মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

সিরিয়ায় মার্কিন হামলা প্রসঙ্গে ট্রাম্পকে সৌদি বাদশাহর ধন্যবাদ

৮ এপ্রিল, আনাদুলো এজেন্সি/গালফ নিউজ/প্রেসটিভি : সিরিয়ায় ৫৯টি টমাহক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার জন্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ফোন করে ধন্যবাদ জানালেন সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ। গত শুক্রবারই বাদশাহ সালমান ফোন করেছিলেন বলে জানিয়েছে সৌদি রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা এসপিএ। ফোনালাপের সময়ে ট্রাম্পের সিরিয়া হামলাকে ‘সাহসী সিদ্ধান্ত’ হিসেবে অভিহিত করেন তিনি।
এদিকে, সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা এসপিএকে বলেন, সিরিয়ায় সামরিক লক্ষ্যবস্তুর বিরুদ্ধে মার্কিন হামলাকে পুরোপুরি সমর্থন করেছে রিয়াদ। এছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাতের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ডঃ আনোয়ার বিন মোহাম্মদ গালগাস সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সমর্থন ও প্রশংসা করে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে একাত্মতা ঘোষণা করেছেন।
সিরিয়ায় রাসায়ানিক বোমা হামলার জন্যে আমিরাতের মন্ত্রী দেশটির শাসকদের দায়ী করেন। এমনকি তিনি আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তা রক্ষার ক্ষেত্রে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ব্যর্থতার পর মার্কিন ভূমিকাকে স্বাগত জানান।
উল্লেখ্য সিরিয়ার বাশার আল আসাদ সরকারকে উচ্ছেদের জন্যে যুক্তরাষ্ট্র সহ পশ্চিমা দেশগুলো এমনকি ইসরায়েলের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার সহ মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশ অস্ত্র ও অর্থ দিয়ে দেশটিতে বিদ্রোহীদের সাহায্য করে আসছে। তবে এর বিপরীতে রাশিয়া, ইরান, লেবানন, ভেনিজুয়েলাসহ কয়েকটি দেশ সিরিয়াকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে।
এদিকে ইদলিব প্রদেশে বেসামরিক নাগরিকদের ওপর সিরিয়ার শাসকগোষ্ঠীর রাসায়নিক হামলার জন্য দেশটির বিরুদ্ধে আরো পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান।
গত শুক্রবার তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলীয় হাতাই প্রদেশ এক সমাবেশে এরদোগান এ আহ্বান জানান।
এরদোগান বলেন, সিরিযার জনগণকে রক্ষায় ‘রেজাল্ট-ওরিয়েন্টেড’ পদক্ষেপ নেয়ার মুখ্য সময় এসেছে।
সিরিয়ার সামরিক স্থাপনাকে লক্ষ্য করে আমেরিকার ক্ষেপণাস্ত্র হামলাকে তিনি স্বাগত জানান এবং এ হামলাকে তিনি ‘তাৎপর্যপূর্ণ’ বলে মনে করছেন।
তবে, এই পদক্ষেপ যথেষ্ট ছিল না বলে তিনি মনে করেন।
এরদোগান বলেন, ‘এ সবকিছুর পর এটাই অনিবার্য হয়ে ওঠে যে, সবাইকে তাদের নিজ নিজ অবস্থান পুনর্বিবেচনা করা উচিত।’
পেন্টাগন থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে যে, শুক্রবার সকালে সিরিয়ার ‘শায়েরাত’ বিমান ঘাঁটিতে ৫৯টি টমাহোক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে যুক্তরাষ্ট্রের নৌ সেনারা।
মঙ্গলবারের মারাত্মক রাসায়নিক হামলার জবাবে এই হামলা বলে আমেরিকান কর্মকর্তারা মনে করছেন।
মঙ্গলবার সিরীয় সরকারে রাসায়নিক হামলায় ১০০ জনেরও বেশি বেসামরিক লোক নিহত হয় এবং আরো প্রায় ৫০০ জন লোক আহত হয়। আহতদের বেশিরভাগই শিশু।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ