বৃহস্পতিবার ২৬ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

হকি স্টেডিয়ামে ফ্লাড লাইট স্থাপনের কাজ সহসাই শুরু হচ্ছে

কামরুজ্জামান হিরু : দীর্ঘ ৩২ বছর পর এশিয়া কাপ হকির আসর বসছে বাংলাদেশে। এশিয়ান হকি ফেডারেশনের (এএইচএফ) পূর্ব ঘোষিত ক্যালেন্ডার অনুযায়ি ১৪ থেকে ৩০ অক্টোবর এশিয়া কাপের খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হবে। মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামেই হবে এশিয়ান হকির শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। ভেন্যু বাতিলের যে শঙ্কা তৈরি হয়েছিলো তা কেটে যাওয়ায় জোরালো কন্ঠেই বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আবদুস সাদেক বললেন যথা সময়েই মাঠে গড়াবে টুর্নামেন্টটি। এএইচএফ ফ্লাড লাইট স্থাপনের যে শর্ত দিয়েছিলো তা অচিরেই পূরণ হতে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের ছাড়পত্র পেয়েছে ১০ কোট টাকার ফ্লাডলাইট স্থাপনের প্রকল্পটি। অচিরেই আহ্বান করা হবে দরপত্র। বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের প্রত্যাশা সেপ্টেম্বর নাগাদ শেষ হয়ে যাবে ফ্লাডলাইট স্থাপনের কাজ, আর অক্টোবরে সূচি অনুযায়ী তারা আয়োজন করতে পারবে আট জাতি এশিয়া কাপের আসর।বাংলাদেশ হকি ফেডারেশেনের সহ-সভাপতি খাজা রহমতউল্লাহ চোখেমুখে স্বস্তির রেখা, ‘আশা করছি আগামী মাসের শুরুতেই আহ্বান দরপত্র করা হবে, কাজ শেষ করতে দুই মাসের বেশি সময় লাগার কথা নয়। সে হিসেবে দরপত্র নেওয়া ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র আনার জন্য জুন পর্যন্ত সময় লাগলে জুলাই-আগস্ট নাগাদ কাজ শেষ হতে পারে। আমরা চাইব দ্রুত শেষ হোক কাজ, যাতে নির্বিঘেœ আায়োজন করতে পারি এশিয়া কাপ।’
হকি স্টেডিয়ামের চার কোণায় চারটি টাওয়ারে বসবে লাইটগুলো। মাঠের মাঝখানে লাক্সের মাত্রা হবে ১২৫০। হকি ফেডারেশন শুধু ফ্লাডলাইট স্থাপন করেই বসে থাকতে চায় না। এবারের হকি ওয়ার্ল্ড লিগ রাউন্ড-২ আয়োজনের সময় দেখা গেছে বেশ কিছু ঘাটতি। বিশেষ করে মূল টার্ফের পাশে একটি অনুশীলন টার্ফের প্রয়োজনীয়তা প্রকট আকারে দেখা দিয়েছে। সে ক্ষেত্রে বর্তমানে টার্ফ যেখানে আছে, সেটিকে আরও পশ্চিমে সরিয়ে এনে পূর্ব দিকে অনুশীলন টার্ফ স্থাপন করা সম্ভব। ফেডারেশন এটি ছাড়াও ভিআইপি গ্যালারি ও প্রেস বক্সের উন্নয়নও করতে চায়।
তা ছাড়া মাঠের পাশে খেলেয়াড়দের বসার স্থান ও ড্রেসিং রুমের সংস্কারও প্রয়োজন, কারণ এশিয়া কাপের মতো বড় আসরের ক্ষেত্রে অনেক কিছুতেই ছাড় দেবে না এশিয়ান হকি ও আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশন। উল্লেখ্য এশিয়া কাপ হকি বাংলাদেশে হয়েছিল ১৯৮৫ সালে। এর পর এশিয়া কাপ মানেই আয়োজক মালয়েশিয়া। এশিয়ার ৮ দেশ খেলবে এ টুর্নামেন্ট। বাংলাদেশ ছাড়া অন্য দেশগুলো হচ্ছে-ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া, জাপান, চীন ও ওমান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ