ঢাকা, বুধবার 3 June 2020, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১০ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

পুতিন ও ম্যাকরনের মধ্যে ‘কঠিন’ কিন্তু ‘খোলাখুলি’ আলোচনা

সোমবার ফ্রান্সের ভার্সেই নগরীতে বৈঠকে মিলিত হন ম্যাকরন ও পুতিন

অনলাইন ডেস্ক: রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনের সঙ্গে তার আলোচনাকে ‘কঠিন’ কিন্তু ‘খোলাখুলি’ বলে বর্ণনা করেছেন।

সোমবার ফ্রান্সের ভার্সেই নগরীতে অনুষ্ঠিত বৈঠকে পুতিন ও ম্যাকরন দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক শক্তিশালী করার পাশাপাশি সহযোগিতার ভিত্তিতে আন্তর্জাতিক সমস্যাবলী বিশেষ করে সিরিয়া ও ইউক্রেন সমস্যা সমাধানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।

ভার্সেই প্রাসাদে দুই প্রেসিডেন্টের মধ্যে টানা তিন ঘণ্টা আলোচনা হয়। ঘটনাক্রমে ফ্রান্সে তৎকালীন রুশ সম্রাট পিটার দ্যা গ্রেটের কূটনৈতিক সফরের ৩০০তম বার্ষিকীর সঙ্গে এই বৈঠকের সময়টি মিলে যায়। পিটার দ্যা গ্রেট ১৭১৭ সালে ফ্রান্স সফর করেছিলেন।

বৈঠক শেষে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেন, “বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সমস্যা সমাধানের ক্ষেত্রে আমরা অভিন্ন অবস্থান খুঁজে বের করার চেষ্টা করেছি। আমি মনে করি আমরা সে চেষ্টায় সফলও হয়েছি।  চলমান সংকটগুলো সহযোগিতার ভিত্তিতে নিরসনের চেষ্টা শুরু করতে অন্তত আমরা সম্মত হয়েছি।”

পুতিন বলেন, বেশ কিছু বিষয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে তার মতপার্থক্য থাকলেও  আরো অনেক বিষয়ে তারা দু’জন অভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করেন।  এ বিষয়টি প্যারিস-মস্কো সম্পর্ক উন্নয়নে সহায়তা করবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

বৈঠকের ব্যাপারে তার প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাকরন বলেন, “বিশ্বের কোনো বড় সমস্যা রাশিয়াকে ছাড়া সমাধান করা সম্ভব নয়। ” বিভিন্ন বিষয়ে মস্কোর সঙ্গে সহযোগিতা শক্তিশালী করার আশা ব্যক্ত করেন তিনি; বিশেষ করে সিরিয়ার চলমান সংঘাত নিরসনের ওপর বিশেষভাবে জোর দেন প্রেসিডেন্ট ম্যাকরন।  শুধুমাত্র রাজনৈতিক উপায়ে সিরিয়া সংকটের সমাধান সম্ভব বলেও মত দেন তিনি।

ফ্রান্সের নয়া প্রেসিডেন্ট ম্যাকরনের আমন্ত্রণে দেশটি সফর করলেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন।সাম্প্রতিক নির্বাচনের আগে ম্যাকরন রাশিয়ার বিরুদ্ধে অনেক শক্ত কথা বলার কারণে পুতিনের এ সফর নিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নানা জল্পনা চলছিল।-পার্স টুডে

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ