শুক্রবার ২৯ মে ২০২০
Online Edition

“বিদ্যুৎ উৎপাদনের বহু বিকল্প আছে সুন্দরবনের বিকল্প নাই”

খুলনা অফিস: তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি খুলনা জেলা কমিটির উদ্যোগে এক কর্মী সিপিবি’র কার্যালয়ে শুক্রবার বিকেল ৪টায় অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন  জাতীয় কমিটির খুলনা জেলার সভাপতি ডা. মনোজ দাস এবং সঞ্চালনা করেন সদস্য সচিব মোস্তফা খালিদ খসরু।
কর্মীসভায় বক্তব্য রাখেন, সিপিবি’র কেন্দ্রীয় সদস্য এসএ রশিদ, জেলা সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এমএম রুহুল আমীন, মহানগর সভাপতি এইচএম শাহাদৎ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য মনিরুল হক বাচ্চু, জেলা সম্পাদক কেএম আলীদাদ, গণসংহতি আন্দোলন খুলনা জেলা আহ্বায়ক মুনীর চৌধুরী সোহেল, ইউনাইনেড কমিউনিস্ট লীগ জেলা সম্পাদক ডা. সমরেশ রায়, জেলা নেতা কাজী দেলোয়ার হোসেন, আনিসুর রহমান মিঠু, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল- বাসদ (মার্কসবাদী) খুলনা জেলা নেতা রুহুল আমিন, সিপিবি’র দুলাল দেবনাথ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির গোলাম মোস্তফা, বাসদের (মার্কসবাদী) সুজয় চৌধুরী সাম্য, গণসংহতি আন্দোলন জেলা সদস্য কৃষ্ণ সরকার, মো. আলামীন শেখ প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, এই সর্বনাশা প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে প্রতিদিন সুন্দরবনের মধ্যদিয়ে ১২-১৩ হাজার টন কয়লার জাহাজ যাতায়াত করবে। এই প্রকল্পের প্রতিবছর অন্তত ৪৭ লক্ষ টন কয়লা পোড়ানো হবে। এ্র ফলে পানি, বায়ু, ও মাটি কৃষিজমি ভয়াবহ দূরণের শিকার হবে। মৎস্যজীবী বড়জীবীসহ এ অঞ্চলের ৩৫ লক্ষাধিক মানুষ তাদের বর্তমান জীবিকা হারাবে। উদ্বাস্ত হেবে অংখ্যমানুষ। প্রাকৃতিক দুর্যোগে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ৫ কোটি মানুষের জীবন ও সম্পদ অরক্ষিত হয়ে পড়বে। অরক্ষিত হবে বাংলাদেশ। ঋণ আর বেশি দামের বোঝা জনগণের কাঁধেই চাপবে। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ সুন্দরবন রক্ষার দাবিতে আন্দোলন সংগ্রাম জোরদার করার জন্য আপামর জনগণের প্রতি উদ্বাত্ত আহ্বান জানান।
কর্মীসভায় আগামী ২০ এপ্রিল খুলনায় সংগঠনের মহাসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের আহ্বান জানান হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ