শুক্রবার ২৯ মে ২০২০
Online Edition

ইভটিজিং এ বাধা দেয়ায় শিক্ষককে নির্মম নির্যাতন

পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) সংবাদদাতা: জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার শিধইল দাখিল মাদরাসার সহকারী শিক্ষক ইউনুস আলী (৪৫)  কে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছেন ওই মাদরাসার ৭ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর বাবা ইসমাইল হোসেন। আহত শিক্ষক বর্তমানে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মুমূর্ষু অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
আহত মাদরাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতি আজিজার রহমানসহ অন্যান্য শিক্ষকগণ জানান, ইয়ামিন নামে ওই মাদরাসার ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থী একই মাদরাসার কয়েক জন মেয়েকে উত্ত্যক্ত করতো, এমন অভিযোগে শিক্ষক ইউনুস আলী ছাত্র ইয়ামিনকে অফিসে ডেকে এনে কড়া ভাষায় শাসিয়ে দেয়। বিষয়টিতে অপমান বোধ করায় সে তার বাবা ইসমাইলকে বিভিন্ন ভাবে বানিয়ে ও বাড়িয়ে উল্টো অভিযোগ করে। এতে তার পরিবারের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে এর জের ধরে গত ৩০ মার্চ বৃহষ্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মোটর সাইকেল যোগে শিক্ষক ইউনুস মাদরাসার গেটে আসা মাত্র ইয়ামিনের বাবা ইসমাইল ও তার আত্মীয়-স্বজন লাঠি-সোটা দিয়ে ওই শিক্ষককে এলোপাতারী ভাবে পেটাতে থাকে। শিক্ষকের চিৎকারে অন্যান্য শিক্ষক ও এলাকাবাসী এগিয়ে এলে ইসমাইল ও তার লোকজন পালিয়ে যান।
পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে পাঁচবিবি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে দেন। তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য আহত শিক্ষককে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। বর্তমানে তিনি সংজ্ঞাহীন অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে সুপার ও আহতের পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে। এদিকে এমন ন্যক্কারজনক ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছেন অন্যান্য অভিভাবক ও শিক্ষকসহ এলাকাবাসী। প্রতিষ্ঠানের সভাপতি আজিজার রহমানসহ অন্য শিক্ষকরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট এবিষয়ে মৌখিক ভাবে অভিযোগ করলে তিনি থানায় মামলা করার পরামর্শ দেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান সভাপতি আজিজার রহমান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ