বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে কুকুরের কামড়ানোর ভ্যাকসিনের তীব্র সংকট

সিরাজগঞ্জ সংবাদদাতা : সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে কুকুের কামড়ানো ভ্যাকসিনের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে।  জেলার বিভিন্ন  স্থান থেকে রোগী আসলে তাকে হাসপাতাল সংলগ্ন ওষুধের দোকানে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। হাসপাতাল সংলগ্ন ওষুধের দোকানগুলোতে উচ্চ মূল্যে এই ভ্যাকসিন বিক্রি হচ্ছে। গত প্রায় দেড় মাস যাবৎ সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে কুকুর কামড়ানো প্রতিরোধক ভ্যাকসিন পাওয়া যাচ্ছে না। জেলা সদর ছাড়াও ৯টি  উপজেলা থেকে কুকুর কামড়ানোর রোগী আসছেন প্রতিদিন। তাদের বলে দেওয়া হচ্ছে ভ্যাকসিন সরবরাহ নেই তাই দেওয়া সম্ভব নয় তবে হাসপাতালের গেটে অনেকগুলো ওষুধের দোকানে রয়েছে, সেখানে গেলেই কিনতে পাওয়া যাবে। ওষুধের দোকানে গিয়ে ৪/৬শ টাকা  দিয়ে কুকুর কামড়ানো ভ্যাকসিন অনেক দরিদ্র রোগীদের কেনা সম্ভব হয় না। এ ব্যাপারে সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা: মোঃ আকতারুজ্জামান জানান, হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক সাহেবের বদলীজনিত জটিলতার কারণে সেন্ট্রাল ষ্টোর থেকে ভ্যাকসিন আনা সম্ভব হয়নি। তবে জটিলতা কেটে গেছে দুই/এক দিনের মধ্যেই সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে।

দ্রব্যমূল্য লাফিয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে রমজানকে সামনে রেখে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। বিশেষ করে রোজাদাররা বুট ও  মুড়ি দিয়ে ইফতার করেন। সেই বুট ও মুড়ির মূল্য লাফিয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। সিরাজগঞ্জের কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে চাল, ডাল ও সবজির দাম হঠাৎ করেই আরেকদফা বৃদ্ধি পেয়েছে।  সকল প্রকার ডাল প্রতিকেজি ১০/১২ টাকা এবং সকল প্রকার সবজির দাম প্রতিকেজিতে ১০টাকা বেড়েছে। ছোলার দাম বেড়েছে প্রতিকেজিতে ২০ টাকা, ৭০/৭৫ টাকার ছোলা ৯০/৯৫ টাকায় উঠেছে। মুড়ি ৬০/৭০টাকা থেকে এক লাফে ১০০ থেকে ১১০ টাকা কেজি দরে  বিক্রি হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ