলই ব্যালেন্স। তবে ভালো ফল পেতে হলে অবশ্যই তামিম, সাকিব, মুশফিক, সাকিবদের জ্বলে উঠতে হবে। বোলিংয়ে ১৭৩ ওয়ানডে খেলার মাশরাফি বিন মুর্তজা রয়েছেন। সাথে আছে মোস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন। দারুণ ছন্দে আছেন রুবেল হোসেন। ইংলিশ কন্ডিশনে দারুণ বল করছেন ডানহাতি এ পেসার।
২০১৫ বিশ্বকাপের মতো রুবেল এবার ‘এক্স-ফ্যাক্টর’ হয়ে উঠতে পারেন। তবে সবার চোখ থাকবে মোস্তাফিজুর রহমানের দিকে। বৈশ্বিক কোনো টুর্নামেন্টের বড় কোনো আসরে এবারই মুস্তাফিজ প্রথম খেলতে যাচ্ছেন। দ্বিপাক্ষিক সিরিজগুলোতে ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করা মোস্তাফিজ বিশ্বমঞ্চে কেমন করে সেটাই দেখার অপেক্ষা। দলের সামর্থ্য থাকলেও কন্ডিশন সবথেকে বড় বাঁধা বাংলাদেশের। ২০১০ সালের পর এ কন্ডিশনে খেলার অভিজ্ঞতা নেই কোনো ক্রিকেটারের।
তামিম-সাকিব কাউন্টি ক্রিকেট খেললেও তা দীর্ঘদিন আগের কথা। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে বাংলাদেশের একমাত্র জয় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। তবে ১১ বছর পর একই মঞ্চে বাংলাদেশ গ্রুপ পর্বে বড় কোনো দলকে হারাবে এমনটাই প্রত্যাশা অধিনায়ক মাশরাফির।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ