সোমবার ১৩ জুলাই ২০২০
Online Edition

ভিকারুননিসা স্কুলের সফলতার ধারা অব্যাহত

 

স্টাফ রিপোর্টার : এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ফল ঘোষণার পর রাজধানীর অন্যতম সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজে শিক্ষার্থীরা আনন্দে মেতে ওঠে। প্রতিষ্ঠনটি এবারও সফলতার ধারা অব্যাহত রেখেছে।

প্রতিষ্ঠানটিতে এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৩৬৮ জন। ভাল ফলাফলে পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে শিক্ষক ও অভিভাবকরাও আনন্দ-উৎসবে অংশ নেন। ঢাকঢোল বাজিয়ে, নেচে-গেয়ে ও হৈ-হুল্লোড়ে মেতে ওঠে শিক্ষার্থীরা। উৎসবে রয়েছে নানা বৈচিত্র্য।

গান আর বাদ্যের তালে তালে নেচে-গেয়ে নিজেদের সফলতার জানান দেয় তারা। শিক্ষার্থীদের কেউ কেউ ভি-চিহ্ন দেখিয়ে, আবার কেউ কেউ সেলফি তুলে আনন্দ করে।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে ফলাফলের সার্বিক বিষয় তুলে ধরেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মোসাম্মৎ সুফিয়া খাতুন। তিনি বলেন, ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজের আজিমপুর, ধানমন্ডি, বসুন্ধরা, ইংরেজি ভার্সনসহ সব কটি শাখায় ১ হাজার ৫৯৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ১ হাজার ৫৯৫ জন। ফেল করেছে একজন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৩৬৮ জন। পাসের হার ৯৯ দশমিক ৯৪ ভাগ। বিজ্ঞান বিভাগের ১ হাজার ৩৬৯ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১ হাজার ৩১২ জন, বাণিজ্য বিভাগের ২০৯ জনের মধ্যে ৫৬ জন জিপিএ ৫ পেয়েছে। ফেল করেছে একজন। মানবিক বিভাগের ১৮ জনের মধ্যে সবাই পাস করলেও একজনও জিপিএ ৫ পায়নি।

সুফিয়া খাতুন বলেন, আমাদের এ সাফল্য সবার ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফল। শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবক, পরিচালনা কমিকটির সবার সমন্বিত প্রচেষ্টার ফলে আমাদের  সফলতা অর্জিত হয়েছে।

এসএসসি পাস করে যারা সফলতার সঙ্গে এইচএসসিতে ভর্তি হবে তাদের পড়াশোনার প্রতি আরো মনযোগী হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। তিনি বলেন, এইচএসসির সিলেবাস বড়। তাই আরো সিরিয়াসলি পড়াশোনা করতে হবে।ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক নাজনীন ফেরদৌস বলেন, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে এ ফল অর্জিত হয়েছে।

অভিভাবক তানিয়া রেজা বলেন, মেয়ের পরীক্ষার ফল নিয়ে খুব চিন্তায় ছিলাম। সে জিপিএ-৫ পেয়েছে। আমার খুব ভাল লাগছে। ওর বাবা ব্যবসায়ী। তিনি শুনেও খুব খুশি হয়েছেন। আমাদের এতদিনের কষ্ট সফল হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ