মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বিয়ানীবাজার পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে সরগরম হয়ে উঠেছে এলাকা

বিয়ানীবাজার (সিলেট) সংবাদদাতা: দীর্ঘ ১৬ বছর পর বহুল প্রত্যাশিত সিলেটের বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচন আগামী ২৫শে এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে ঘিরে এলাকায় ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াতে ইসলামী, জাসদ ও জমিয়তে ইসলাম দলীয় প্রার্থী ঘোষণা দিয়েছে। ইতোমধ্যে মনোনয়নপত্র যাচাই বাচাইয়ের কাজ শেষ হয়েছে।
উপজেলা রিটার্নীং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মেয়র পদে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী ১১ জনের মধ্যে ৩জনের মনোনয়নপত্র ক্রটির কারণে বাতিল করা হয়েছে। নির্বাচন অফিস যাচাই-বাছাই শেষে ৮ জন মেয়র প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করে।
বাতিল হওয়া প্রার্থীরা হচ্ছেন জাসদের শমসের আলম, স্বতন্ত্র আমান উদ্দিন ও মোঃ বদরুল হক। প্রয়োজনে তারা আপীল করতে পারবেন।
মেয়র পদে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে  বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগের মোঃ আব্দুস শুক্কুর, বিএনপি’র আবু নাসের পিন্টু, স্বতন্ত্র পৌর প্রশাসক তফজ্জুল হোসেন, জামায়াত সমর্থিত স্বতন্ত্র মোঃ জমির উদ্দিন, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) আবুল কাশেম পল্লব, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) জাকির হোসেন, জমিয়তের মাওলানা শামীম আহমদ ও স্বতন্ত্র মাসুক আহমদ।
অপর দিকে কাউন্সিলর পদে ১৭জন প্রার্থীর মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা করেছেন রিটানিং কর্মকর্তা মনির হোসেন। অবৈধ ঘোষিত হওয়া প্রার্থীরা আপিল করতে পারবেন। গত বুধবার বেলা ২টায় উপজেলা সভা কক্ষে কাউন্সিলর প্রার্থীদের মনোনয়ন  বাচাই করা হয়।
১নং ওয়ার্ড-বৈধ প্রার্থীরা হলেন, মোঃ ফখরুল ইসলাম, মোঃ সহিদ আলী, খছরুজ্জামান, এমাদ আহমদ, আফজাল হোসেন, জুবের আহমদ, আব্দুল কবির। অবৈধ তিন প্রার্থী হলেন মোঃ সুমন আহমদ, মোঃ আমীর হোসেন, মোঃ মারুফ আহমদ,
২নং ওয়ার্ড- বৈধ প্রার্থীরা হলেন হাজী মোঃ আলকাছ উদ্দিন, হাজী মোঃ এনামুল হক। এ ওয়ার্ডের অবৈধ প্রার্থীরা হলেন মোঃ ওয়াহিদুর রহমান, ছয়ফুল আলম।
৩নং ওয়ার্ড-  বৈধ প্রার্থীরা হলেন মোঃ আব্বাছ উদ্দিন, সাহাব উদ্দিন, মোঃ লোকমান হোসেন, আতিক উদ্দিন, মাহমুদ ছামী, মছমন উদ্দিন আহমদ, ইসলাম উদ্দিন আহমদ, মোঃ বাবুল আক্তার, কবির আহমদ। এই ওয়ার্ডের অবৈধ ২ প্রার্থী হলেন মানিক আহমদ, মোঃ এনামুল হক।
৪নং ওয়ার্ড- বৈধ প্রার্থীরা হলেন মোঃ আব্দুল আজিজ, মোঃ লুৎফুর রহমান, মোঃ জমির আহমদ, জিলা মিয়া, মোঃ ছাদিকুর রহমান, হাজী মোঃ আব্দুন নূর, মোঃ আব্দুল বছির, সাইবুল আলম রেজা, মোঃ সিফার আহমদ, মোঃ আকছার হোসেন। এ ওয়ার্ডের অবৈধ প্রার্থীরা হলেন মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, মোঃ আবু বকর সিদ্দিক, মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান টিটন।
৫নং ওয়ার্ড- সেলিম উদ্দিন, কান্তি চক্রবর্ত্তী, জুনেল আহমদ, নাজিম উদ্দিন, জহিরুল হক রাজু, মোঃ আরিফ উদ্দিন তুহিন, নিজাম উদ্দিন, ফারুক আহমদ, মোঃ সাইফুর ইসলাম, মোঃ জানে আলম প্রার্থীতার আবেদন করেন। এই ওয়ার্ডে সকল প্রার্থীর মনোনয়ন  বৈধ ঘোষণা করা হয়।
৬নং ওয়ার্ড-  বৈধ প্রার্থীরা হলেন আবুল আহসান মোঃ আশরাফ (জাবুর),  মোঃ লোকমান আহমদ ও মোঃ বেলায়েত হোসেন। এ ওয়ার্ডের অবৈধ প্রার্থীরা হলেন মোঃ ছালেহ আহমদ হেলাল ও মোঃ সরাজ উদ্দিন।
৭নং ওয়ার্ড-  বৈধ প্রার্থীরা হলেন মোহাম্মদ আব্দুস সালাম, মোঃ লুৎফুর রহমান, আতিকুর রহমান, মিছবাহ উদ্দিন, মাসুক উদ্দিন, মোহাম্মদ জাকির হোসেন, সম্রাট শেখর দেব। এ ওয়ার্ডের অবৈধ প্রার্থীরা হলেন মোহাম্মদ আক্তারুজ্জামান।
৮নং ওয়ার্ড বৈধ প্রার্থীরা হলেন মোহাম্মদ এনাম হোসেন, আলী আহমদ বদরুছ ছালাম, মোঃ এনামুল হক, জাহাঙ্গীর আলম, আব্দুল কাইয়ুম, মোঃ এবাদুর রহমান, মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, মোঃ আব্দুল হান্নান। এই ওয়ার্ডে বাতিল হওয়া একমাত্র প্রার্থী হলেন মোঃ আলী হোসেন।
৯নং ওয়ার্ড- বৈধ প্রার্থীরা হলেন আব্দুর রহমান আফজল, কবির আহমদ, আবুল হাসনাত নাসির, এমদাদুর রহমান, বাবুল হোসেন, মনির আলী, জাফর সিদ্দিকী, সারওয়ার হোসেন। এ ওয়ার্ডের অবৈধ প্রার্থীরা হলেন শাহাজানুল ইসলাম লায়েক, শাহজাহান কবির এবং শফিক উদ্দিন।
বিয়ানীবাজার উপজেলা রিটানিং কর্মকর্তা মনির হোসেন জানান, মেয়র পদে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী ১১ জনের মধ্যে ৩জনের মনোনয়নপত্র ক্রটির কারণে বাতিল করা হয়েছে। কাউন্সিলর পদে ১৭জন প্রার্থীর মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
উল্লেখ্য, বিয়ানীবাজার সদর ইউনিয়নকে বিলুপ্ত করে ২০০১ সালে ইউনিয়নকে পৌরসভায় রূপান্তরিত করা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ