বুধবার ০৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দেয়ার অঙ্গীকার

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা : শৃঙ্খলা রক্ষা, ক্রীড়া, সংস্কৃতি, আইসিটি, গরীব ও কম মেধাবী শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়া রোধসহ শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দেওয়া অঙ্গীকার নিয়ে ভোট যুদ্ধে নেমেছে খেপুপাড়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ জন শিক্ষার্থী। শৈশব থেকে গণতন্ত্রের চর্চা, মূল্যবোধ ও সৃজনশীলতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা ও উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্যে খেপুপাড়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এ নির্বাচনকে ঘিরে বিদ্যালয় ক্যাম্পাস ছিল দিনভর উৎসবের আমেজ। সবুজ স্কুল ড্রেস পরিহিত শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে পুরো ক্যাম্পাস সবুজে ভরে উঠে। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় প্রভাবমুক্ত নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে  শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তা, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য, অভিভাবক,  সাংবাদিকসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ এ ব্যতিক্রমী ভোট আয়োজন দেখতে ভিড় করে। নির্বাচনে ৬শত ৯৪ জন শিক্ষার্থী ভোটারের মধ্যে ৪ শত ৩৮ জন ভোট প্রদান করেন। নির্বাচনে বিজয়ীরা হলেন, শ্রাবনী ইসলাম তিসা, মিমিয়া, ইবাদি গালিব ঝিল, ইসমত জাহান সাদিয়া, তানিয়া বেগম, ইসরাত জাহান সুরভী, মরিয়ম আক্তার ও ফাতেমাতুজ জোহরা যুথী।
নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারিণী দশম শ্রেণির মানবিক বিভাগের ছাত্রী মোসা. মরিয়ম আক্তার জানান, আমি ভোটে দাঁড়িয়েছি ছাত্রীরা যাতে বিদ্যালয়ে শৃঙ্খলা বজায় এবং প্রতিবছর ছাত্রী ঝরে পড়া ও বাল্যবিবাহ রোধে সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করব। ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী সুমাইয়া আক্তার জানান, আমরা এই নির্বাচনে প্রথম ভোট দিতে পেরে সত্যিই আনন্দিত। জাতীয় নির্বাচনের আদলে এ নির্বাচন সত্যিই অনুকরনীয়।
নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব পালন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আনোয়ার হোসেন জানান, আমরা দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চাই কিভাবে শান্তিপুর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ করা যায়। প্রতীক, মিছিল,মিটিং, পোষ্টার-লিফলেট ছাড়া শুধু সচেতনতা বাড়িয়েই ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে আনা সম্ভব।  
বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য মো. শরিফুল হক জানান, শিক্ষার্থীদের মধ্যে যে গণতন্ত্রের ধ্যান-ধারণা দেখেছি ভবিষ্যতে জাতীয় রাজনীতিতে এর সুফল বয়ে আনবে।
বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. জহিরুল ইসলাম জানান, নির্বাচনের ঘোষণা দেয়ার পর থেকে ছাত্রীদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ ও উৎসাহ দেখা গেছে। এতে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ ছিল চোখে পড়ার মতো। নির্বাচন থেকে ছাত্রীরা অনেক কিছু শিখতে পারবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ