বৃহস্পতিবার ১৬ জুলাই ২০২০
Online Edition

খুলনায় মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের বিশেষ অভিযান : ৩২ জন গ্রেফতার

খুলনা: বনদস্যু জিয়া বাহিনীর প্রধান জিয়াউর রহমান ওরফে জিয়া ও তার সেকেন্ড ইন কমান্ড মো. মিন্টু গাজীসহ চারজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৬। উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও গুলী

খুলনা অফিস: খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি) ও জেলা পুলিশের ১০ দিনব্যাপী বিশেষ অভিযান শুরু অব্যাহত রয়েছে। ৯ মার্চ থেকে শুরু হওয়া জঙ্গি সংশ্লিষ্ট অপরাধীদের গ্রেফতার এবং মাদক বিরোধী এ অভিযান চলবে ১৮ মার্চ পর্যন্ত।
পুলিশের বিশেষ এ অভিযানে শনিবার রাত পর্যন্ত ৩২ জন মাদক বিক্রেতা গ্রেফতার হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে পৃথকভাবে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ২৯টি মামলা দায়ের হয়েছে। এছাড়া বিপুল পরিমাণ ফেন্সিডিল, ইয়াবা, গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়েছে।
কেএমপি পুলিশের সূত্রে জানা গেছে, গত ৯ মার্চ  শুরু হওয়া বিশেষ অভিযানে ৬০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, দুইশ’ গ্রাম গাঁজা, ৫২ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে খুলনা থানা পুলিশ ১২ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, দুই বোতল ফেন্সিডিল ও ৫০ গ্রাম গাঁজাসহ দুইজন, সোনাডাঙ্গা থানা পুলিশ ৫ পিচ ইয়াবাসহ একজন, লবণচরা থানাধীন ১০ পিস ইয়াবাসহ একজন, হরিণটানা থানা ১৫ পিস ইয়াবাসহ একজন, খালিশপুর থানা পুলিশ ৫ পিস ইয়াবাসহ একজন, দৌলতপুর থানা পুলিশ ৭ পিস ইয়াবাসহ ও ২০ গ্রাম গাঁজাসহ দুইজন, আড়ংঘাটা থানা পুলিশ ১৩০ গ্রাম গাঁজাসহ একজন, কেএমপি’র ডিবি পুলিশ ৫০ বোতল ফেন্সিডিল ও ৬ পিস ইয়াবাসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট থানায় পৃথকভাবে ১০টি মাদক মামলা দায়ের হয়েছে।
জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বিশেষ অভিযানে ১৪ জন মাদক বিক্রেতাকে মাদকসহ গ্রেফতার করা হয়েছে। এ সকল ঘটনায় পৃথকভাবে ১১টি মাদক মামলা দায়ের হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সজীব খান  বি-সার্কেল খুলনার তদারাকীতে ফুলতলা থানার বিভিন্ন স্থান থেকে ৫০ বোতল ফেন্সিডিল ও ৪২ পিস ইয়াবা উদ্ধার, ডুমুরিয়া থানা এলাকা থেকে ১৮ পিস ইয়াবাসহ ১৫৫ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার ও রূপসা এলাকা  থেকে ২৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ সময় গ্রেফতারকৃতরা হলো-সবুজ মল্লিক (২৮), মো. রাজু খাঁ (২৬) মো. হিমেল মোল্লা (২৫), মিজান (২০), ইয়াসিন সরদার (৩২), হৃদয় বিশ্বাস (১৯), নাজমুল মোড়ল (২০), ফরিদ শেখ (৩৩), মোনজ ঢালী (৩২), শহিদুল ইসলাম শেখ (৪৫), শাহিদুল ওরফে গজাল (৫৪), সাধন অধিকারী (৪৫), সাদ্দাম (২৪), লালু শেখ (৪৫) ও রাজিবুল ইসলাম ঠাকুর (৩২)। সর্বশেষ শনিবার রাত ১১টা পর্যন্ত নগরীর সোনাডাঙ্গায় ইয়াবাসহ দুইজন, খালিশপুরে ইয়াবাসহ একজন, লবণচরায় ইয়াবাসহ একজন, দৌলতপুর ইয়াবাসহ দুইজন ও খানজাহান আলী থানায় গাঁজাসহ একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ সকল ঘটনায় সংশিষ্ট থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক ৭টি মামলা দায়ের হয়েছে। এছাড়া মাদক বিরোধী অভিযান অব্যহত রয়েছে বলে থানার অফিসার ইনচার্জগণ জানান।
কোস্টগার্ডের অভিযানে অর্ধকোটি টাকার অবৈধ বিদেশী পণ্য উদ্ধার: শুল্ক ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশ করা বিপুল পরিমাণ বিদেশী পণ্য উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার ভোর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কোস্ট গার্ডের একটি টহল দল রূপসা খানজাহান আলী (রূপসা) ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় এ অভিযান চালায়। তবে এ ঘটনায় জড়িত পাচারকারী চক্রের কেউ গ্রেফতার হয়নি। উদ্ধার পণ্য আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য খুলনা কাস্টমস এ হস্তান্তর করা হয়েছে।
বাংলাদেশ কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের অপারেশন কর্মকর্তা লে. কমান্ডার এম. ফরিদুজ্জামান খান জানান, আটক পণ্য সমূহের মধ্যে রয়েছে দামি শাড়ি, স্যুটের কাপড় ও শার্টের কাপড়। জব্দকৃত ট্রাক এবং পণ্য সমূহের আনুমানিক মূল্য প্রায় ৫৫ লাখ টাকা। কোস্টগার্ডের এখতিয়ারভুক্ত এলাকাসমূহে আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ ও জননিরাপত্তার পাশাপাশি চোরাচালান নিয়ন্ত্রণে কোস্টগার্ডের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ