বুধবার ১৫ জুলাই ২০২০
Online Edition

স্বাধীনতার দাবির পক্ষে স্কটল্যান্ডে সর্বোচ্চ জনসমর্থন

১৫ মার্চ, রয়টার্স : অতীতের যে কোনও সময়ের চেয়ে স্কটল্যান্ডে স্বাধীনতার দাবির প্রতি সমর্থন বাড়ার আভাস পাওয়া গেছে। গতকাল বুধবার স্কটসেন’স স্কটিশ সোশ্যাল এটিচিউডস-এর এক জরিপে এই আভাস পাওয়া গেছে। ওই জরিপ অনুযায়ী ৪৬ শতাংশ স্কটিশ স্বাধীনতার পক্ষে সমর্থন দেয়ার কথা জানিয়েছেন। ২০১২ সালের সাপেক্ষে এবারে স্বাধীনতার দাবি সমর্থনকারীর সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ। তবে ওই জরিপের সুপারিশে বলা হয়েছে, প্রাপ্ত ফলাফল অনুকূলে গেলেও এখনই দেশটির ফার্স্ট মিনিস্টার নিকোলা স্টারজিওনের জন্য নতুন গণভোট আহ্বানের ভালো সময় নয়।
জরিপে অংশগ্রহণকারীদের ৪২ শতাংশ ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণে সমর্থন জানিয়েছেন, যেখানে আট শতাংশ স্কটিশ পার্লামেন্টেরই বিপক্ষে মত দিয়েছেন। তবে স্বাধীনতার পক্ষে সমর্থন বৃদ্ধির পরও নতুন গণভোটে জয়লাভ করাটা স্টারজিওনের স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টির জন্য কষ্টকর হবে বলে ওই জরিপে উল্লেখ করা হয়। ব্রেক্সিট গণভোটের সময় স্কটল্যান্ডে বিপক্ষে ভোট দিয়েছিলেন ৬২ শতাংশ জনগণ, যেখানে পক্ষে পড়ে ৩৮ শতাংশ ভোট।
তবে ওই জরিপে বলা হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) নিয়ে বর্তমানে সবচেয়ে বেশি স্কটিশ সংশয়ে রয়েছেন। জরিপে দুই-তৃতীয়াংশ অংশগ্রহণকারী ইইউ থেকে বেরিয়ে আসতে বা ইইউ-র ক্ষমতা সীমিত করার পক্ষে মত দিয়েছেন। যেখানে ২০১৪ সালের জনমতে এই সংখ্যাটা ছিল ৫৩ শতাংশ। সোমবার স্টারজিওন জানিয়েছেন, তিনি ২০১৮ বা ২০১৯ সালে পরবর্তী গণভোটের দাবি জানাবেন। ওই সময়ের মধ্যে ইইউ থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার বিষয়গুলো আরও স্পষ্ট হবে। মঙ্গলবার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে-র মুখপাত্র জানিয়েছেন, ব্রেক্সিট পরিকল্পনা নিয়ে তারা স্কটিশ সরকারের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ