বুধবার ১৫ জুলাই ২০২০
Online Edition

নেদারল্যান্ডকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র বলায় তুরস্ককে বাস্তবতা বিচ্ছিন্ন বললো ইইউ

১৫ মার্চ, বিবিসি : নেদারল্যান্ডের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থগিত করার পর দেশটিকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র আখ্যায়িত করেছে তুরস্ক। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান নেদারল্যান্ডকে এই আখ্যা দেন এবং বলেন, ‘এটি একটি পচা দেশ।’ তবে, এরদোগানের এমন মন্তব্যের পর তার ঘোর বিরোধিতা করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।
গত বুধবার ইউরোপিয়ান কাউন্সিলের প্রধান ডোনাল্ড টাস্ক বলেন, ‘তুরস্ক আসলে বাস্তবতা থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন।’ তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলুকে নেদারল্যান্ডসে রাজনৈতিক র‌্যালিতে যোগ দিতে না দেয়ায় দেশ দুটির মধ্যে বিরোধ চরম আকার ধারণ করেছে। তুরস্কের উপ-প্রধানমন্ত্রী নুমান কুরতুলমাস সোমবার আঙ্কারায় দু’দেশের মধ্যে উচ্চ পর্যায়ের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থগিত ঘোষণা করেন।
আগামী ১৬ এপ্রিল তুরস্কে এরদোগানের ক্ষমতা অসীম পর্যায়ে বর্ধিত করা নিয়ে গণভোট অনুষ্ঠিত হবে। এর পক্ষে ভোট চাইতে তুরস্কের শীর্ষ নেতারা ইউরোপের বিভিন্ন দেশে প্রচারণা চালানোর টার্গেট ঠিক করেন। তারই অংশ হিসেবে নেদারল্যান্ডসে এক এক রাজনৈতিক র‌্যালিতে যোগ দেয়ার কথা ছিল পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুতের। কিন্তু তাকে বহনকারী বিমান অবতরণ করার অনুমতি দেয়নি নেদারল্যান্ডস। এতে ভীষণ ক্ষুব্ধ তুরস্ক।
এ ছাড়া তুরস্কের পরিবার বিষয়ক মন্ত্রী ফাতমা বেতুল সায়ান কায়াফ্রমকে নেদারল্যান্ড কর্তৃপক্ষ একই রকম র‌্যালি করার অনুমতি দেয় নি। তিনি নেদারল্যান্ডে অবস্থিত তুর্কি কনসুলেটে প্রবেশ করতে পারেননি।
মেভলুত কাভাসোগলু বলেছেন, তাকে অবতরণ করতে দেওয়া হয়নি নিরাপত্তার অজুহাতে। তবে জন শৃংখলা ও নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের বিষয়ে ডাচ কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যাখ্যা দেয়নি। তুরস্কের একজনও তুর্কি কি জঙ্গি আছে? জবাবে তারা বলে, না। তাহলে নিরাপত্তা নিয়ে কি সমস্যা? তারা আমাকে বিস্তারিত কিছু জানায় নি।
কাভাসোগলু আরো বলেন, আমি তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। আমি কোনো সন্ত্রাসী নই। তারা আসল সত্যকে লুকানোর জন্য নিরাপত্তাকে শুধু অজুহাত হিসেবে দেখিয়েছে। বরং নেদারল্যান্ডস ও ইউরোপীয় অন্যান্য দেশে বর্ণবাদ, ইসলাম বিরোধিতা ও অতিশয় বিদেশি ভীতি এ জন্য দায়ী। তুরস্কের গণভোটে যাতে ‘হ্যাঁ’ বিজয়ী হতে না পারে সে জন্য প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে নেদারল্যান্ডস ও ইউরোপীয় অন্য দেশগুলো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ