শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

পুলিশের নাম ভাঙিয়ে

ফেনী সংবাদদাতা :  ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে শনিবার রাতে থানার তালিকাভুক্ত এক প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, এনামুল প্রকাশ মিন্টু খোনার দীর্ঘদিন ধরে সোনাগাজী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পুলিশ ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজি করে  আসছে। গত মঙ্গলবার বগাদানা ইউনিয়নের আউরারখীল গ্রামে পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে শাহাদাত হোসেন ফারুক (২১)নামের এক যুবক নিহত হয়। এই সময় ফারুকের বৃদ্ধা মাতা বিবি আয়েশা গুরুতর আহত হয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মিন্টু আত্মীয়তার পরিচয় দিয়ে বিবি আয়েশা তার বোনকে কৌশলে ফাঁদে ফেলে থানা পুলিশ, ডাক্তার, সাংবাদিক, উকিল ও আদালতের বিচারককে মেনেজ করে মামলা দিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসির মঞ্চে দাঁড় করানোর কথা বলে বিভিন্ন ভাবে ৫০-৬০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। এমনকি গত ৯ মার্চ বৃহস্পতিবার নিহতের পিতা করিমুল হক বাদী হয়ে ৬জনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করলেও মিন্টু খোনার কৌশলে করিমুল হকের স্ত্রী আহত বিবি আয়েশাকে হাসপাতাল থেকে সি.এন.জি যোগে আদালতে নিয়ে ১৩জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা না নেওয়ার কথা বলে আদালতে মামলা দায়ের করে। বিষয়টি পুলিশ জানতে পেরে মিন্টু খোনারের মোবাইলে রেকর্ডকৃত তথ্য উদঘাটন করে শনিবার রাতে সোনাপুরস্থ তার বাড়ী থেকে তাকে গ্রেফতার করে।
পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে করিমুল হক তার কৃতকর্মের কথা স্বীকার করে আরও বেশ কয়েক জায়গা থেকে পুলিশের নাম দিয়ে চাঁদাবাজির তথ্য দেয়।
সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মো: হুমায়ুন কবীর চাঁদাবাজির ঘটনায় মিন্টু দালালকে গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মিন্টু সংঘবদ্ধ চক্রের সাথে হাত মিলিয়ে হত্যা মামলাটিকে ভিন্ন খাতে প্রভাবিত করতে চেয়েছিল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ