ঢাকা, শুক্রবার 18 September 2020, ৩ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ মহররম ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

সিরিয়ায় রাসায়নিক হামলা জাতিসংঘের জরুরি বৈঠক

অনলাইন ডেস্ক : সিরিয়ায় রাসায়নিক হামলায় অনেক বেসামরিক লোক হতাহতের ঘটনায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ জরুরি বৈঠকে বসতে যাচ্ছে। এদিকে সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় ইদলিব প্রদেশে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত খান শেইখুন শহরে বিষাক্ত রাসায়নিক গ্যাস ছোঁড়ায় তীব্র আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

সিরিয়ার সরকারি বাহিনী সেখানে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করেছে বিরোধী গ্রুপ ও পশ্চিমা দেশগুলোর এমন দাবি দামেস্কে সরকারি কর্মকর্তারা প্রত্যাখান করেছে। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, সিরিয়ার সামরিক বাহিনী বিদ্রোহীদের একটি অস্ত্র ভান্ডারে বিমান হামলা চালিয়েছে। সেখানে রাসায়নিক অস্ত্রও ছিল।

তারা জানায়, বিশেষকরে বিষাক্ত পদার্থে পরিপূর্ণ স্থল মাইন উৎপাদনের একটি কারখানায় এ হামলা চালানো হয়। এরআগে যুক্তরাষ্ট্র ও বিশ্বের ক্ষমতাধর অন্যান্য দেশ এ রাসায়নিক হামলার ঘটনায় সিরীয় সরকারকে দায়ী করে। ঘটনাস্থলের ভিডিও ফুটেজে বেসামরিক নাগরিকদের মুখে ফেনা দেখা যায়। ফুটেজে অনেককে বমি করতেও দেখা যায়। এদের মধ্যে অনেক শিশু রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাসায়নিক হামলায় আহতদের যেসব ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়, পরে সেসব ক্লিনিক লক্ষ্যকরেও বিমান হামলা চালানো হয়।

যুক্তরাজ্য ভিত্তিক মানবাধিকার বিষয়ক সিরীয় পর্যবেক্ষণ সংস্থা জানায়, এ ভয়াবহ রাসায়নিক হামলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭২ জনে দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে ২০ শিশু রয়েছে।

এ হামলা ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সম্মেলনের ওপর ছায়া ফেলবে। ওই সম্মেলনে দাতা দেশগুলোর সিরিয়ার ত্রাণ প্রচেষ্টা নিয়ে আলোচনার কথা রয়েছে। সেখানে প্রতিনিধিরা যুদ্ধের কারণে আটকা পড়া হাজার হাজার বেসামরিক নাগরিকের জন্য মানবিক সুযোগ জোরদার করতে চান। সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ ছয় বছরের বেশী সময় ধরে চলতে থাকলেও সেখানে রাজনৈতিক সমস্যা সমাধানের কোন লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।

জাতিসংঘ জানায়, এ সংঘাতে প্রায় ৫০ লাখ সিরীয় নাগরিক দেশ ছেড়ে চলে গেছে এবং দেশের অভ্যন্তরে ৬০ লাখেরও বেশী লোক গৃহহীন হয়ে পড়েছে। এতে আড়াই লাখেরও বেশী লোক নিহত হয়েছে।

রাসায়নিক হামলার ঘটনায় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সমালোচনার ঝড় উঠায় ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের আবেদনের প্রেক্ষিতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বুধবারের জরুরি বৈঠক ডাকা হয়। জাতিসংঘে ব্রিটেনের রাষ্ট্রদূত ম্যাথিউ রিক্রফট বলেন, এ ঘটনা সিরিয়ার শান্তির ক্ষেত্রে অত্যন্ত খারাপ খবর। সূত্র: বাসস। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ