মঙ্গলবার ২৪ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ড রানার্সআপ বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার : ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হতে পারলো না বাংলাদেশ। চ্যাম্পিয়ন হওয়ার আত্মবিশ্বাস নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজে পা রেখেছিল বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিলেও বৃষ্টির কারণে পয়েন্ট ভাগাভাগি করতে হয়েছে তাদের। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে মাশরাফি মুর্তজারা হেরেছে নিউজিল্যান্ডের কাছে। সেই নিউজিল্যান্ড চার ম্যাচের টানা তিনটি জিতে চ্যাম্পিয়ন হয়ে গেল। আয়ারল্যান্ডকে ১৯০ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করেছে তারা। ত্রিদেশীয় সিরিজের কোনো ফাইনাল ছিলনা। তাই ৩ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে নিউ জিল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন হয়ে গেল এক ম্যাচ আগেই। সমান ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশের রানার্সআপ হাওয়া নিশ্চিত। সব ম্যাচ খেলে ফেলা স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের ঝুলিতে মাত্র ২ পয়েন্ট। তিন ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে থাকা বাংলাদেশ শেষ ম্যাচ খেলবে আগামীকাল। প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। সিরিজ বিবেচনায় এই ম্যাচটি তাই শুধুই আনুষ্ঠানিকতা রক্ষার। তবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আগে ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর সুযোগ হতে পারে। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৮ উইকেটে জেতার পর শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টানা জয়ের চেয়ে ভালো আর কী হতে পারে মাশরাফি-সাকিবদের জন্য। তাই সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ হারালেও বাংলাদেশ চাইবে শেষ ম্যাচটি জিততে। সিরিজে নিজেদের শেষ ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছিল আয়ারল্যান্ড। শুরু থেকে তাদের চেপে ধরে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। টম ল্যাথাম সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন। ১০৯ বলে সেঞ্চুরি করেন তিনি। শতক হাঁকানোর দুই বল পরে থামে তার ৯ চার ও ৪ ছয়ে সাজানো ১০৪ রানের ইনিংস। রস টেলর ৬৪ বলে করেন ৫৭ রান। তবে শেষদিকে কলিন মুনরোর ঝোড়ো ইনিংস নিউজিল্যান্ডের স্কোরবোর্ডকে শক্তিশালী করে তোলে। ১৫ বলে তিনি ৩ চার ও ৪ ছয়ে ৪৪ রান করেন। ৫০ ওভারে কিউইরা ৬ উইকেটে করে ৩৪৪ রান। আয়ারল্যান্ডের ক্রেইগ ইয়ং ও পিটার চেজ নেন ২টি করে উইকেট। জবাব দিতে নেমে নিউজিল্যান্ডের বোলারদের সামনে প্রতিরোধ গড়তে ব্যর্থ হয় স্বাগতিক ব্যাটসম্যানরা। ৪৮ রানের সেরা ইনিংস খেলেন আইরিশ অধিনায়ক উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড। গ্যারি উইলসনের ব্যাটে আসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩০ রান। মাত্র ৩৯.৩ ওভারে ১৫৪ রানে গুটিয়ে যায় আয়ারল্যান্ড। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে সবচেয়ে বেশি ৩ উইকে নেন ম্যাট হেনরি। দুটি করে পেয়েছেন কোরি অ্যান্ডারসন ও স্কট কুগেলেইন। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

নিউজিল্যান্ড: ৫০ ওভারে ৩৪৪/৬ (রনকি ৩৫, ল্যাথাম ১০৪, ব্রুম ৩৮, টেইলর ৫৭, অ্যান্ডারসন ২০, স্যান্টনার ২০*, মানরো ৪৪*, মিল্ন ১০*; ইয়াং ২/৮২, চেইস ২/৬৯, ডকরেল ১/৬৫, ম্যাককার্থি ১/৬৫, সিমি ০/৩৮, স্টার্লিং ০/১৯)।

আয়ারল্যান্ড: ৩৯.৩ ওভারে ১৫৪ (জয়েস ১৭, স্টার্লিং ০, পোর্টারফিল্ড ৪৮, বালবার্নি ০, নায়াল ও’ব্রায়েন ৫, উইলসন ৩০, সিমি ০, ডকরেল ১৬, ম্যাককার্থি ১৬*, ইয়াং ১, চেইস ১৪; হেনরি ৩/৩৬, মিল্ন ১/২৯, অ্যান্ডারসন ২/১৫, কাগেলেইন ২/১৭, স্যান্টনার ১/২৭, সোধি ১/২৫)।

ফল: নিউ জিল্যান্ড ১৯০ রানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: টম ল্যাথাম

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ