সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

আ’লীগের পালাবার সময় হয়ে গেছে -খালেদা জিয়া

স্টাফ রিপোর্টার : ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের পালাবার সময় হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। তিনি বলেছেন, আমরা (বিএনপি) অবশ্যই নির্বাচন চাই। নির্বাচনে আমরা যেতেও চাই। তবে সে নির্বাচন হতে হবে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে। হাসিনার অধীনে এতদিন যতগুলো নির্বাচন দেখেছি সেগুলো সুষ্ঠু হয়নি। তাদের দলের সেক্রেটারি জেনারেলের (ওবায়দুল কাদের) বক্তব্যে তা জাতির কাছে পরিষ্কার হয়ে গেছে। তিনি বলেন, একটা দলের সেক্রেটারি জেনারেল যা বলে তা থেকে বুঝে নেয়া যায় তিনি তা বানিয়ে বানিয়ে বলছেন না, আর এমনি এমনি তো বলেছেনই না। তাই তাদের পালাবার সময় হয়ে গেছে। তারা এখন সম্পদ গুটাতে ব্যস্ত। কাজেই তারা পালাবার জন্য তৈরি হোক, আর আমরা জনগণের জন্য দেশ রক্ষার জন্য অধিকার রক্ষায় তৈরি হই। সেভাবেই তৈরি হতে হবে। গুলশানে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে পয়লা মে শ্রমিক দিবস ও ২ মে শ্রমিক দলের ৩৮ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
খালেদা জিয়া বলেন, আমাদের অনেকেই পাশ থেকে বলে দেয়, আপনারা কেন বসে আছেন? আপনারা কিছু একটা করেন। আমাদের এই অবস্থা থেকে রক্ষা করেন। তিনি বলেন, আমরা গণতন্ত্রের মাধ্যমেই দেশের মানুষের যে অধিকার, সেটি আমরা ফিরিয়ে আনবো। সেই অধিকার ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজন সংগঠন। তিনি বলেন, ইতোমেধ্য আমাদের কাউন্সিলের মাধ্যমে মূল দল হয়েছে। অন্যান্য সংগঠনগুলোর পুর্নগঠিত হয়েছে। যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল মহিলা দল হয়েছে। সারাদেশে বিভিন্ন জেলায় দল সংগঠিত হচ্ছে। মহানগর পুনর্গঠিত হয়েছে।
আওয়ামী লীগের উদ্দেশ্যে বিএনপি চেয়ারপার্সন বলেন, পুলিশের সহায়তায় তারা সাধারণ মানুষের ওপর অত্যাচার করছে। ভাবছে পুলিশ দিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকবে। সেই জন্যই তারা বলছে, ‘আগামী নির্বাচনে যদি আমরা (আওয়ামী লীগ) কোনোভাবে না আসতে পারি। তাহলে কিন্তু আমাদের খাপারভাবে যে পয়সা বানিয়েছি তা রক্ষা হবে না। ’ তাহলে বুঝতে পারছেন দেশে মানুষের মধ্যে তাদের অবস্থান নেই। তিনি বলেন, সেই জন্যই আমরা বার বার বলেছি এদের অধীনে কখনই সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। যতগুলো নির্বাচন হয়ে গেলো। কুমিল্লা নির্বাচন হয়ে গেলে সেখানে আমরা জিততাম ৫০ হাজার ভোটে সেখানে জিতেছি ১০ হাজার ভোটে। কত রকম চুরি করা হয়েছে।
যতই আমাদের সংগঠগুলো শক্তিশালী হবে ততই লুটেরাদের ভয় বাড়বে বলে মন্তব্য করেন খালেদা জিয়া। আওয়ামী লীগের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, লুটেরাদের জনগণ ভোট দিবে না। ৫ জানুয়ারি ১৫৪টি আসন চুরি করে নিয়েছিল। এবার সেটাও সম্ভব হবে না। কাজেই গণতন্ত্রে যারা বিশ্বাস করে তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে আসে, আবার জনগণের ভোট দেবে সেটা মাথায় রেখে কাজ করা উচিত। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মানুষকে মানুষ মনে করে না। তারা মনে করে পুলিশ বাহিনী আছে, তাদের দিয়ে যা ইচ্ছা তাই করতে পারব্।ো গুম, হত্যা, খুন ১০ বছর ধরে এই কাজ করছে। এগুলো প্রত্যেকের হিসাবে আছে। যারা আপনজন হারিয়েছে তাদের মনে আছে। পুলিশ সরকারের নির্দেশে বাধ্য হয়ে এ কাজগুলো করছে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপি প্রধান।
শ্রমিক দলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সকলকে সাথে নিয়ে, দরকারে হলে ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচন করতে হবে। শুধু ঢাকাতে নয় সারাদেশে শ্রমিক দলকে সুসংগঠিত করতে হবে।
এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীল, স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম খান নাসিম, শ্রমিক দল নেতা সালাহ উদ্দিন সরকার, আবুল খায়ের খাজা, মো. আবুল হোসেন, মহানগর দক্ষিণের সভাপতি কাজী আমীর খসরু, মহানগর উত্তরের সভাপতি জুলফিকার মতিন, দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম বাদল, উত্তরের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম রাজা প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ