রবিবার ০৯ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বগুড়ার শেরপুরে কাবেরী জাতের ভুট্টা চাষ কৃষকদের মাঝে সাড়া জাগিয়েছে

শেরপুর (বগুড়া) সংবাদদাতা: বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় উচ্চ ফলনশীল কাবেরী-৫০ জাতের ভুট্টা কৃষকদের মাঝে সাড়া জাগিয়েছে। চলতি মৌসুমে রাসেল সীড প্রাইভেট কোম্পানির আমদানিকৃত এই জাতের ভুট্টা চাষ করে প্রান্তিক চাষীরা বেশ লাভবান হয়েছেন। তাই এই জাতের ভুট্টা চাষে কৃষকদের আগ্রহও বাড়ছে। ফলে প্রতিবছরই কাবেরী জাতের ভুট্টা চাষের জমির আওতা বাড়িয়ে দিচ্ছেন। উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের শালফা গ্রামের কৃষক মহব্বত আলী জানান, তিনি এবছর ৫বিঘা জমিতে কাবেরী-৫০জাতের ভুট্টা চাষ করেছেন। ইতিমধ্যে ২বিঘা জমির ফসল ঘরেও তুলেছেন। বিঘাপ্রতি ফলন হয়েছে ৪৫ মণ হারে। আর বর্তমান বাজার অনুযায়ী ভুট্টা বিক্রি করে বেশ লাভবান হচ্ছেন বলেও এই কৃষক জানান। একই কথা বলেন শুভলী গ্রামের ভুট্টা চাষী ইউসুফ আলী, দত্তপাড়ার বজলুর রহমান ও গোপালপুর গ্রামের তছলিম উদ্দিন। তারা আরও জানান, বিগত কয়েক বছর আগে এই উপজেলার কৃষকদের আবাদ তালিকার শীর্ষে ছিল ভুট্টা চাষ। কিন্তু ভাল বীজের অভাবে ভুট্টা চাষ কমতে শুরু করে। এমনকি কৃষকের আবাদ তালিকায় পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। ভুট্টা চাষের চেয়ে অন্যান্য ফসল চাষের দিকে কৃষক ঝুঁকে পড়েন। তবে বর্তমানে সেই চিত্র আর নেই। উচ্চ ফলনশীল রকমারি জাতের ভুট্টা বীজ কৃষকদের মাঝে সাড়া জাগিয়েছে। বিশেষ করে কাবেরী-৫০ জাতের ভুট্টা চাষ করে স্থানীয় কৃষকরা  লাভবান হচ্ছেন। ফলে তারা স্বাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি ফিরে পেয়েছেন আর্থিক সচ্ছলতা। বিষয়টি স্বীকার করে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা খাজানুর রহমান জানান, চলতি মৌসুমে এই উপজেলায় ১হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষ করা হয়েছে। এর সবই উচ্চ ফলনশীল জাতের ভুট্টা। তাই এসব জমিতে এবার বাম্পার ফলন হচ্ছে। বিঘাপ্রতি ৪০-৪৫ মণ হারে ফলন হচ্ছে বলে এই কর্মকর্তা জানান। এদিকে কাবেরী-৫০জাতের ভুট্টা কর্তন উপলক্ষে মাঠ দিবসের অনুষ্ঠানে রাসেল সীড কোম্পানির চেয়ারম্যান সাজাহান আলী বলেন, কৃষকদের হাতে ভাল বীজ তুলে দিতে তার প্রতিষ্ঠান বদ্ধপরিকর। এছাড়া তিনি কৃষকদের উন্নয়নে সবসময় তাদের পাশে থাকবেন বলেও দৃঢ অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ