শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপি নেতা মহিউদ্দিনকে তুলে নেয়ার অভিযোগ

চট্টগ্রাম অফিস : চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অধ্যাপক শেখ মোহাম্মদ মহিউদ্দিনকে রাজধানীর আরামবাগ থেকে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে গেছে। বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সাংবাদিক সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি জাফরুল ইসলাম। মহিউদ্দিনের আটকের খবরে তার পরিবার ও দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে চরম উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাামে ফেরার জন্য আরামবাগ বাস কাউন্টারে গেলে সেখানে রাত পৌনে ১২টার দিকে সাদা পোশাকধারী ৭/৮ জন নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে মহিউদ্দিনকে মাইক্রোতে তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়।

সাংবাদিক সম্মেলনে জাফরুল ইসলাম জানান, আমাদের জানামতে শেখ মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের নামে কোন মামলা নেই। আর যদি তার নামে মামলা থেকেও থাকে তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে হাজির করা হোক। হয় তাকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হোক, না হয় গ্রেফতার করে আদালতে হাজির করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুরোধ জানান তিনি। 

সাংবাদিক সম্মেলনে বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামিম, মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি আবু সুফিয়ানসহ দলের অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন। 

এদিকে তুলে নিয়ে যাওয়ার সময় শেখ মো. মহিউদ্দিনের সঙ্গে থাকা তার বন্ধু এনামের বরাত দিয়ে মিসেস মহিউদ্দিন (লাকি আক্তার) রাত আড়াইটায় জানান, রাত সাড়ে ১০টার দিকে আমার সাথে উনার সর্বশেষ ফোনে কথা হয়েছিল। তখন তিনি বলেছিলেন চট্টগ্রাম আসার জন্য বাসের টিকেট নিতে আরামবাগ বাস কাউন্টারে যাচ্ছেন। এরপর রাত পৌনে ১২টার দিকে এনাম নামে উনার একজন বন্ধু (ব্যবসায়িক পাটনার) মোবাইলে আমাদের জানান, ডিবি পরিচয়ে ৭/৮ জন পুলিশ এসে তাকে জিজ্ঞেস করেন তিনি প্রফেসর মহিউদ্দিন কিনা। উনি হ্যা বলার পর বলেন, আপনি আমাদের সাথে আসুন আমরা ডিবি টিম। এ কথা বলেই মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। এর পর থেকে উনাকে (মহিউদ্দিন) মোবাইল ফোনে পাওয়া যাচ্ছে না।

ঢাকায় অবস্থানরত দক্ষিণ জেলা বিএনপি নেতা মোহাম্মদ মহসিন জানান, আমরা আমাদের দলীয় লোকজনকে মতিঝিল, পল্টন থানা এবং ডিবি অফিসে পাঠিয়ে খবর নেয়া হয়েছে। সেখানে কর্তব্যরত অফিসাররা শেখ মো. মহিউদ্দিনকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ